০৭ ডিসেম্বর ২০১৯

মেসিকে আটকাতে বিশেষ পরিকল্পনা এঁটেছে ব্রাজিল

-

প্রীতি ম্যাচে আগামী শুক্রবার লাতিন আমেরিকার দুই শক্তিশালী ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা একে অপরের মুখোমুখি হচ্ছে। সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদের কিং সাউদ ইউনিভার্সিটি স্টেডিয়ামে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যেই এই ম্যাচ ঘিরে তুমুল উন্মাদনা তৈরি হয়েছে।

মেসিকে নিয়ে বিশেষ পরিকল্পনার কথা জানালেন ব্রাজিলের মিডিও উইলিয়ান। তিনি মঙ্গলবার বলেছেন, ‘মেসিকে নিষ্প্রভ করে রাখাই হবে আমাদের প্রথম লক্ষ্য। ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার মধ্যে প্রীতি ম্যাচেরও আলাদা তাৎপর্য থাকে। কোনো দলই হারতে চায় না। তাই সৌদি আরবে আয়োজিত এই ম্যাচে জয়ের জন্য মেসিকে থামানো প্রয়োজন। ওর জন্য বিশেষ কোনো এক বা দু’জনকে নিয়োগ করা সম্ভব নয়। কারণ, ফাঁকা জায়গা পেলে ব্যক্তিগত নৈপুণ্যে ও সেই চ্যালেঞ্জ সহজেই টপকে যাবে। তাই জোনাল কভারিংয়েই আটকাতে হবে মেসিকে। সামান্য জায়গা দেয়া চলবে না।’

এদিকে তিন মাস নির্বাসন কাটিয়ে আর্জেন্টাইন মহাতারকা মেসি দলে ফেরায় কিছুটা স্বস্তি ফিরেছে কোচ লায়োনেল স্কালোনির। তবে ব্রাজিলের সুপারস্টার নেইমার নেই দলে। তার অনুপস্থিতিতে ব্রাজিলকে নির্ভর করতে হবে গ্যাব্রিয়েল হেসাস এবং রবার্তো ফারমিনোর উপরে। চোটের জন্য আর্জেন্টিনার ডিফেন্ডার মার্কোস রোহো না থাকায় এই দুই স্ট্রাইকার বাড়তি সুবিধা পাবেন বলে ধারণা বিশেষজ্ঞদের।

গত জুলাইয়ে কোপা আমেরিকার সেমি-ফাইনালে ব্রাজিলের কাছে ২-০ গোলে হেরেছিল আর্জেন্টিনা। বিজয়ী দলের হয়ে লক্ষ্যভেদ করেছিলেন গ্যাব্রিয়েল হেসাস ও রবার্তো ফারমিনো। তবে সেই হার এখন নিছকই অতীত বলে মনে করছেন স্কালোনি। তার মন্তব্য, ‘ব্রাজিলের কাছে হারের পর টানা পাঁচটি ম্যাচে আমরা অপরাজিত। জার্মানির মতো শক্তিশালী দলের বিরুদ্ধে দু’গোলে পিছিয়ে পড়েও সমতা ফিরিয়েছে আর্জেন্টিনা। তাই মানসিকভাবে ছেলেরা এখন ভালো জায়গায় রয়েছে।’

মেসির প্রত্যাবর্তন নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘ওকে নিয়ে নতুন কিছু বলার মতো শব্দ আমার অভিধানে নেই। মেসির অন্তর্ভুক্তি বাকিদের আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর জন্য যথেষ্ট। তবে ব্রাজিল অবশ্যই শক্তিশালী দল। চোটের জন্য নেইমার খেলতে না পারলেও ওদের আপফ্রন্টে যথেষ্ট গভীরতা রয়েছে।’

শুক্রবারের ম্যাচে জয়ের জন্য আক্রমণাত্মক ফুটবলই খেলবে ব্রাজিল। অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার থিয়াগো সিলভার মন্তব্য, ‘আমরা স্বাভাবিক খেলাই মেলে ধরার চেষ্টা করব। জানি, মেসির এই ম্যাচে খেলার সম্ভাবনা প্রবল। কিন্তু তা নিয়ে আমরা চিন্তিত নই। ওর বিরুদ্ধে অতীতে প্রচুর ম্যাচ খেলেছি। সেই অভিজ্ঞতাই শুক্রবার কাজে লাগবে। মেসির মতো প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে খেলা অবশ্যই গর্বের। তবে নেইমারকে পেলে আমাদের দলের শক্তি অবশ্যই বাড়ত। এই ম্যাচ সবসময়ে ফিফটি-ফিফটি। গোলের সুযোগ যে দল কাজে লাগাতে পারবে তারাই জিতবে।’

কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর অবশ্য কাঙ্ক্ষিত ছন্দে নেই ব্রাজিল। টানা চারটি ম্যাচে জয় অধরা তাদের। তা সত্ত্বেও আর্জেন্টিনার বিরুদ্ধে উপভোগ্য খেলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন কোচ তিতে।

দিন কয়েক আগে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, ‘আগে কী হয়েছে তা ভুলে যাওয়াই ভালো। গত কয়েকটি ম্যাচে আমরা প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ হয়েছি বলে আর্জেন্টিনার বিরুদ্ধে জিততে পারব না, এমনটা ভাবা উচিত নয়। ফুটবলাররা জানে, কীভাবে ঘুরে দাঁড়াতে হয়।’


আরো সংবাদ




Paykwik Paykasa
Paykwik