film izle
esans aroma Umraniye evden eve nakliyat gebze evden eve nakliyat Ezhel Şarkıları indirEzhel mp3 indir, Ezhel albüm şarkı indir mobilhttps://guncelmp3indir.com Entrumpelung wien Installateur Notdienst Wien webtekno bodrum villa kiralama
২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

থার্টিফার্স্ট নাইটে উন্মুক্ত স্থানে অনুষ্ঠান নিষিদ্ধ বন্ধ থাকবে বার

-

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ইংরেজি নতুন বছরের প্রথম প্রহর উদযাপনে (থার্টিফার্স্ট নাইটে) ঢাকাসহ সারা দেশের কোথাও উন্মুক্ত স্থানে কোনো অনুষ্ঠান করা যাবে না। ওই দিন সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরদিন ১ জানুয়ারি সন্ধ্যা পর্যন্ত সারা দেশে সব বার বন্ধ থাকবে। সেই সাথে মাদকের বিরুদ্ধে ব্যাপক অভিযানও চলবে। রাত ৮টার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় বহিরাগতদের প্রবেশ নিষিদ্ধ থাকবে। একমাত্র ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টিকার থাকা গাড়িগুলো ভেতরে ঢুকতে পারবে।
গতকাল সচিবালয়ে আসন্ন বড়দিন ও থার্টিফার্স্ট নাইটের আইনশৃঙ্খলাসংক্রান্ত বৈঠক শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। বৈঠকে জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন, পুলিশ মহাপরিদর্শক ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, র্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোহা: শফিকুল ইসলাম, খ্রিষ্টানধর্মীয় নেতারাসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, বড়দিন ও থার্টিফার্স্ট নাইট উপলক্ষে ভুভুজেলা বাজানো, পটকা ফোটানো এবং আতশবাজি ফোটানো যাবে না। থার্টিফার্স্ট নাইট উপলক্ষে ৩০ ডিসেম্বর বিকেল ৪টা থেকে ১ জানুয়ারি সকাল ১০টা পর্যন্ত বৈধ আগ্নেয়াস্ত্রও বহন করা যাবে না। বড়দিন ও থার্টিফার্স্ট নাইটে নিরাপত্তার জন্য সরকার বিশেষ ব্যবস্থা নিয়েছে। দেশের প্রায় তিন হাজার ৫০০টি চার্চে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও তাদের নিজস্ব স্বেচ্ছাসেবকের সাথে সমন্বয় করে আইনশৃঙ্খলা নিশ্চিত করা হবে। কাকরাইল, মিরপুর, বনানীসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ চার্চে বিশেষ নিরাপত্তাব্যবস্থা নেয়া হবে। সিসি ক্যামেরাসহ বিশেষ প্রয়োজনে প্রবেশমুখে আর্চওয়ে, মেটাল ডিটেক্টরসহ অন্যান্য ব্যবস্থা থাকবে। তিনি বলেন, বড়দিন উপলক্ষে পুলিশের কন্ট্রোল রুম থাকবে। চার্চের একজন করে ফোকাল পয়েন্টে যেকোনো পরিস্থিতিতে পুলিশের সাথে যোগাযোগ রাখবে। ২৫ ডিসেম্বর বড়দিন ও থার্টিফার্স্ট নাইট খুব কাছাকাছি। খ্রিষ্টান ভাইয়েরা যাতে সুন্দরভাবে বড়দিন উদযাপন করতে পারেন এবং থার্টিফার্স্ট নাইটে যাতে কোনো ধরনের উচ্ছৃঙ্খলতা না হয় সে জন্য এই ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ২৪ ডিসেম্বর সন্ধ্যা থেকে ২৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হবে সব চার্চে। ২৫ ডিসেম্বর বড়দিন ও থার্টিফার্স্ট নাইট উপলক্ষে কূটনৈতিক এলাকায় বিশেষ নিরাপত্তার ব্যবস্থা থাকবে। থার্টিফার্স্ট নাইটে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, খ্রিষ্টীয় নববর্ষকে কেন্দ্র করে রাস্তায়, ফ্লাইওভার-ব্রিজে কনসার্ট, নাচ-গানের আয়োজন করা যাবে না।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা আশা করি বড়দিন ও থার্টিফার্স্ট নাইট সুন্দরভাবে হবে। সুশৃঙ্খল অবস্থায় থাকবে। বড়দিন ও থার্টিফার্স্ট নাইট নিয়ে কোনো ধরনের আশঙ্কা আছে কি নাÑ জানতে চাইলে তিনি বলেন, কোনো আশঙ্কা নেই, আমি আগেই বলেছি আমরা প্রতিটি বিশেষ দিনে কিংবা জাতীয় দিবসে ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আগে সভা করে থাকি। যাতে সবাই নিরাপদে ও নির্বিঘেœ অনুষ্ঠান পালন করতে পারেন।


আরো সংবাদ




short haircuts for women