২২ জুলাই ২০১৯

বুড়িগঙ্গায় উচ্ছেদ অভিযানে হামলা : ম্যাজিস্ট্রেটসহ আহত ৫

বুড়িগঙ্গায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান :নয়া দিগন্ত -

বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে শ্মশানঘাট এলাকায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান চলার সময় হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে অভিযানের নেতৃত্বে থাকা বিআইডব্লিউটিএ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ পাঁচজন আহত হয়েছেন। হামলার ঘটনায় পুুলিশ তিনজনকে আটক করেছে। পরে অন্য একজন ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে প্রায় ঘণ্টাখানেক পর উচ্ছেদ অভিযান পুনরায় শুরু হয়। গতকাল সকালে ধারাবাহিকভাবে উচ্ছেদ ও নদীর জায়গা উদ্ধার অভিযানে নামে বিআইডব্লিউটিএ।
ঢাকা নদী বন্দরের যুগ্ম পরিচালক এ কে এম আরিফ উদ্দিন জানান, অভিযান চলাকালে বেলা ১১টার দিকে শ্মশানঘাটের ইজারাদার ইব্রাহিম আহমেদ রিপন উচ্ছেদ কার্যক্রমে বাধা দেন। একপর্যায়ে রিপন তার দলবল নিয়ে অভিযান পরিচালনাকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ অন্য কর্মকর্তাদের ওপর হামলা চালায়। এতে ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাফিজুর রহমানসহ পাঁচজন আহত হন। উপস্থিত পুলিশ সদস্যরা হামলাকারীদের ঠেকাতে ব্যর্থ হলে অতিরিক্ত পুলিশ ডাকা হয়। পরে তারা এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আটক করা হয় ইজারাদার ইব্রাহিমের ছোট ভাই বাপ্পীসহ তিনজনকে। তবে পালিয়ে যান ইজারাদার ইব্রাহিম। তাকে আটক করা হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশ।
হামলার ঘটনায় প্রায় ঘণ্টাখানেক উচ্ছেদ অভিযান বন্ধ থাকে। পরে বিআইডব্লিউটিএ’র অপর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাবিবুর রহমান হাকিম ঘটনাস্থলে এলে তার নেতৃত্বে পুরনায় অভিযান শুরু হয়।
ঢাকা নদী বন্দরের উপ-পরিচালক মিজানুর রহমান জানান, উচ্ছেদ অভিযানে বাধা ও হামলার অভিযোগে শ্মশানঘাটের ইজারাদার রিপনের ছোট ভাই বাপ্পীসহ আটক তিনজনের প্রত্যেককে তিন মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। বিআইডব্লিউটিএ’র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাবিবুর রহমান হাকিম ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তাদের এ সাজা দেন। তিনি আরো জানান, বৃহস্পতিবার বুড়িগঙ্গার উত্তরপাড়ে পোস্তগোলা শ্মশানঘাট থেকে শ্যামপুর লঞ্চঘাট পর্যন্ত উচ্ছেদ অভিযান চালিয়ে ৯০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে দোতলা ভবন ১টি, একতলা ভবন ১৫টি, আধাপাকা ভবন ৪৫টি ও টিনের ঘর ২৯টি।


আরো সংবাদ

gebze evden eve nakliyat instagram takipçi hilesi