১৬ অক্টোবর ২০১৯

তিন বিদেশী জেতালেন বসুন্ধরাকে

আগের ম্যাচে সবচেয়ে বড় বাধা আবাহনীকে টপকানো। ফলে এখন তাদের সামনে ছোট ও মাঝারি দল সমস্যা হয়ে দাঁড়ানোর কথা নয়। সেটাই প্রমাণ করতে যাচ্ছে শীর্ষে থাকা বসুন্ধরা কিংস। বৃহস্পতিবার তারা অ্যাওয়ে ম্যাচে ৩-১ গোলে হারিয়েছে পয়েন্ট টেবিলের নীচের দিকে থাকা নোফেল স্পোর্টিং ক্লাবকে। নোয়াখালীর শহীদ ভুলু স্টেডিয়ামে এই জয় পয়েন্ট টেবিলে ৪৩ জমা করেছে তাদের নামের পাশে। শীর্ষস্থানতো আগে থেকেই।

প্রথমার্ধের শেষ দিকে দুই গোলে এগিয়ে যায় বসুন্ধরা কিংস। ৪১ মিনিটে তাদের লিড কোস্টারিকার বিশ্বকাপ ফুটবলার ড্যানিয়েল কলিনড্রেসের গোলে। ৪৪ মিনিটে কিরগিজস্তানের ফুটবলার বখতিয়ার ব্যবধান দ্বিগুন করেন। ৫৩ মিনিটে নোফেল ব্যবধান কমায় গিনির ইসমাইল বাঙ্গুরার পেনাল্টি থেকে। এরপর স্বাগতিকদের ম্যাচে ফেরার লড়াইয়ে ইতি ঘটান ব্রাজিলিয়ান মার্কোস ভিনিসিয়াস। ৭৪ মিনিটে তার গোলে শিরোপার পথে আরেকটু এগিয়ে যাওয়া বসুন্ধরা কিংসের। প্রথম পর্বে নোফেলকে ২-০তে হারিয়েছিল তারা।

হারের ফলে ১৪ খেলায় নয় পয়েন্ট নিয়ে রেলিগেশন শংকায় থেকেই গেল নোফেল। তাদের পেছনে এখন ব্রাদার্স ( ৯) এবং বিজেএমসি ( ৫)।

আবাহনীর সহজ জয়
বসুন্ধরা কিংসের কাছে আগের ম্যাচে হারের ফলে আবাহনীর এখন একটাই কাজ, প্রতিদ্বন্দ্বী দলটির অমঙ্গল কামনা করা এবং নিজেদের কাজ করে রাখা। এদিন অবশ্য পয়েন্ট হারায়নি শীর্ষে থাকা দলটি। তবে আবাহনী নিজেদের কাজ করে রেখেছে ফের জয় পেয়ে। বৃহস্পতিবার গোপালগঞ্জের শেখ মনি স্টেডিয়ামে আবাহনী ৪-১ গোলে হারিয়েছে মুক্তিযোদ্ধাকে। এই তিন পয়েন্ট তাদের এখনও রেখেছে শিরোপার রেসে। ১৫ খেলা শেষে পয়েন্ট ৩৬। আর মুক্তিযোদ্ধার পয়েন্টে ১৬।

এদিন ১৪ মিনিটে মুক্তিযোদ্ধার লিড আইভোরিকোস্টের বাল্লো ফামোসার গোলে। অবশ্য তাদের এই আনন্দ বেশীক্ষণ স্থায়ী হয়নি। ২৭ মিনিটে হাইতির বেলফোর্ড খেলায় ফেরান আবাহনীকে। এরপর এগিয়ে চলা লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের। ৩০ মিনিটে স্ট্রাইকার নাবিব নেওয়াজ জীবন লিড এনে দেন আকাশী নীল শিবিরকে। ৬৪ মিনিটে মামুনুলের গোলে ব্যবধার বৃদ্ধির পর ৭৪ মিনিটে নাইজেরিয়ান সানডের গোলে জয় নিশ্চিত আবাহনীর। প্রথম পর্বে আবাহনী ২-০তে জিতেছিল।


আরো সংবাদ




astropay bozdurmak istiyorum