২৩ জুন ২০১৮

ইউরোপীয় কমিশনের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক ট্রেড ইউনিয়ন সংস্থার অভিযোগ দায়ের

বাংলাদেশে শ্রম অধিকার লঙ্ঘন
-

বাংলাদেশে শ্রম অধিকার রক্ষায় পদক্ষেপ না নেয়ায় ইউরোপীয় কমিশনের (ইসি) বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ এনেছে আন্তর্জাতিক ট্রেড ইউনিয়ন কনফেডারেশনসহ (আইটিইউসি) তিনটি প্রতিষ্ঠান। ইউরোপীয় ন্যায়পালের কাছে এ অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
গতকাল আইটিইউসির ওয়েবসাইটে দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, জিএসপির আওতায় বাংলাদেশের রফতানি পণ্য অগ্রাধিকারমূলক শুল্ক সুবিধা পায়। এই সুবিধা দিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) টেকসই উন্নয়নে স্বল্পোন্নত দেশগুলোকে উৎসাহিত করে। জিএসপি পাওয়া দেশগুলোকে শ্রমমানের ক্ষেত্রে নির্ধারিত মানদণ্ড রক্ষা এবং মানবাধিকারের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকতে হয়। বাংলাদেশের প্রধান বাণিজ্যিক অংশীদার ইইউ। তৈরী পোশাক বাংলাদেশের প্রধান রফতানি পণ্য, যে শিল্পে ৪০ লাখ শ্রমিক কাজ করছে।
এতে বলা হয়, বাংলাদেশে মৌলিক শ্রম অধিকারের গুরুতর ও পরিকল্পিত লঙ্ঘন হয়েছে। লাখ লাখ শ্রমিকের জন্য সেখানকার কর্মপরিবেশ অনিরাপদ। এ ছাড়া সমাবেশ ও সিবিএর অধিকার চর্চ্চার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের শ্রম আইন লক্ষণীয় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে রেখেছে। সরকার এ সব আইনি প্রতিবন্ধকতা দূর করতে কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। শ্রমিকদের অভিযোগ নিয়মিতভাবে অবজ্ঞা করছে কর্তৃপক্ষ। দরকষাকষির ক্ষমতা ও আইনি সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়ে শ্রমিকেরা চরম দরিদ্র জীবনযাপনে বাধ্য হচ্ছে।
বিবৃতিতে বলা হয়, শ্রম পরিস্থিতি উন্নত করতে বাংলাদেশের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ইউরোপীয় কমিশন। কিন্তু বাংলাদেশের জিএসপি সুবিধা নিয়ে আনুষ্ঠানিক কোনো তদন্ত তারা করেনি। অর্থনৈতিক উন্নয়ন থেকে শ্রমিকেরা যাতে বঞ্চিত না হয়, তা নিশ্চিত করার জন্য কমিশনের হাতে জিএসপি একটি শক্তিশালী অস্ত্র। কিন্তু তদন্ত শুরুর সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে স্বচ্ছ প্রক্রিয়া অনুসরণে কমিশন ব্যর্থ হয়েছে। এটি এনজিও এবং অন্য অংশীদারদেরও বিপাকে ফেলেছে।


আরো সংবাদ