১৪ নভেম্বর ২০১৮
কুমিল্লার নাশকতার মামলা

খালেদা জিয়ার জামিন বাতিলে রাষ্ট্রপক্ষের আপিল শুনানি শেষ, আদেশ রোববার

-

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে নাশকতার অভিযোগে বিশেষ ক্ষমতা আইনে দায়ের করা মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন বাতিলে রাষ্ট্রপক্ষের করা আপিলের শুনানি শেষ হয়েছে। আগামী রোববার আদেশের জন্য সময় নির্ধারণ করেছেন আদালত।

আজ বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে ছিলেন খন্দকার মাহবুব হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, এ জে মোহাম্মদ আলী ও মাহবুব উদ্দিন খোকন। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

শুনানিতে খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা বলেন, ঘটনার দিন খালেদা জিয়া তার গুলশান কার্যালয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের দ্বারা অবরুদ্ধ ছিলেন। তাকে সব ধরনের যোগাযোগ থেকে বিচ্ছিন্ন রাখা হয়েছিল। তাই তার পক্ষে অভিযোগের ব্যাপারে নির্দেশ দেয়ার সুযোগ ছিল না।

আইনজীবীরা এছাড়াও বলেন, খালেদা জিয়া একজন বয়স্ক মানুষ। তিনি নানা জটিল রোগে ভুগছেন। তাই তার জামিন বহাল রাখা হোক।

অন্যদিকে অ্যাটর্নি জেনারেল তার বক্তব্যে বলেন, হাইকোর্টের আদেশের কপি এখনো পৌঁছেনি। এ কপি আসা পর্যন্ত এ জামিন স্থগিত রাখা হোক। খালেদা জিয়া বয়স্ক ব্যক্তি, তাই তাকে ওষুধ নিয়েই চলতে হবে। এ জন্য এ গ্রাউন্ডে ওনার জামিন বিবেচনা করার সুযোগ নেই।

শুনানি শেষে আদালত আদেশের জন্য রোববার দিন ধার্য করেন।

২০ দলীয় জোটের অবরোধ চলাকালে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চৌদ্দগ্রামে বাসে দুষ্কৃতকারীদের ছোড়া পেট্রলবোমার ঘটনায় ২০১৫ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি পুলিশ বাদি হয়ে এ মামলা করে।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি বেগম খালেদা জিয়াকে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়। ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ জজ আদালত এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার পরপরই বেগম খালেদা জিয়াকে আদালত থেকে গ্রেফতার করে পুরান ঢাকার সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই তিনি বন্দী রয়েছেন।


আরো সংবাদ