১৯ নভেম্বর ২০১৮

স্বা স্থ্য ক র্না র

-

বিষণœতা থেকে ডায়াবেটিস

সাম্প্রতিক গবেষণায় জানা গেছে যে, বিষণœতা ডায়াবেটিস রোগের ঝুঁকি দ্বিগুণ বাড়িয়ে তোলে। ডায়াবেটিসে ভুগছেন এমন ১০ শতাংশ পুরুষ ও ২০ শতাংশ মহিলা বিষণœতায় আক্রান্ত। বিষণœতার রোগীরা টাইপ-২ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হন। বিষণœতা থেকে ডায়াবেটিস কেন হয় এর কারণ খুঁজতে গিয়ে দেখা গেছে যে, এসব রোগী শারীরিক পরিশ্রম করেন না বললেই চলে। তা ছাড়া বিষণœতা থেকে অনেক সময় বেশি খাওয়ার অভ্যাস হয়ে যায় ও এতে ওজন বেড়ে যায়। বিষণœতায় কিছু হরমোন নিঃসৃত হয়, যা কি না ইনসুলিনের কার্যকারিতা কমিয়ে দেয়। সুতরাং আজকাল ডায়াবেটিক রোগীরা বিষণœতায় ভুগছেন কি না তা লক্ষ রাখতে হবে। আর বিষণœতায় ভুগছেন যারা তাদের যথাযথ চিকিৎসার মাধ্যমে ডায়াবেটিকের হাত থেকে বাঁচাতে হবে।

আপনার শিশুর জন্য জিংক

শিশুদের জন্য জিংক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি উপাদান। সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে যে, জিংক সাপলিমেন্ট যে সব শিশু পেয়েছে তাদের মধ্যে শিশু মৃত্যুর হার কম। পাঁচ বছরের নিচের শিশুদের জন্য প্রয়োজনীয় জিংক শিশুদের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এ ছাড়া ডায়রিয়া ও শ্বাসতন্ত্রের সংক্রামক রোগ, নিমোনিয়া এসব রোগ প্রতিরোধ ও প্রতিকারে জিংকের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। কম ওজনের শিশুদের জন্যও জিংক প্রয়োজন। জিংক শিশুদের ক্ষুধা বৃদ্ধি করে এবং ক্ষত সারাতে সাহায্য করে। জিংকের অভাবে শিশুদের এক্সোডার্মাটাইটিস হতে পারে। এতে শিশুর ঠোঁটে, জিভে লালচে ঘা হতে পারে। পায়ুপথেও ক্ষত সৃষ্টি হয় এবং ডায়রিয়া হয়। প্রতিদিন আধা চামচ দিনে দুইবার জিংক সিরাপ শিশুর জন্য প্রয়োজন। শিশুর সুস্বাস্থ্য ও শিশু মৃত্যুর হার কমাতে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী শিশুকে জিংক সাপলিমেন্ট দিন।
ষ অধ্যাপিকা ডা: ওয়ানাইজা রহমান

 


আরো সংবাদ