২৭ জুন ২০১৯

মহেশপুরে সজিব ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতি মায়ের মৃত্যু

মহেশপুরে সজিব ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতি মায়ের মৃত্যু - প্রতীকী ছবি

ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার ভৈরবা বাজারের সজিব প্রাইভেট হাসপাতাল এন্ড ক্লিনিকে ভুল অপারেশনে এক প্রসূতি মায়ের মৃত্যু হয়েছে। রোগীর স্বজনরা জানান, অদক্ষ নার্স ও হাতুড়ে ডাক্তার দিয়ে ভুল অপারেশনের কারণে রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

বাঁশবাড়ীয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক জানান, বৃহস্পতিবার রাতে ভৈরবার সজিব প্রাইভেট হাসপাতাল এন্ড ক্লিনিকে এক প্রসূতির মায়ের মৃত্যু হয়েছে। নিহত এই প্রসূতি মায়ের নাম মোসুমী খাতুন। ডেলিভারী করানোর সময় তার মৃত্যু হয় বলে জানা যায়।

সজীব প্রাইভেট হাসপাতাল এন্ড ক্লিনিকের মালিক সামাউল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সামন্তা গোপালপুর গ্রামের আল-আমিনের স্ত্রী মৌসুমী খাতুনকে সিজার আপারেশন করানোর জন্য আমার ক্লিনিকে নিয়ে আসে। এরপর তাকে ভর্তি করে একজন নার্সের মাধ্যমে নরমাল ডেলিভারী করানোর চেষ্টা করা হয়। তাতে ব্যর্থ হলে রাত ৮টার দিকে ডাঃ সোহেল রানা মৌসুমী খাতুনের সিজার অপারেশন করেন। রাত ৯টার দিকে মৌসুমী খাতুনের অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে যশোরে পাঠানো হয়। কিন্তু রাস্তার মধ্যেই মৌসুমী খাতুনের মৃত্যু হয়, তবে প্রসূতির সন্তান জীবিত আছে।

নিহত প্রসূতি মৌসুমী খাতুনের স্বজনরা জানান, ক্লিনিকে ভর্তি হওয়ার পর অবস্থা খারাপ হলে আমরা মৌসুমীকে যশোরে নিয়ে যেতে চাই। কিন্তু ক্লিনিক মালিক তাতে বাধা দিয়ে অদক্ষ এক মহিলা দিয়ে ডেলিভারী করানোর চেষ্টা করে। তারপর সোহেল নামক একজনকে দিয়ে সিজার অপরেশন করানো হয়। এতে প্রসূতির অবস্থা আরো খারাপ হলে ক্লিনিক মালিক তাড়াতাড়ি যশোর নিয়ে যেতে বলে। যশোর নেয়ার পথে রাস্তায় তার মৃত্যু হয়।

এদিকে যে ডাক্তার দিয়ে সিজার করানো হয়েছে সেই ডাক্তারের ফোন নাম্বার চাইলে ক্লিনিক মালিক সামাউল তা দেননি বলে জানান তারা।

মহেশপুর থানার ওসি রাশেদুল আলম জানান, আমি রোগী মৃত্যুর ঘটনাটি লোক মুখে শুনেছি। ডাক্তার সোহেলের কুকীর্তি সম্বন্ধে আমি মোড়েলগঞ্জ থানায় থাকা অবস্থায় অবগত। তার বাড়ি বাগেরহাট। সে নেশাগ্রস্থ অবস্থায় রোগী অপারেশন করে মর্মে তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ আসতো। প্রসূতির মৃত্যুতে থানায় এখনো কোনো অভিযোগ হয়নি।


আরো সংবাদ

নিউজিল্যান্ডকে উড়িয়ে দিলো পাকিস্তান বিশ্বকাপে বাবরের দারুণ সেঞ্চুরি দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে জয়ের আভাস দিচ্ছে পাকিস্তান বিন্দুমাত্র সুযোগ থাকলেও ভারতের বিপক্ষে নামবো : মাহমুদউল্লাহ নির্যাতন বন্ধে সরকারের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ বাবর-হাফিজের ব্যাটে ছুটছে পাকিস্তান ঝুলে গেল আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার নির্বাচন আগামী বছর ফের ভোট ব্যবসায়ী ভ্রমণ কোটার আওতায় এলেন এজেন্টরা ১০ হাজার ডলার ব্যয় করার অনুমোদন দিয়ে বৈদেশিক মুদ্রার নীতিমালা শিথিল দীর্ঘ মেয়াদে ওয়াশ খাতে ব্যয়ের প্রবণতা ক্রমেই কমছে ড. হোসেন জিল্লুর গতিহীন সাক্ষরতার হার বৃদ্ধির প্রকল্প ৫ বছরে অগ্রগতি ৩৬.২৭ শতাংশ; মূল কাজ শুরু করতেই তিন বছর পার সুলতানি আমলের স্মৃতিবিজড়িত বারো দুয়ারি মসজিদ অনন্য স্থাপত্য

সকল