২৪ জানুয়ারি ২০১৯

সংরতি নারী আসনে এমপি হতে তৎপর শোবিজ তারকারা

-

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের পে প্রচারণায় মাঠে সরব ছিলেন শোবিজ তারকারা। নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ বিজয়ের পর এবার সংরতি নারী আসনে এমপি হতে তৎপরতা শুরু করেছেন তাদের অনেকেই।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নতুন মেয়াদে সংরতি নারী আসনে এমপি হতে যারা তৎপর রয়েছেন তাদের মধ্যে আছেন চিত্রনায়িকা কবরী, অঞ্জনা, নূতন, অভিনেত্রী সুবর্ণা মুস্তফা, রোকেয়া প্রাচী, শমী কায়সার, অরুণা বিশ^াস, ফাল্গুনি হামিদ, জ্যোতিকা জ্যোতি, অপু বিশ্বাস ও দিলারা ইয়াসমিন।
রোকেয়া প্রাচী বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক। গত নির্বাচনে ফেনী-৩ আসনে (দাগনভ‚ঞা-সোনাগাজী) আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী ছিলেন। শেষ পর্যন্ত মনোনয়ন পাননি। শমী কায়সারও কয়েক বছর ধরে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সক্রিয়। একাদশ সংসদ নির্বাচনে তিনিও রোকেয়া প্রাচীর সাথে একই আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চেয়েছিলেন কিন্তু পাননি। তবে সংরতি নারী আসনের মনোনয়নে এগিয়ে আছেন এই অভিনেত্রী।
আওয়ামী রাজনীতির সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত নায়িকা সারাহ বেগম কবরী। নারায়ণগঞ্জ-৪ আসন থেকে তিনি নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের টিকিটে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। পরবর্তী নির্বাচনে তিনি দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করেও পাননি। এবার তিনি সংরতি মহিলা আসনে সংসদ সদস্য হওয়ার আবেদন জানাবেন বলে জানা গেছে।
সুবর্ণা মুস্তফা বাংলাদেশের একজন স্বনামধন্য অভিনেত্রী। তিনি প্রখ্যাত অভিনেতা গোলাম মুস্তাফার মেয়ে। বাংলাদেশের নাট্যজগতে সুবর্ণা এক বিশেষ স্থান অধিকার করে আছেন। আশির দশকে তিনি ছিলেন দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় টিভি অভিনেত্রী। বিশেষ করে আফজাল হোসেন এবং হুমায়ুন ফরীদির সাথে তার জুটি ব্যাপক দর্শক সমাদৃত হয়। সুবর্ণা মঞ্চ এবং চলচ্চিত্রেও প্রচুর অভিনয় করেছেন।
অঞ্জনা আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সক্রিয় ভূমিকা পালন করছেন। তিনি বাংলাদেশ যুব মহিলা লীগের কেন্দ্রেীয় কমিটির সদস্য এবং আওয়ামী সাংস্কৃতিক লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য।
আরেক নায়িকা নূতনের পারিবারিক নাম ছিল রতœা। চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি অভিনেত্রী সুমিতা দেবী সেই পারিবারিক নাম পরিবর্তন করে তার নাম দেন নূতন। ১৯৬৯ সালে চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে তার। মোস্তফা মেহমুদের পরিচালনায় তার অভিনীত প্রথম ছবির নাম ছিল ‘নতুন প্রভাত’। দেশীয় চলচ্চিত্রের সোনালি যুগের এই নায়িকা অনেক ব্যবসা সফল ছবি উপহার দিয়েছেন। বলতে গেলে প্রথম ছবিতেই নূতন তার অভিনয় মেধার প্রমাণ দেন। এরপর থেকে আজ পর্যন্ত প্রায় তিন শতাধিক চলচ্চিত্রে তিনি অভিনয় করেছেন।
সংরতি আসনে এমপি হওয়ার আলোচনায় আছেন চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস। গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচনে তিনি সক্রিয় ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রচারণায়। অন্য দিকে ছাত্রজীবন থেকেই আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সক্রিয় আছেন অভিনেত্রী জ্যোতিকা জ্যোতি। একাদশ সংসদ নির্বাচনে ময়মনসিংহ-৩ আসন থেকে নির্বাচনের ইচ্ছা ব্যক্ত করলে আলোচনায় আসে তার নাম। শেষ পর্যন্ত সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন তিনি। এখন তিনি সংরতি নারী আসনে মনোনয়ন চাইবেন বলে জানা গেছে।
অরুণা বিশ্বাস টেলিভিশন, মঞ্চ এবং চলচ্চিত্র অভিনেত্রী ও টেলিভিশন নাটকের একজন পরিচালক। তিনি অমলেন্দু বিশ্বাস এবং জ্যোৎস্না বিশ্বাসের মেয়ে। ২০০৬ সালের হিসেবে, ৪০টির বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি। কানাডায় থাকার ছয় বছর পর অরুণা বিশ্বাস বাংলাদেশে ফিরে আসেন। তিনি চ্যানেল আই এর জন্য তার প্রথম টিভি ধারাবাহিক ওনোরোকোমার লোজজা পরিচালনা করেন। তিনিও আওয়ামী লীগের কোটায় সংরক্ষিত নারী আসনে এমপি হতে চান।
নানা পরিচয়ের ফাল্গুনী হামিদকে সবাই চেনেন একজন অভিনেত্রী হিসেবে। সাতীরার কালিগঞ্জ থানার উত্তর শ্রীপুর গ্রামের নিখিল চন্দ্র রায় ও সুষমা রায় দম্পতির আদরের মেয়ে পদ্মই হচ্ছেন সবার প্রিয় অভিনেত্রী, নাট্যনির্দেশক ফাল্গুনী হামিদ। ১৯৭৮ সালে নাটকের দল ‘নাট্যচক্র’র সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত করেন। এখন পর্যন্ত শতাধিক টিভি নাটক লিখেছেন ও নির্দেশনা দিয়েছেন ফাল্গুনী হামিদ। তিনি চেষ্টা করছেন সংরক্ষিত নারী আসনে
এমপি হতে।
‘সওদাগর’ খ্যাত নায়িকা দিলারা। নায়িকা হিসেবে এ দেশের সিনেমা হলের পর্দা কাঁপিয়েছেন তিনি। গোপালগঞ্জে জন্ম নেয়া দিলারার পুরো নাম দিলারা ইয়াসমিন। তার ডাক নাম দোলন। পরিবারের অনেকেই এখনো দোলন নামেই ডাকে। চৌধুরীর নির্দেশনায় তিনি প্রথম ‘মুসলিম শাড়ি’র বিজ্ঞাপনে মডেল হন। এই বিজ্ঞাপনে কাজ করার পরপরই আমজাদ হোসেনের নির্দেশনায় ‘সুন্দরী’ চলচ্চিত্রে প্রথম অভিনয় করেন। এফ কবির চৌধুরী পরিচালিত ‘সওদাগর’ চলচ্চিত্রে নায়িকা হিসেবে অভিনয় করে তিনি আলোচনায় আসেন। প্রায় একশ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন দিলারা। তিনিও তৎপর রয়েছেন এমপি হওয়ার জন্য।


আরো সংবাদ