২৩ মার্চ ২০১৯

হঠাৎ থিতিয়ে গেল সব উন্মাদনা

হঠাৎ থিতিয়ে গেল সব উন্মাদনা - ছবি : সংগৃহীত

জার্মানি, আর্জেন্টিনা, পর্তুগালের পর বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে ব্রাজিল ছিটকে যাওয়ার পর বাংলাদেশের মানুষের বিশ্বকাপ সংক্রান্ত উত্তেজনা-উন্মাদনা যেন হঠাৎই থিতিয়ে পড়েছে।

বেলজিয়ামের বিপক্ষে ম্যাচের আগেও ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় ব্রাজিলের পতাকা উড়তে দেখা গেলেও, কোয়ার্টার ফাইনালে বেলজিয়ামের কাছে হারের পর হাতে গোনা দু'একটি জায়গা বাদে খুঁজেই পাওয়া গেল না সেসব পতাকা। রাস্তাঘাটে জার্সি পরা মানুষের সংখ্যাও হঠাৎই যেন কমে গেছে।

ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন ছাত্র ছাত্রী বলছিলেন ব্রাজিল, আর্জেন্টিনার মতো বড় দল বাদ হয়ে যাওয়ায় তাদের বিশ্বকাপ উন্মাদনায় ভাটা পড়েছে।

ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উৎস বলছিলেন, আর্জেন্টিনা হারার পর তার আর্জেন্টিনা সমর্থক বন্ধুবান্ধব বিশ্বকাপের খেলা দেখার আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছিল। তেমনি ব্রাজিলের হারের পর তার ব্রাজিল সমর্থক বন্ধুদের অনেকে আর বিশ্বকাপের খেলা দেখবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

একই বিশ্ববিদ্যালয়ের তামিসা বলেন, আর্জেন্টিনার বিদায়ের পর বড় দল হিসেবে তিনি ব্রাজিল সমর্থন করেছিলেন। কিন্তু ব্রাজিলও বাদ পড়ে যাওয়ায় বিশ্বকাপ দেখার আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছেন তিনিও।

বড় দলগুলো বাদ পড়ায় বিশ্বকাপ নিয়ে বাংলাদেশের মানুষের মধ্যে তৈরী হওয়া অনীহার কারণে বিশ্বকাপের বাণিজ্যিক সম্প্রচার ব্যাবসায়িকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

মাছরাঙা টিভির সম্প্রচার বিভাগের প্রধান এমএম সায়েম মনে করেন, বড় দল বাদ হয়ে যাওয়ায় দর্শকসংখ্যা পাশাপাশি ব্যাবসায়িক হিসেবেও নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে তাদের বিশ্বকাপ সম্প্রচারে।

"ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, জার্মানি, স্পেন বা পর্তুগালের মতো বড় দলগুলো সেমিফাইনাল পর্যন্ত উঠবে এমনটাই চাওয়া ছিল আমাদের, যেন খেলা দেখার জন্য দর্শকের চাপ থাকে। বাজারজাতকরণের বিশ্লেষণটাও সেসব বিষয় মাথায় রেখেই করা হয়েছিল", বলেন মি. সায়েম।

সায়েম মনে করেন, বড় দলগুলো আগেভাগে বাদ পড়ায় বিজ্ঞাপণ থেকে আসা মুনাফা ও দর্শকের উপস্থিতি, এই দুই বিষয়ের ওপরই নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

তবে পছন্দের দল বাদ হয়ে যাওয়ায় সবাই কিন্তু বিশ্বকাপের ম্যাচ না দেখার সিদ্ধান্ত নেননি। বড় দল বাদ হয়ে যাওয়ায় বিশ্বকাপ কিছুটা জৌলুস হারালেও ভিন্ন আমেজে খেলা উপভোগ করতে চান অনেক দর্শক।

যেমন ব্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র জারিফ মনে করেন, অধিকাংশ মানুষের পছন্দের দলগুলো না থাকায় পরবর্তী ম্যাচগুলোতে সমর্থকদের মধ্যে হওয়া দ্বন্দ্ব কমে যাবে। সব দলের সমর্থকরা একসাথে বিশ্বকাপ উপভোগ করতে পারবেন।

বাংলাদেশের বেশির ভাগ মানুষের জন্য বিশ্বকাপের উন্মাদনা শেষ হয়ে গেলেও, ফুটবল ভালোবাসেন এমন অনেক মানুষই এখনো মুখিয়ে রয়েছেন বিশ্বকাপের শেষ কয়েকটি ম্যাচের জন্য।


আরো সংবাদ

iptv al Epoksi boya epoksi zemin kaplama Daftar Situs Agen Judi Bola Net Online Terpercaya Resmi

Hacklink

instagram takipçi satın al ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme

instagram takipçi satın al