২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

মহিলা সাংবাদিককে জড়িয়ে ধরলেন মেসি

মেসি, আর্জেন্টিনা, বিশ্বকাপ
ভক্তকে জড়িয়ে ধরলেন মেসি (ফাইল ফটো) - নয়া দিগন্ত

আগের দুই দিন মিক্সড জোনে দেখা যায়নি আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ক্লাওডিও তাপিয়াকে। নাইজেরিয়ার সাথে জয়ের পর পুরো দলের আগে থেকে মিক্সড জোন পার হলেন তিনি। আর সবার পরে কোচ জর্জ সাম্পওলি। এদের মাঝে ছিলেন অধিনায়ক লাওনেল মেসি

ফুটবলের এই রাজপুত্র বেশ হাসি খুশি ছিলেন। চোখ মেরে ভাব বিনিময় করলেন কয়েকজনের সাথে। মিক্সড জোনে কোনো প্রিন্ট মিডিয়াকে সময় দিলেন না মেসি। অল্প কিছু সময় ব্যয় করলেন টিভি মিডিয়ার জন্য। তবে পত্রিকা এবং অনলাইনের মিডিয়া কর্মীদের অতিক্রম করার সময় মেসি জড়িয়ে ধরলেন আর্জেন্টিনার এক মহিলা সাংবাদিককে।

ওই মহিলাই আগে দুই হাত বাড়িয়ে দেন। কোমর সমান থাকা ব্যারিকেডের এপাড় ওপাড় থেকে দু'জনের কোলাকুলি করতে কোনো সমস্যাই হয়নি। যা উপভোগ করেছেন উপস্থিত সকলে।

২০১৪ সালের ব্রাজিল বিশ্বকাপের সময়ও মেসি সবাইকে এড়িয়ে গেলেও কলম্বিয়ার মহিলা সাংবাদিককে আর হতাশ করেননি। তাকে ইন্টারভিউ দিয়েছেন।

 

আরো পড়ুন : ফাইনালের স্বপ্ন দেখছেন হিগুয়েন

একটি জয় পাল্টে দিয়েছে পুরো আর্জেন্টিনা দলকে। ধুকতে থাকা দলটি এখন আত্মবিশ্বাসে ফুটছে। এই জয়ের পর স্ট্রাইকার গঞ্জালো হিউয়েন তো ১৫ জুলাই ফাইনাল খেলার স্বপ্ন দেখছেন। নাইজেরিয়াকে হারানোর পর আর্জেন্টাইনদের এই আশা মনে জাগতেই পারে।

মিস মাস্টার হিগুয়েনের মতে, ‘আমরা ছন্দে ফিরেছি। ভালো সুযোগ তৈরি হয়েছে সামনে এগুনোর। এখন আমাদের লক্ষ্য ফাইনাল খেলা।’

ফ্রান্সে জন্ম হয়েছে হিগুয়েনের। আর এই ফ্রান্সের বিপক্ষেই দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচ আর্জেন্টিনার। তাই হিগুয়েনের জন্য ম্যাচটি বিশেষ কিছু। বলেন, ‘আমার কাছে অন্যরকম ম্যাচ এটি। এই প্রথম খেলতে যাচ্ছি ফ্রান্সের বিপক্ষে।’

গত বিশ্বকাপের ফাইনালে সহজ গোলের সুযোগ হাতছাড়া করেছিলেন হিগুয়েন। পরপর দুই কোপা আমেরিকার ফাইনালে আবার গোল মিস করেছেন তিনি। পরশু নাইজেরিযার বিপক্ষে ফের গোল করতে ব্যর্থ ইতালিয়ান লিগে খেলা এই ফুটবলার। দুটি সুযোগ হাতছাড়া করেন। তবে আগের তিন ম্যাচের মতো অবশ্য এবার হারেনি আর্জেন্টিনা।

নাইজেরিয়ার বিপক্ষে গোল মিস সম্পর্কে বলেন, ‘বল খুব দ্রুত এসেছিল আমার কাছে। তাই বল আমার পায়ে লেগে বার উচিয়ে চলে যায়।’

ইনজুরি কাটিয়ে ফেরা এবং জয়সূচক গোল করা মার্কোস রোহোর প্রশংসা করে বলেন, 'জয়ের পর অনেক ফুটবলারই তাদের আবেগ ধরে রাখতে পারেনি। কেঁদেছে তারা।'


আরো সংবাদ