১৭ নভেম্বর ২০১৮

কুষ্টিয়ার বিএনপি ও জামায়াতের ৫৮ নেতা-কর্মী আটক

-

কুষ্টিয়ার বিভিন্ন উপজেলায় সাড়াশি অভিযানে নেমে পুলিশ বিএনপি ও জামায়াতের ৫৮ জন নেতা-কর্মীকে আটক করেছে । পুলিশ আটককৃতদের নিকট থেকে ৩৩টি ককটেল,১১টি হাত বোমা ও ১০০গ্রাম বোমা তৈরীর বারুদ উদ্ধার করেছে বলে জানা যায়।
কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এস এম মেহেদী হাসান সাংবাদিকদের জানান, নাশকতার পরিকল্পনা ও প্রস্তুতি নেয়ার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদের এই বোমা ও বোমা তৈরীর সরঞ্জামসহ আটক করা হয়। এদিকে জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক সাবেক এমপি অধ্যক্ষ সোহরাবউদ্দিন জানান- আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে পুলিশের এই অগনতান্ত্রিক অভিযান। আমাদের নেতা-কর্মীরা যাতে কোন আন্দোলনে মাঠে নামতে না পারে সেজন্য তাদের আটক করছে।
তিনি অবিলম্বে আটক নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবী জানান এবং এই আটকের ঘটনায় নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন। অধ্যক্ষ সোহরাবউদ্দিন জানান-সরকার আরো একটি ১৫ ফেব্রুয়ারীর ভোটারবিহিন নির্বাচন করতে চাই। তারই নীল নকশাঁ হিসেবে এই গণ গ্রেফতার চালাচ্ছে। এদিকে পুলিশের একটি সুত্র জানায়- শুক্রবার রাত থেকে গতকাল শনিবার ভোর পর্যন্ত জেলাজুড়ে এ অভিযানকালে কুষ্টিয়া মডেল থানার পুলিশ ১২ জন, কুমারখালীতে ১১ জন, দৌলতপুরে ১৪ জন, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানায় ১১ জন, মিরপুরে ৪ জন, ভেড়ামারায় ৪ জন ও খোকসা থানার পুলিশ ২ জনকে আটক করে।
এর মধ্যে বিএনপি ও জামায়াতের কয়েকজন নেতাও রয়েছেন। তাঁদের মধ্যে কুমারখালীতে এক ইউনিয়ন জামায়াতের সভাপতিসহ ছয় শুরা সদস্য রয়েছেন। কুষ্টিয়া পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মহিউদ্দীন চৌধুরী মিলন রয়েছেন। পুলিশ সুত্রে জানা যায়- নাশকতার প্রস্তুতির অভিযোগে বিভিন্ন থানায় সাতটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এতে আসামি করা হয়েছে ১৪৩ জনকে। অজ্ঞাত আসামিও রয়েছে। আটক ব্যক্তিদের এসব মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।
কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী ঘৃনা ও ক্ষোভের সাথে জানান- আমরা বিভিন্ন সুত্রে জেনেছি জেলার ৭টি থানায় বিএনপির ৬০/৬৫জন নিরাপরাধ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে এই গ্রেফতার চালিয়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের দমিয়ে রাখা যাবে না। আগামী নির্বাচনে বিএনপির অগ্রযাত্রাকে ঠেকানোর লক্ষেই সরকারের এই ঘৃন্য অপপ্রয়াস। তিনি জানান, সাধারন জনগণকে সাথে নিয়ে বিএনপি আগামী নির্বাচনে জয়যুক্ত হতে চাই তাই অহেতুক নেতা-কর্মীদের আটক করে আমাদের দমানো যাবে না।’


আরো সংবাদ