২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

মোহাম্মদপুরে লাইসেন্সহীন ১৪টি হাসপাতাল বন্ধের নির্দেশ

হাসপাতাল
মোহাম্মদপুরে লাইসেন্সহীন ১৪টি হাসপাতাল বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট - নয়া দিগন্ত

মোহাম্মদপুরে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের বিপরীতে থাকা লাইসেন্সহীন ১৪টি হাসপাতাল দ্রুত বন্ধ করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসাথে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক ও র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে এই নির্দেশ বাস্তবায়ন করতে বলেছেন আদালত।

আজ মঙ্গলবার বিচারপতি বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এক রিটের শুনানি শেষে রুলসহ এ আদেশ দেন।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ।

পরে মনজিল মোরসেদ বলেন, গত এপ্রিল মাসে মোহাম্মাদপুরে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের বিপরীত বাবর রোড ও খিজির রোড সংশ্লিষ্ট এলাকায় লাইসেন্সহীন হাসপাতালের খবর একটি দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। কিন্ত আইন অনুসারে লাইসেন্সহীন হাসপাতাল পরিচালনা একেবারেই অবৈধ এবং তা পরিচালনা করা শাস্তিযোগ্য। এ কারণে জনস্বার্থে গত ৯ সেপ্টেম্বর আমরা একটি রিট মামলা করি। আজকে এর ওপর শুনানি হয়েছে। শুনানি নিয়ে আদালত ১৪টি হাসপাতাল দ্রুত বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন। স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক ও র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে এই নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এছাড়াও রুল জারি করা হয়েছে। লাইসেন্সহীন হাসপাতাল পরিচালনা কেন বেআইনী ঘোষণা করা হবে না এবং যারা এগুলো পরিচালনা করছে তাদের বিরুদ্ধে আইনত কেন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না তা জানতে চেয়ে চার সপ্তাহের রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।
স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সচিব, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক, পুলিশ কমিশনার, মোহাম্মাদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

এর আগে গত ২০ এপ্রিল ‘রাজধানীতে বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান : ৫০০ মিটারে ২৬টি, ১৪টিই অবৈধ হাসপাতাল’ শিরোনামে একটি দৈনিকে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। পরে সে প্রতিবেদন সংযুক্ত করে হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে রিট দায়ের করা হয়। সে রিটের শুনানি নিয়ে আদালত আদেশ দেন।

আরো পড়ুন :
সাভার সেন্ট্রাল ও প্রিন্স হাসপাতাল সীলগালা
সাভার (ঢাকা) সংবাদদাতা, ১৯ জুলাই ২০১৮
সাভারে গতকাল বৃহস্পতিবার মেয়াদত্তীর্ন ওষধসহ বিভিন্ন অভিযোগে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে সাভার র‌্যাব- ৪ ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে পৌর এলাকার তালবাগের সাভার সেন্ট্রাল হাসপাতাল ও প্রিন্স হাসপাতাল এন্ড ইনস্টিটিউটের হাসপাতাল সেকশন ও ডায়াগনষ্টিক র‌্যাব সদর দপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সারওয়ার আলম সিলগালা ও জরিমানা করা হয়েছে। একই দিন আরো কয়েকটি হাসপাতাল কে জরিমানা করা হয়েছে।

র‌্যাব-৪ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,গতকাল বিকেলে সাভার সেন্ট্রাল হাসপাতালে অভিযান চালায় র‌্যাব ৪ এর ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষধ রাখা, হাসপাতালের লাইসেন্স নবায়ন না থাকা, ত্রুটিপূর্ণ অপারেশন থিয়েটার ও মেয়াদত্তীর্ণ ওষধ রাখার অভিযোগ সাভার সেন্ট্রাল হাসপাতাল সিলগালা ও আড়াই লক্ষ টাকা জরিমানা এবং প্রিন্স হাসপাতাল এন্ড ইনস্টিটিউটের হাসপাতাল সেকশন ও ডায়াগনষ্টিক সিলগালাসহ ৬ লক্ষ টাকা জরিমাণা করা হয়।

এছাড়াও ২০১২ সালের মেয়াদোত্তীর্ণ সার্জিকেল সূতা, অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে চিকিৎসা সেবা দেওয়ার অভিযোগে সাভারের থানা বাসষ্ট্যান্ডের দ্বীপ ক্লিনিক কে নগদ তিন লক্ষ টাকা ও থানা রোডের প্রাইম হাসপাতাল ফার্মেসীতে মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ, ল্যাবে ময়লা, মেয়াদত্তীর্ণ ব্লাড রাখার অভিযোগে আড়াই লক্ষ টাকা জরিমাণা করেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সাভার সেন্ট্রাল হাসপাতালে সম্প্রতি ভুল চিকিৎসার অভিযোগে জাহানার বেগম নামে এক নারীর মৃত্যু হয়। এ ঘটনা তদন্তে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জুনিয়র কনসালটেন্ড (সার্জারী) ডা. মোছা: শাহনাজ পারভীনকে প্রধান করে ৫ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অন্য সদস্যরা হচ্ছে- জুনিয়র কনসালটেন্ড (কার্ডিওলজী) ডা. আরিফুর রহমান, মেডিকেল অফিসার ডা. মো: জাভেদ হোসেন, উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সহকারী সার্জন ডা. বেনজির আক্তার, অফিস সহায়ক মো: লিটন মিয়া। ১০ কার্য্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতর ও ঔষধ প্রশাসন অধিদফতর ও র‌্যাব-৪ এর যৌথ উদ্যোগে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে এ সময় র‌্যাব ৪ এর কোম্পানী কমান্ডার মেজর আব্দুল হাকিম, সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এর আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা.জাহিদুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। র‌্যাব ৪ এর কোম্পানী কমান্ডার মেজর আব্দুল হাকিম বলেন- এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

ময়মনসিংহে চিকিৎসা অবহেলায় মৃত্যুর ঘটনায় হাসপাতাল বন্ধের নির্দেশ
ময়মনসিংহ অফিস, ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮
চিকিৎসা ও ক্লিনিক কর্তৃপক্ষের অবহেলায় প্রগ্রেসিভ স্কুলের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী রাফিয়ার মৃত্যুর ঘটনায় ময়মনসিংহ শহরের চরপাড়া এলাকার বেসরকারি হাসপাতাল ‘শিলাঙ্গণ’ সাময়িক বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন সিভিল সার্জন। সোমবার সন্ধ্যায় সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে ওই নির্দেশ প্রদান করা হয়। এর আগে ওই ক্লিনিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক, বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়, জেলা সিভিল সার্জন ও জেলা প্রশাসনে অভিযোগ ও স্মারকলিপি প্রদান করেন রাফিয়ার পিতা কথাশিল্পী মাহমুদ বাবু। এসময় বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

সিভিল সার্জন ডা. আব্দুর রউফ সাংবাদিকদের জানান, মেধাবী ছাত্রী রাফিয়ার মৃত্যু নিয়ে বেসরকারি হাসপাতাল ‘শিলাঙ্গণ’ কর্তৃপক্ষ ও একজন চিকিৎসকের বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়ার পর হাসপাতালটি সাময়িক বন্ধের নির্দেশ দিয়ে চিঠি প্রেরণ করা হয়।

উল্লেখ্য, গত ২৬ আগস্ট শহরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও কথাশিল্পী মাহমুদ বাবুর শিশু কন্যা রাফিয়ার তলপেটে ব্যথা অনুভূত হলে গাইনী চিকিৎসক ডাঃ শিলা সেনের শরণাপন্ন হলে নিজের মালিকাধীন ক্লিনিক শিলাঙ্গনে ভর্তি করেন। ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের সহকারি অধ্যাপক ডা. মনির হোসেন ভূইয়া দুইদিন ধরে নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে এপেন্ডিসাইডস হওয়ায় ভোর ৬ টায় অপারেশন করেন। এরপর রাফিয়ার অবস্থার অবনতি হলে তাকে অপর একটি ক্লিনিকের আইসিইউতে ভর্তি করার কিছুক্ষণ পর মৃত ঘোষণা করা হয়।

এ ঘটনায় গত কয়েকদিন ধরে শহরবাসি ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেসরকারি হাসপাতাল ‘শিলাঙ্গণ’ এবং ওই হাসাতালের মালিক ডা. শীলা সেন ও সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের সহকারি অধ্যাপক ডা. মনির হোসেন ভূইয়াকে সরব হয়ে উঠে। পরে ফুঁসে উঠে ময়মনসিংহের সচেতন নাগরিকগণ। মেধাবী ছাত্রী রাফিয়ার মৃত্যুর জন্য দায়ী চিকিৎসক ও ক্লিনিক মালিকের দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবিতে যৌথভাবে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে যৌথভাবে মহিলা পরিষদ, উদীচী, যুব ইউনিয়ন, ছাত্র ইউনিয়ন, প্রগতি লেখক সংঘসহ বিভিন্ন সংগঠন।


আরো সংবাদ