২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

সাফে গ্রুপ পর্ব পার হওয়াই কঠিন : কোচ

প্রাকটিসে বাংলাদেশ দলের ফুটবলাররা - ছবি : সংগ্রহ

ঘরের মাঠে সাফ ফুটবল, তবু আত্মবিশ্বাস তলানীতে বাংলাদেশ দলের। কারণ একটাই, সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স। কোচ জেমি ডে বলছেন, গ্রুপ পর্ব পার হওয়া সহজ হবে না তার দলের। শিরোপা পুনরোদ্ধারের স্বপ্ন দেখা তাই কঠিন। আগামী ৪ সেপ্টেম্বর থেকে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে শুরু হবে সাফ ফুটবলের আসর।

সাফ ফুটবলে বাংলাদেশ দল ঘোষণা করা হয়েছে শনিবার। রোববার সকালে দল নিয়ে অনুশীলন শেষে বাংলাদেশ দলের কোচ জেমি ডে সাফের চূড়ান্ত দল সম্পর্কে বললেন, ফুটবলার বাছাইয়ে সঠিকদেরই নিয়েছি। যোগ্যদেরই নেয়া হয়েছে। তবে যারা বাদ পড়েছেন তাদের আশাহত হওয়ার কোনো কারণ নেই। সাফের পরেই বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ। তখন তাদের জাতীয় দলে ফেরার সুযোগ থাকছে।

সাফের দলে সিনিয়র ফুটবলার হিসেবে আছেন অভিজ্ঞ ও সাবেক অধিনায়ক মামুনুল, নাসির উদ্দিন চৌধুরী, ওয়ালী ফয়সাল, ইমন বাবু, ফয়সাল মাহমুদ, সোহেল রানা, সাখাওয়াত হোসেন রনি। কোচের যুক্তি, ‘সাফের মতো বড় আসরে কিছু অভিজ্ঞ ফুটবলার প্রয়োজন।’
আর একের পর এক ভুল করে গোল হজম করার পরও গোলরক্ষক সোহেলের চান্স পাওয়া সম্পর্কে তার জবাব, ‘সোহেলের ওপর আস্থা আছে আমার।’

ঢাকা আবাহনীর এই কিপার অবশ্য দলে থাকবেন দ্বিতীয় গোলরক্ষক হিসেবে। পোস্টের নিচে কোচের প্রথম পছন্দ আশরাফুল ইসলাম রানা। অনূর্ধ্ব-১৮ ও ১৯ দলে গত বছর দুর্দান্ত খেলা জাফর ইকবাল এবার নেই সাফের স্কোয়াডে। এই প্রসঙ্গে জেমি ডের বক্তব্য, ‘জাফর অবশ্যই ভালো ফুটবলার; কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে তাকে দলে নিতে পারছি না। তার চেয়ে ভালো ফুটবলার পেয়েছি।’

দলের অবস্থা যাই হোক দেশের সবাই চায় বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন হোক। বিশেষ করে এশিয়ান গেমসে ভালো করার পর। কোচের কাছেও সেই বার্তা চলে গেছে। তাই তিনি উল্লেখ করলেন, এশিয়ান গেমসের পর প্রত্যাশা বেড়ে গেছে বাংলাদেশ দলকে নিয়ে। কিন্তু বাস্তবতা হলো গত ১৫ বছরে বাংলাদেশ সাফে শিরোপা জিততে পারেনি। যাদের সাথে খেলা তারা সবাই আমাদের চেয়ে সুপেরিয়র।

এরপরেই কোচ উল্লেখ করলেন, ‘ফুটবলারেরা তাদের সেরাটা দিতে পারলে সাফের গ্রুপ পর্ব পার হওয়া সম্ভব। তবে এটা বেশ কঠিন।’
এ দিকে অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার মতে, এবার আমাদের যে প্রস্তুতি তাতে ভালো করার স্বপ্ন দেখছি। আমরা যা চেয়েছি বাফুফের কাছে তারা সব দিয়েছে। বিশেষ করে বিদেশী দলের সাথে প্র্যাকটিস ম্যাচ। আগে তো স্থানীয় কোনো দলের সাথে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে হতো। অনুশীলনও লম্বা সময় ধরে। আমাদের এখন প্রধান লক্ষ্য গ্রুপ পর্ব পার করে সেমিতে খেলা।

দলে গোলরক্ষক সোহেলের সুযোগ পাওয়া নিয়ে ফুটবলারদের মধ্যে বিস্ময়ের ভাব আছে। এক ফুটবলারের মতে, ‘সোহেল তো সব সময় বাজে গোল খাওয়ায়। তারপরও কেন সে দলে সুযোগ পায় তা বুঝেন না আপনারা!’

বাংলাদেশ দল : আশরাফুল ইসলাম রানা, শহীদুল আলম সোহেল, সুশান্ত ত্রিপুরা, তপু বর্মন, বিশ্বনাথ ঘোষ, ওয়ালী ফয়সাল, নাসির উদ্দিন চৌধুরী, টুটুল হোসেন বাদশা, মাশুক মিয়া জনি, মামুনুল ইসলাম, ইমন বাবু, ফয়সাল মাহমুদ, বিপলু আহমেদ, সাখাওয়াত রনি, সাদ উদ্দিন, মাহবুবুর রহমান সুফিল, আতিকুল ইসলাম ফাহাদ, জামাল ভূঁইয়া, রবিউল হাসান ও সোহেল রানা।

দেখুন:

আরো সংবাদ

Hacklink

ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme