১৪ নভেম্বর ২০১৮

বার্সেলোনার হয়ে ট্রফি জেতার নতুন রেকর্ড গড়লেন মেসি

ত্রয়োদশবারের মতো স্প্যানিশ সুপার কাপ জিতেছে বার্সেলোনা - সংগৃহীত

এর আগে বার্সেলোনার কোনো খেলোয়াড় এমন রেকর্ড গড়েননি। এই রেকর্ডের মালিক কেবল লিওনেল মেসি। এ পর্যন্ত বার্সেলোনার হয়ে ৩৩টি ট্রফি জিতেছেন তিনি। সর্বশেষ রোববার জিতেছেন সুপারকোপা কাপ। এই ট্রফি জয়ের মাধ্যমেই ক্লাবের হয়ে ইতিহাস গড়েছেন তিনি।

সুপারকোপা কাপের ফাইনালে মেসিদের প্রতিপক্ষ ছিল সেভিয়া। মরক্কোর তানজিয়ারে ২-১ গোলে জিতেছে বার্সেলোনা।

কাল ম্যাচের প্রথমার্ধে এগিয়ে যায় সেভিয়া। কিন্তু তা ধরে রাখতে পারেনি। প্রথমার্ধেই সেটি শোধ করে দিয়েছে বার্সেলোনা। ৪২তম মিনিটে মেসির ফ্রি কিক পোস্টে লাগলে জেরার্ড পিকে সেই সুযোগ লুফে নেন। সমতায় ফেরান দলকে।

 

দ্বিতীয়ার্ধে জয় সূচক গোলটি করেন উসমানে দেম্বেলে। ৭৮তম মিনিটে খুব কাছে থেকে মেসির শট ফিরিয়ে দেন সেভিয়ার গোলরক্ষক। কিন্তু কিছুক্ষণ পর তার চোখ ফাঁকি দিয়ে জালে বল ছুঁড়েন সদ্য বিশ্বকাপজয়ী ফ্রান্সের সদস্য দেম্বেলে।

এরপর সেভিয়ার পক্ষে আর গোল শোধ করা সম্ভব হয়নি। ত্রয়োদশবারের মতো স্প্যানিশ সুপার কাপ জিতে মাঠ ছাড়ে বার্সেলোনা।

এর মাধ্যমেই ৩৩তম ট্রফি জিতলেন অধিনায়ক মেসি। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ট্রফি হলো চারটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের, নয়টি লা লিগা এবং ছয়টি কোপা ডেলরের।

 

আরো পড়ুন : উয়েফার সেরা তালিকায় তিন সুপারস্টার

উয়েফা মনোনীত চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেরা ফরোয়ার্ডের সংক্ষিপ্ত তালিকায় জায়গা করে নিয়েছেন লিভারপুলের মোহাম্মদ সালাহ, বার্সেলোনার লিওনেল মেসি ও জুভেন্টাসের ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। অন্য দিকে সালাহর নতুন ক্লাব সতীর্থ অ্যালিসন সেরা গোলরক্ষকের তালিকায় সবার ওপরে রয়েছেন। ২০১৭-১৮ মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে লিভারপুলকে পৌঁছে দিতে সালাহ করেছেন ১০ গোল। যদিও ফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদের কাছে পরাজিত হয়ে হতাশ হতে হয় প্রিমিয়ার লিগের জায়ান্টদের।

টানা তৃতীয়বারের মতো রিয়াল চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জিতেছে। আর এ ক্ষেত্রে বরাবরের মতোই দলের হয়ে সেরা অবদান ছিল রোনালদোর। গত বছর অবশ্য রোনালদো এই পুরস্কার জিততে পারেননি। এবারের মৌসুমে পর্তুগিজ এই ফরোয়ার্ড সর্বোচ্চ ১৫ গোল করেছেন। এই নিয়ে ষষ্ঠবারের মতো তিনি সর্বোচ্চ গোলদাতা হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করেছেন। গ্রীষ্মকালীন দলবদলের সময় তিনি রিয়াল ছেড়ে জুভেন্টাসে পাড়ি জমান।

অন্য দিকে মাত্র ছয় গোল করে সেরা ফরোয়ার্ডের তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছেন মেসি। শেষ ১৬’তে চেলসির বিপক্ষে জয়ী ম্যাচে গোল করেছিলেন তিনি। তবে কোয়ার্টার ফাইনালে রোমার কাছে বিদায় নিতে হয়ে কাতালান জায়ান্টদের।

রোমাকে সেমিফাইনালে পৌঁছে দিতে অবদান রাখায় গোলরক্ষকের ক্যাটাগরিতে অ্যালিসন এগিয়ে রয়েছেন। সেমিফাইনালে ইতালিয়ান ক্লাবটি লিভারপুলের কাছে পরাজিত হয়ে বিদায় নেয়। এই লিভারপুলেই এবারের মৌসুমে যোগ দিয়েছেন ব্রাজিলিয়ান নাম্বার ওয়ান এই গোলরক্ষক। এই তালিকায় আরো আছেন রিয়াল মাদ্রিদের কেইলর নাভাস ও জুভেন্টাসের গিয়ানলুইজি বুফন। যদিও আসন্ন মৌসুমে বুফন প্যারিস সেইন্ট-জার্মেইতে যোগ দিয়েছেন।

সেরা মিডফিল্ডার ক্যাটাগরিতে রয়েছেন মাদ্রিদের টনি ক্রুস ও লুকা মডরিচ। তাদের সাথে আরো আছেন ম্যানচেস্টার সিটির কেভিন ডি ব্রুয়েন। তবে ডিফেন্ডার ক্যাটাগরিতে সেরা তিনজনের মধ্যে প্রত্যেকেই মাদ্রিদের হওয়ায় এই পুরস্কারটি বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের কাছে থাকছে। এই তালিকায় রয়েছেন মার্সেলো, সার্জিও রামোস ও রাফায়েল ভারানে।

গত মৌসুমে গ্রুপ পর্বে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা ৩২টি দলের কোচ ও ইউরোপজুড়ে ৫৫ সাংবাদিক প্যানেলের ভোটে ইউরোপিয়ান লিগের সেরা খেলোয়াড় মনোনীত হবেন। আগামী ৩০ আগস্ট ২০১৮-১৯ মৌসুমের ড্র অনুষ্ঠানে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হবে।

 

আরো পড়ুন : মেসি কি অবসর নিচ্ছেন? জানা গেল নতুন তথ্য

ফ্রান্সের কাছে হেরে বিশ্বকাপ থেকে আর্জেন্টিনা ছিটকে যাওয়ার পর মেসির জাতীয় দল থেকে অবসর নেয়ার প্রশ্ন উঠে গিয়েছিল। অনেকেই ধরে নিয়েছিলেন, কোপার ব্যর্থতা সহ্য না করতে পেরে যেভাবে অবসর নিয়ে ফেলেছিলেন। তেমনভাবেই হয়তো অবসরের রাস্তায় হাঁটবেন মেসি। তবে আপাতত ব্যর্থতার পরে মুখে কুলুপ এঁটেছেন এই সুপারস্টার। তবে তার ভবিষ্যৎ নিয়ে মুখ খুলেছেন আর্জেন্টিনীয় ফুটবল সংস্থার প্রধান ক্লদিও তাপিয়া। জানিয়ে দিয়েছেন, মেসির অবশ্যই জাতীয় দলের জার্সিতে খেলা চালিয়ে যাওয়া উচিত।

তাপিয়া বলেন, 'বিশ্বকাপ থেকে যে বিশ্রীভাবে আমরা বিদায় নিয়েছি, তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। দেশের ব্যর্থতায় মনে মনে প্রচণ্ড আঘাত পেয়েছে লিও। তবে আর্জেন্টিনার ওকে সবসময়েই দরকার।'

এখানেই না থেমে এএফএ সভাপতি আরো জানান, 'ওকে দরকার আমাদের অর্থনৈতিক দুরবস্থার জন্য। আশা করি মেসি দীর্ঘদিন আর্জেন্টিনার জার্সিতে খেলবে। জাতীয় দলকে ও খুবই ভালোবাসে। ওকে নিয়ে আমাদের প্রত্যাশাও বেশি। আসলে, ও সবসময়ে আমাদের ভরসা জোগায়।'

মেসির ভবিষ্যৎ কর্মপন্থা নিয়ে মুখ খুলেছেন তাপিয়া। গত সপ্তাহেই মেসির সাথে শেষবার কথা হয়েছে তাপিয়ার। তিনি জানান, 'মেসি আপাতত পরিবারের সাথে ছুটিতে রয়েছে। এই মুহূর্তে ওকে একা থাকতে দেয়াটা ভীষণ প্রয়োজন। স্পেনে খেলা শুরু করার পরে দেখা যাবে ও কী করে!' (২৮ জুলাই, ২০১৮ প্রকাশিত সংবাদ)


আরো সংবাদ