১৪ নভেম্বর ২০১৮

বেকারত্ব নিরসনে ড. ইউনূসের পরামর্শ নিলেন ইতালির উপপ্রধানমন্ত্রী

-

ইতালির উপপ্রধানমন্ত্রী লুইজি ডি মাইও যিনি ইতালি সরকারের অর্থনৈতিক উন্নয়ন, শ্রম ও সামাজিক নীতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়েরও দায়িত্বপ্রাপ্ত, নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূসের সঙ্গে এক বৈঠক করেন। উল্লেখ্য যে, এ বছরের জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত ইতালির জাতীয় নির্বাচনে তার দল ফাইভ স্টার ইতালির আর সব পুরনো দলকে পরাজিত করে। পুরনো দলগুলোর নীতি বর্জনের উপর ভিত্তি করে ফাইভ স্টার তার প্লাটফর্ম গড়ে তোলে। প্রফেসর ইউনূসের অর্থনৈতিক নীতি-দর্শনকে দলটি তার প্রেরণা হিসেবে গ্রহণ করে। প্রফেসর ইউনূসের সাথে আলোচনাকালে ৩২ বছর বয়সী এই নেতা বলেন যে, তার প্রজন্ম প্রফেসর ইউনূসের কর্ম ও দর্শনে বিশেষভাবে উদ্বুদ্ধ। রোমে উপপ্রধানমন্ত্রীর সরকারি দফতরে ৯ সেপ্টেম্বর এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
উল্লেখ্য যে, এ বছরের জানুয়ারিতে ইতালির জাতীয় নির্বাচনের পর ইতালির প্রেসিডেন্ট, নবনির্বাচিত পার্লামেন্টের স্পিকার, রোমের মেয়র ও টোরিনোর মেয়র প্রফেসর ইউনূসের সঙ্গে বৈঠক করেন।
উপপ্রধানমন্ত্রীর সাথে প্রফেসর ইউনূসের আলোচনায় তরুণদেরকে উদ্যোক্তায় পরিণত করে যুব-বেকারত্ব সমস্যার সমাধানের উপর বিশেষভাবে আলোচনা হয়। তরুণদেরকে মূলধন সরবরাহ করতে জাতীয়পর্যায়ে একটি সোশ্যাল বিজনেস ভেঞ্চার ক্যাপিটাল ফান্ড গঠন নিয়েও তারা আলোচনা করেন। ডি মাইও বলেন যে, তিনি নাপলসের অধিবাসী যেখানে তরুণদের ৬০ শতাংশই বেকার। তিনি দুঃখের সাথে বলেন যে, ইতালির মত একটি ধনী দেশ তার নিজের তরুণদের কর্মসংস্থান করতে পারছে না।
প্রচলিত ব্যাংকিং ব্যবস্থার সেবা থেকে বঞ্চিত মানুষদের জন্য কিভাবে ক্ষুদ্রঋণের ব্যবস্থা করা যায় তা নিয়ে তাদের মধ্যে আলোচনা হয়। প্রফেসর ইউনূস দরিদ্রদের জন্য ব্যাংক তৈরির উদ্দেশ্যে পৃথক আইন প্রণয়নের উপর জোর দেন। ইতালীয় নেতা এ ধরনের আইন তৈরিতে প্রফেসর ইউনূসের সহায়তা চান। তারা সামাজিক ব্যবসা নিয়ে বিশদ আলোচনা করেন এবং ইতালির ব্যবসায়ী নেতাদের কিভাবে সামাজিক ব্যবসা তৈরি ও সামাজিক ব্যবসা তহবিল গঠনে আকৃষ্ট করা যায় এ বিষয়ে বিশেষভাবে কথা বলেন। বিজ্ঞপ্তি।


আরো সংবাদ