১৫ নভেম্বর ২০১৮

৬ উইকেট হারিয়ে বিপাকে ভারত

৬ উইকেট হারিয়ে বিপাকে ভারত - ছবি : সংগৃহীত

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৫ম ও শেষ টেস্টে বিপদে পড়ে গেছে ভারত। সম্ভাবনা ছিল স্বাগতিক ইংল্যান্ডকে বিপাকে ফেলবে। কিন্তু না। নিজেরাই এখন কোণঠাসা হয়ে পড়েছে। দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে ভারতে সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১৭৪ রান। ইংল্যান্ডের চেয়ে এখনো ১৫৮ রানে পিছিয়ে রয়েছে।

প্রথম দিনের তৃতীয় সেশনে বুমরা, ঈশান্তদের ঝোড়ো স্পেল ভারতকে ফিরিয়ে এনেছিল ম্যাচে। শনিবার সাত উইকেটে ১৯৮ রান নিয়ে খেলা শুরু করে ইংল্যান্ড। দ্বিতীয় দিন কোহলিদের প্রাথমিক লক্ষ্য ছিল শুরুতেই ইংরেজদের বাকি তিন উইকেট তুলে নেয়া। কিন্তু কোহলিদের সেই লক্ষ্যে বড়সড় আঘাত হানেন ইংল্যান্ডের উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান জোস বাটলার। তাঁর দুরন্ত ৮৯ রানের ইনিংস দ্বিতীয় দিনের শুরুতে ফের চাপে ফেলে দেয় কোহলি ব্রিগেডকে। স্টুয়ার্ট ব্রডকে সঙ্গী করে বাটলারের ৯৮ রানের পার্টনারশিপ ইংল্যান্ডকে পৌঁছে দেয় ৩৩২ রানে।

জবাবে দ্বিতীয় দিনের শেষে ১৭৪ রানে ছয় উইকেট হারিয়ে ধুঁকছে ভারত। ফের ব্যর্থ শিখর ধাওয়ান। ইনিংসের শুরুতেই বাঁ হাতি এই ওপেনারের উইকেট খুঁইয়ে চাপে পড়ে যায় ভারত। প্রাথমিক ধাক্কা সামলে ব্রড, অ্যান্ডারসনদের বিরুদ্ধে পাল্টা আক্রমণের লড়াইয়ে যান লোকেশ রাহুল এবং চেতেশ্বর পূজারা। চা-পানের বিরতি অবধি নির্ভরতা জোগাতে থাকে এই জুটি। এক উইকেটে ৫৩ রান নিয়ে চা-পানের বিরতিতে যায় ভারত।

দিনের তৃতীয় সেশনে এসে বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি রাহুল-পূজারার জুটি। দলীয় ৭০ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৩৭ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন লোকেশ রাহুল। অধিনায়ক কোহলিকে ঘিরে ফের আশায় বুক বাঁধতে থাকেন ওভালে উপস্থিত ভারতীয় সমর্থকেরা। কোহলি ক্রিজে কিছুটা ধাতস্থ হতেই সাঝঘরে ফিরে যান ‘ডিপেন্ডবল’ পূজারা। তিনিও ফেরেন ৩৭ রানে। এরপর শূন্য রানে আউট হন রাহানে।

১০৩ রানে চার উইকেট হারিয়ে কাঁপতে থাকা দলের ব্যাটিংয়ের হাল ধরেন অধিনায়ক ও অভিষেককারী হনুমা বিহারী। ইংল্যান্ড পেসারদের দাপুটে বোলিংয়ের সামনে কোহলিকে যোগ্য সহায়তা করেন নবাগত বিহারী। অর্ধশতরান থেকে মাত্র এক কদম দূরে থেমে যায় ভারত অধিনায়কের ইনিংস। কোহলি-বিহারীর মূল্যবান ৫১ রানের পার্টনারশিপ দেড়শোর গন্ডি পেরোতে সাহায্য করে ভারতকে। কোহলি ফিরতেই যথারীতি চাপে পড়ে যায় ভারত। ভারতের টপ-অর্ডার ব্যাটসম্যানদের ফিরিয়ে দিয়ে ম্যাচে জাঁকিয়ে বসে ইংল্যান্ড। মাত্র ৫ রানে ফেরেন পন্ত।

গত টেস্টের মতো মঈন আলি জুজু তাড়া না করলেও ইংরেজ পেসারদের সামলাতে গিয়েই নাস্তানাবুদ হলেন ধাওয়ান, রাহানেরা। কোহলি কিংবা রাহুল চেষ্টা করলেও ইংল্যান্ডের রানে থাবা বসানো টেল এন্ডারদের পক্ষে কতটা সম্ভব, তা নিয়ে প্রশ্নচিহ্ন থাকছেই। কারণ সিরিজজুড়ে টেল এন্ডারদের পারফরম্যান্স তথৈবচ। দ্বিতীয় দিনের শেষে ভারত পিছিয়ে এখনো ১৫৮ রানে। ক্রিজে রয়েছেন হনুমা বিহারী (২৫) এবং রবীন্দ্র জাদেজা (৮)।

তৃতীয় দিন বিরাট কোন অঘটন না ঘটলে প্রথম ইনিংসে ইংল্যান্ডকে পেরিয়ে যাওয়া কোহলিদের পক্ষে একপ্রকার অসম্ভব। এখন দেখার কত রানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসের ব্যাট ধরেন রুটরা। তবে দ্বিতীয় দিনের শেষে খেলার সামগ্রিক চিত্র দেখে একপ্রকার পরিষ্কার বড়সড় পটপরিবর্তন না ঘটাতে পারলে সিরিজে আরো একটা হারের সাক্ষী থাকতে হবে কোহলির ভারতকে।

আরো পড়ুন :

অধিনায়কত্ব হারালেন কোহলি
ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ফ্র্যাঞ্চাইজি রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর অধিনায়কত্ব হারালেন বিরাট কোহলি। তার পরিবর্তে আইপিএলের পরবর্তী আসরে দলকে নেতৃত্ব দিবেন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স।

২০১৩ সালে ব্যাঙ্গালুরুর অধিনায়কত্ব পান কোহলি। এরপর দলকে ছয় আসরে নেতৃত্ব দেন তিনি। কিন্তু কোন আসরেই ব্যাঙ্গালুরুকে শিরোপা এনে দিতে পারেননি কোহলি। যে কারণে আইপিএলের ১২তম আসরের আগে কোহলিকে অধিনায়কত্বের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দিলো ব্যাঙ্গালুরু কর্তৃপক্ষ।
কিছুদিন আগে নিউজিল্যান্ডের ড্যানিয়েল ভেট্টোরিকেও দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয় ব্যাঙ্গালুরু। ২০১৩ সালে কোহলির সাথেই জুটি বেঁধেছিলেন ভেট্টোরি। কিন্তু গেল ছয় বছরে দলকে বড় কোন সাফল্য এনে দিতে পারেননি কোহলি-ভেট্টোরি জুটি।

তাই আগামী আসরের জন্য নতুনভাবে দল গোছানোর প্রক্রিয়া শুরু করেছে ব্যাঙ্গালুরু কর্তৃপক্ষ।


আরো সংবাদ