০৮ ডিসেম্বর ২০১৯

চলন্ত বাসের ধাক্কায় নারীর মৃত্যু

-

খুব সকালে বাবার মিরপুরের বাসা থেকে কর্মস্থল শান্তিনগরের উদ্দেশ্যে রওনা হন কানিজ ফাতেমা রুমা (৩০)। সেখানে কোয়ান্টাম ব্লাড ব্যাংকের ল্যাবে চাকরি করতেন তিনি। এর আগে স্বামীর দনিয়ার বাসা থেকে বাবার বাসায় গিয়েছিলেন। কথা ছিল কাল অফিস শেষ করেই স্বামীর বাসায় ফিরবেন। কিন্তু সেটা আর সম্ভব হয়নি। তার আগেই চলন্ত বাস থেকে নামিয়ে দেয়ার সময় বাসের চাকার নিচে পড়ে মর্মান্তিক মৃত্যু হয় তার। ঘটনাটি ঘটে গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৯টায় শান্তিনগর মোড়ের পাশে। পুলিশ আল মক্কা পরিবহন নামক বাসটি জব্দ করলেও তার চালককে ধরতে পারেনি।
জানা গেছে, কানিজ ফাতেমা রুমা শিক্ষক স্বামী শফিকুল ইসলামের সাথে কদমতলী দক্ষিণ দনিয়ার একটি বাসায় বসবাস করতেন। তার বাবা আবুল ইসলামের বাসা মিরপুরে। সম্প্রতি একটি জরুরি কাজে তিনি বাবার বাসাতে যান। গতকাল ভোরে সেখান থেকেই আল মক্কা পরিবহনের ওই বাসে করে শান্তিনগরের অফিসের উদ্দেশে রওনা হন। স্বামীকে ফোনে জানান, অফিস করে তিনি বাসায় ফিরবেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল সকাল ৯টায় শান্তিনগর মোড়ে আল মক্কা পরিবহনের একটি বাস এসে স্লো করে। এ সময় বাসের ভেতর থেকে কয়েকজন পুরুষ যাত্রী নেমে যান। কিন্তু একজন নারী নামার জন্য বাসটি সম্পূর্ণ থামাতে বলেন। ওই সময় হেলপার তাকে চলন্ত অবস্থায় নামার জন্য তাগিদ দিতে থাকে। কিন্তুতিনি বাসটি থামানোর জন্য কয়েকবারই অনুরোধ করেন। একপর্যায়ে চালক বাসটি থামালেও ওই নারী নিচে নামার আগেই পুনরায় দ্রুতগতিতে টান দেয়। তখনো নারী যাত্রীর এক পা বাসেই ছিল। এ সময় বাস দ্রুত গতিতে টান দেয়ায় ধাক্কা সামলাতে পারেননি তিনি। হুমড়ি খেয়ে পড়ে বাসের নিচে চলে যান তিনি।
তখন বাসটি না থামিয়ে উল্টো দ্রুতগতিতে চালিয়ে পালানোর চেষ্টা করে চালক। এতে বাসের চাকা ফাতেমার কোমরের ওপর দিয়ে উঠে যাওয়ায় গুরুতর আহত হন। এ দিকে কিছুদূর গেলেই বাসের যাত্রীরা বাসটি থামানোর জন্য চালককে চাপ দেয়। এ সময় চালক বাস থামিয়ে দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে বাসের যাত্রী ও পথচারীরা আশঙ্কাজনক অবস্থা রুমাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে তাকে আইসিইউতে রেখে চিকিৎসা দেয়া হলেও কয়েকঘণ্টা পরই তার মৃত্যু হয়।
পুলিশ জানায়, ঘটনার পর বাসটি আটক করা গেলেও চালক পালিয়ে যায়। তবে তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 


আরো সংবাদ




Paykwik Paykasa
Paykwik