২০ নভেম্বর ২০১৯

দাঁতের পলিপ

-

‘পলিপ’ নামের সাথে কমবেশি সবাই পরিচিত। আর তাই নামটি শুনলে দেহের নানারকম পলিপের কথাই মনে চলে আসে। দেহের নানা জায়গায় পলিপ হয়ে থাকে। সে ক্ষেত্রে আমাদের অতি মূল্যবান দাঁত কেন বাদ যাবে? হ্যাঁ, দাঁতেও পলিপ হয়। আমাদের দাঁতের মজ্জায় সে পলিপ হয় তাকে বলা হয় ‘পাল্প পলিপ’।

কোথায় হয় : বহু দিন যাবৎ ক্যারিজে আক্রান্ত দাঁতে এমনটি হয়। এ জাতীয় দাঁতের শিকড় বা রুটের পুরোপুরি গঠন থাকতে বা নাও থাকতে পারে।

কাদের হয় : বড়, ছোট, শিশু ক্ষেত্রবিশেষে প্রায় সবারই এটি হতে পারে। বড়দের স্থায়ী পেষণ দাঁতে বেশ হয়।  ছোটদের অস্থায়ী পেষণ দাঁতে হয়, ছোটরা বেশি আক্রান্ত হয়।

কেন হয় : দীর্ঘ দিন ধরে ক্যারিজে আক্রান্ত কোনো দাঁত যখন চিকিৎসাহীনতায় ভোগে, তখন ওই দাঁতের বেশির ভাগ অংশ ক্ষয়প্রাপ্ত হয়। এ সময় দাঁতের মজ্জায় অবস্থিত ওডোন্টব্লাস্ট নামক কোষ বেশি প্রাণবন্ত হয়। দাঁতের এ মজ্জায় রক্তসঞ্চালন বেশি থাকাতে তা জীবাণুদুষ্ট হয়ে গ্র্যানুলেশন টিস্যুতে পরিণত হয়। ধীরে ধীরে এর আয়তন আবার বাড়তে থাকে। তখন এটি দাঁতের মজ্জা থেকে দাঁতের বাইরের দিকে বেরিয়ে আসতে দেখা দেয়। পাল্প পলিপ স্ট্যাটিফাইড স্কোয়ামাস নামক কলা দ্বারা আবৃত থাকে। দাঁতের মাঝে এটি লাল ফুলের মতো দেখায় বিধায় এর ‘পাল্প পলিপ’ নামকরণ হয়েছে।

লক্ষণ : ‘পাল্প পলিপ’ দেখতে টকটকে লাল অথবা হালকা গোলাপি, নরম গোলাকার ফোলা মাংসপিণ্ডের মতো দেখায়। এর অবস্থান আক্রান্ত দাঁতের ঠিক মাঝখানে। সামান্য আঘাতে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। * সহজে টেনে তোলা যায় না।

চিকিৎসা : দাঁতে এমন পলিপ থাকলে দেরি না করে অভিজ্ঞ ডেন্টাল সার্জনের শরণাপন্ন হতে হবে। দাঁতের এ ধরনের সমস্যায় পলিপ নির্মূল করে স্বাভাবিক নিয়মে রুট ক্যানেল করে ক্যাপ করে দাঁতটি চোয়ালে ধরে রাখা সম্ভব। ফলে দাঁতটি তার স্বাভাবিক কর্মক্ষমতা পুনরায় ফিরে পাবে। দাঁতের সামান্যতম সমস্যাও কখনো অবহেলা করতে হয় না। অনেক সময় পানি পলিপ থাকলেও দাঁত রক্ষা করা যায় না। তাই অবহেলা না করে দাঁতের প্রতি যতœবান হোন।

লেখিকা : ডাইরেক্টর ও  ডেন্টাল সার্জন, নাহিদ ডেন্টাল কেয়ার, ১১৭/১, এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা। 

ফোন : ০১৭১২-২৮৫৩৭২।

 


আরো সংবাদ