১৮ নভেম্বর ২০১৯

নড়াইলে জাপার দু’গ্রুপের সংঘর্ষে হতাহত ৫

নড়াইল জেলা জাতীয় পার্টির (জাপা) বর্তমান সভাপতি ও সাবেক সভাপতির সমর্থকদের মধ্যে হামলা-পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে লোহাগড়া উপজেলার সিএন্ডবি চৌরাস্তায় (কুন্দসী) এ ঘটনা ঘটে।

এতে উভয়পক্ষের অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছে। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে জেলা জাপার সভাপতি অ্যাডভোকেট ফায়েকুজ্জামান ফিরোজ বলেন, লোহাগড়ার কুন্দসী এলাকায় কর্মীসভা করে ফেরার পথে দেখতে পাই; এনপিপির নেতাকর্মী ও সমর্থকেরা ওই এলাকার এক প্রান্তে জাপার প্রতিষ্ঠাতা সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের ছবি প্রদর্শন করে মিটিং করছে।

জেলা জাপার নেতৃবৃন্দ এ ব্যাপারে জানতে চাইলে এনপিপির নেতাকর্মীরা আমাদের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। এক পর্যায়ে দুইপক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া এবং হামলার ঘটনা ঘটে। এতে সদর উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি সাইদুজ্জামান ও জেলা যুব সংহতির সাধারণ সম্পাদক মুস্তাফিজুর রহমান মুক্ত আহত হন। তাদের লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আহত করা হয়েছে।

এদিকে জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বদরুল ইসলাম জানান, লোহাগড়া উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে কর্মীসভা চলাকালে জেলা জাপার একাংশের নেতাকর্মীরা তাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এ হামলায় আহত হয়েছেন-লোহাগড়া উপজেলা জাপার সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান চঞ্চল, কোটকোল ইউনিয়ন জাপার সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম ও লক্ষীপাশা ইউনিয়ন সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান।

এ ব্যাপারে জাপার কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও জেলা শাখার সাবেক সভাপতি শরীফ মুনির হোসেন বলেন, পুলিশের অনুমতি নিয়ে মঞ্চ করে লোহাগড়া উপজেলা জাপার কর্মীসভা চলাকালে ফায়েকুজ্জামান ফিরোজের নেতৃত্বে তার সমর্থকেরা প্রথমে মাইকের তার ছিড়ে ফেলে। পরে টেবিল ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। আমাদের সভাস্থলে উপস্থিত নেতাকর্মীরা এক পর্যায়ে তাদের প্রতিহত করে। আর আমাকে এনপিপির নেতা বলে অপপ্রচার করা হচ্ছে। আমি জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য।

এ ব্যাপারে কেন্দ্রীয় নেতাদের অবগত করা হয়েছে। এছাড়া কর্মীসভা থেকে জেলা কমিটি বাতিলের দাবি জানানো হয়েছে।


আরো সংবাদ