২১ জানুয়ারি ২০২০

খেজুরের কাঁচা রস পান না করার পরামর্শ আইইডিসিআরের

-

খেজুর রস পানের উৎসব শুরু হয়েছে। খেজুর রস উৎপাদনকারী অঞ্চলগুলোতে প্রচুর রস সংগ্রহ করা হচ্ছে। দেশের বিভিন্ন মিডিয়ায় এ বিষয়ে খবর প্রকাশিত হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা: মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা সবার দৃষ্টি আকর্ষণের উদ্দেশে কিছু পরামর্শ দিয়েছেন।
গতকাল রোববার তিনি বলেন, খেজুরের কাঁচা রস পানে নিপাহ ভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কা থাকে। নিপাহ একটি ভাইরাসজনিত মারাত্মক রোগ যা বাদুড় থেকে মানুষে সংক্রমিত হয়। বাদুড় খেজুর রসের হাঁড়িতে বসে রস পান করে। এমনকি সেখানে প্রস্রাব করে দিয়ে যায়। বাদুড়ের মুখের লালায় এবং প্র¯্রাবে নিপাহ ভাইরাস থাকতে পারে। নিপাহ ভাইরাসে কেউ আক্রান্ত হলে প্রচণ্ড জ্বরসহ মাথাব্যথা, খিঁচুনি, প্রলাপ বকা, অজ্ঞান হওয়াসহ কোনো কোনো ক্ষেত্রে মারাত্মক শ্বাসকষ্ট হয়ে থাকে।
অধ্যাপক সেব্রিনা ফ্লোরা আরো বলেন, আমরা মনে করিয়ে দিতে চাই যে, নিপাহ একটি মারাত্মক রোগ সৃষ্টিকারী ভাইরাস। এই ভাইরাসের কোনো চিকিৎসা নেই। ২০০১ সাল থেকে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ এই রোগে মৃত্যু হার ৭০ শতাংশ।
তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেন, খেজুরের কাঁচা রস পান করবেন না। কোন ধরনের বাদুড়ে খাওয়া আংশিক ফলও খাবেন না। নিপাহতে আক্রান্ত রোগীর সংস্পর্শে আসার পর সাবান ও পানি দিয়ে হাত ধুয়ে ফেলতে হবে।
বাংলদেশে সাধারণত শীতকালে নিপাহ সংক্রমণ দেখা যায়। এই সময়ে খেজুরের রস পানে বিরত থাকুন। এই বিষয়ে দেশের সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোর প্রতি আইইডিসিআর আহবান জানাচ্ছে দয়া করে খেজুরের রস সংক্রান্ত উৎসবসহ যেকোনো আয়োজন থেকে বিরত থাকুন।


আরো সংবাদ