২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

সালাহকে আশ্বস্ত করেছে ক্লাব কর্তৃপক্ষ

সালাহকে আসস্থ করেছে ক্লাব কর্তৃপক্ষ - সংগৃহীত

সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া এক ছবির কারণে ইংল্যান্ডে পুলিশি বিড়ম্বনায় পড়েছিলেন মোহাম্মদ সালাহ। তবে এ ব্যপার আশ্বস্ত করেছে তার ক্লাব লিভারপুল। 

গত মৌসুমেই লিভারপুলে যোগ দিয়েছেন মোহাম্মদ সালাহ। এরই মধ্যে টুইটারে প্রকাশিত এক ভিডিও তার অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ভিডিওতে সালাহকে গাড়ির চালকের আসনে থাকা অবস্থায় মোবাইল হাতে দেখা গেছে। ফলে লিভারপুল ক্লাব এই নিয়ম ভাঙার ব্যাপারে জানিয়েছে পুলিশকে।

টুইটারে একটি ভিডিওতে দেখা যায়, সালাহ গাড়ির চালকের আসনে বসে আছেন এবং ভক্ত ও কয়েকজন শিশু তাঁর গাড়ি ঘিরে দাঁড়িয়ে আছে। আসলে গাড়িটি ট্রাফিক সিগন্যালে পড়েছিল। তাই হয়তো কোনো প্রয়োজনে মোবাইল হাতে নিয়েছিলেন সালাহ। তবে বিধি বাম, এক ভক্তের ভিডিওতে লিভারপুলের হয়ে ৪৪ গোল করা এই স্ট্রাইকারকে মোবাইল হাতে চালকের আসনে দেখা যায়। ইংল্যান্ডে গাড়ি চালানো অবস্থায় মোবাইল হাতে থাকা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। তাই ঘটনাটি প্রকাশের পর পুলিশ কোনো পদক্ষেপ নেওয়ার আগেই ক্লাবই ফুটেজের ব্যাপারে জানিয়েছে পুলিশকে।

তবে এই ব্যাপারে সালাহর সঙ্গে আলোচনা করেছে লিভারপুল। এ ছাড়া পরবর্তী এই সংক্রান্ত যেকোনো বিষয় ‘অভ্যন্তরীণভাবে’ সমাধান করা হবে বলে জানানো হয়। ক্লাব থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘খেলোয়াড়ের সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে ক্লাব থেকে মার্সেসাইড পুলিশকে ফুটেজের ঘটনাটি জানানো হয়েছে। আমরা খেলোয়াড়ের সঙ্গেও কথা বলেছি এবং পরবর্তীতে যেকোনো বিষয় অভ্যন্তরীণভাবে সমাধান করা হবে। ক্লাব কিংবা খেলোয়াড় এই ব্যাপারে আর কোনো মন্তব্য করবে না।’

মার্সেসাইড পুলিশ নিশ্চিত করেছে, টুইটারের সেই ভিডিওটি সংশ্লিষ্ট বিভাগে প্রেরণ করা হয়েছে।

আরো পড়ুন : 

আরো পড়ুন : যে কারণে বার্সায় যাননি সালাহ

বার্সেলোনা-ত্রয়ী বলা হতো মেসি, নেইমার ও সুয়ারেজকে। প্রতিপক্ষ শিবিরে তারা ত্রাস সৃষ্টি করত তারা। কিন্তু হঠাৎ বার্সা ছেড়ে পিএসজিতে রেকর্ড অর্থে যোগ দিলেন নেইমার। এর কারণ হিসেবে শোন গিয়েছিল, মেসির ছায়ায় নিজেকে মেলে ধরতে পারছিলেন না এই ব্রাজিলীয় সুপারস্টার। এবার একই কারণে বার্সেলোনায় যোগ দিতে চাননি সালাহ।

হ্যাঁ, মেসির মতো মহাতারকা যে ক্লাবে থাকবেন, সেখানে আর কারো দিকে নজর পড়বে না ফুটবলপ্রেমীদের। তাই নাকি বার্সায় যেতে চাচ্ছেন না মিসরীয় সুপারস্টার সালাহ।

ব্রিটেনের ডেইলি স্টার প্রতিবেদনে এমনটাই দাবি করেছে।

ডন ব্যালনের বরাত দিয়ে এতে বলা হয়েছে, 'বার্সেলোনায় মেসি যে পজিশনে খেলে, একই পজিশনে খেলে সালাহ। তাই লিভারপুলে খেলাই তার জন্য এই মুহূর্তে ভালো হবে। তাছাড়া এই ক্লাবের মধ্যমণি হয়ে থাকতেই পছন্দ করছেন তিনি। কারণ লিভারপুলের সমর্থকরা তাকে অসম্ভব পছন্দ করেন। (২২ জুলাই ২০১৮, প্রকাশিত সংবাদ)

 

আরো পড়ুন : উয়েফার সেরা তালিকায় মেসি-রোনালদো-সালাহ

উয়েফা মনোনীত চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেরা ফরোয়ার্ডের সংক্ষিপ্ত তালিকায় জায়গা করে নিয়েছেন লিভারপুলের মোহাম্মদ সালাহ, বার্সেলোনার লিওনেল মেসি ও জুভেন্টাসের ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। অন্য দিকে সালাহর নতুন ক্লাব সতীর্থ অ্যালিসন সেরা গোলরক্ষকের তালিকায় সবার ওপরে রয়েছেন। ২০১৭-১৮ মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে লিভারপুলকে পৌঁছে দিতে সালাহ করেছেন ১০ গোল। যদিও ফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদের কাছে পরাজিত হয়ে হতাশ হতে হয় প্রিমিয়ার লিগের জায়ান্টদের।

টানা তৃতীয়বারের মতো রিয়াল চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জিতেছে। আর এ ক্ষেত্রে বরাবরের মতোই দলের হয়ে সেরা অবদান ছিল রোনালদোর। গত বছর অবশ্য রোনালদো এই পুরস্কার জিততে পারেননি। এবারের মৌসুমে পর্তুগিজ এই ফরোয়ার্ড সর্বোচ্চ ১৫ গোল করেছেন। এই নিয়ে ষষ্ঠবারের মতো তিনি সর্বোচ্চ গোলদাতা হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করেছেন। গ্রীষ্মকালীন দলবদলের সময় তিনি রিয়াল ছেড়ে জুভেন্টাসে পাড়ি জমান।

অন্য দিকে মাত্র ছয় গোল করে সেরা ফরোয়ার্ডের তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছেন মেসি। শেষ ১৬’তে চেলসির বিপক্ষে জয়ী ম্যাচে গোল করেছিলেন তিনি। তবে কোয়ার্টার ফাইনালে রোমার কাছে বিদায় নিতে হয়ে কাতালান জায়ান্টদের।

রোমাকে সেমিফাইনালে পৌঁছে দিতে অবদান রাখায় গোলরক্ষকের ক্যাটাগরিতে অ্যালিসন এগিয়ে রয়েছেন। সেমিফাইনালে ইতালিয়ান ক্লাবটি লিভারপুলের কাছে পরাজিত হয়ে বিদায় নেয়। এই লিভারপুলেই এবারের মৌসুমে যোগ দিয়েছেন ব্রাজিলিয়ান নাম্বার ওয়ান এই গোলরক্ষক। এই তালিকায় আরো আছেন রিয়াল মাদ্রিদের কেইলর নাভাস ও জুভেন্টাসের গিয়ানলুইজি বুফন। যদিও আসন্ন মৌসুমে বুফন প্যারিস সেইন্ট-জার্মেইতে যোগ দিয়েছেন।

সেরা মিডফিল্ডার ক্যাটাগরিতে রয়েছেন মাদ্রিদের টনি ক্রুস ও লুকা মডরিচ। তাদের সাথে আরো আছেন ম্যানচেস্টার সিটির কেভিন ডি ব্রুয়েন। তবে ডিফেন্ডার ক্যাটাগরিতে সেরা তিনজনের মধ্যে প্রত্যেকেই মাদ্রিদের হওয়ায় এই পুরস্কারটি বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের কাছে থাকছে। এই তালিকায় রয়েছেন মার্সেলো, সার্জিও রামোস ও রাফায়েল ভারানে।

গত মৌসুমে গ্রুপ পর্বে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা ৩২টি দলের কোচ ও ইউরোপজুড়ে ৫৫ সাংবাদিক প্যানেলের ভোটে ইউরোপিয়ান লিগের সেরা খেলোয়াড় মনোনীত হবেন। আগামী ৩০ আগস্ট ২০১৮-১৯ মৌসুমের ড্র অনুষ্ঠানে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হবে। (১১ আগস্ট ২০১৮, প্রকাশিত সংবাদ)


আরো সংবাদ