২২ অক্টোবর ২০১৮

বিশ্বকাপ অভিজ্ঞতা : ইংরেজিতে অজ্ঞ তবুও সাহায্যের চেষ্টা

বিশ্বকাপ অভিজ্ঞতা : ইংরেজিতে অজ্ঞ তবুও সাহায্যের চেষ্টা - সংগৃহীত

চীন, থাইল্যান্ড, ব্রাজিল ও তাজিকিস্তান গিয়ে ইংরেজি না-জানা লোকদের কবলে পড়েছিলাম। এবার রাশিয়ায় এসেও একই পরিস্থিতির মুখোমুখি। কাউকে কিছু জিজ্ঞাসা করলেই সরাসরি উত্তর, আমি ইংরেজি জানি না। তবে এই বলেই কেটে পড়ে না কোনো রাশিয়ান। চেষ্টা করে যেভাবেই হোক তথ্য দিয়ে সাহায্য করতে। দুই দিনের মস্কোর জীবনে এমন বহু মানুষকে দেখলাম মোবাইলে ইন্টারনেটে ঢুকে ম্যাপ দেখে দিক নির্দেশনা দিতে। বা আমার বলা ইংরেজি শব্দ গুগল ট্রান্সলেটের রুশ ভাষায় অনুবাদ করে তারপর বুঝানোর চেষ্টা করছে। এই আন্তরিকতা তারা না দেখালেই বা কি হতো।

ইংরেজি মোটেই জনপ্রিয় নয় রাশিয়ায়। তারা রুশ ভাষাতেই কথা বলে। তবে বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে সাহায্যকর্মীদের ইংরেজি শেখানো হয়েছে। স্থানীয় বাংলাদেশীরা জনালেন, বিশ্বকাপ উপলক্ষেই মেট্রো রেল স্টেশনগুলোতে রুশ ভাষার পাশাপাশি ইংরেজি শব্দ লাগানো হয়েছে বিদেশীদের বুঝার জন্য। অবশ্য এটা না হলে অবস্থা বেগতিক হতো ফুটবল প্রেমী বিদেশীদের। এক স্টেশনের বদলে চলে যেতে হতো অন্যত্র। স্পাটার্ক মস্কো স্টেডিয়ামে যাওয়ার সময় এক রুশ নাগরিককে বললাম কিভাবে যাব তা দেখিয়ে দিতে। সে ইংরেজি জানে না তাই তার বন্ধুকে ফোনে ডেকে নিয়ে এলো। তিনি আবার ভালো ইংরেজি জানেন। তার দেয়া তথ্য অনুসরণ করে চলে গেলাম গন্তব্যে।

সেখানে অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড সেন্টার খুঁজতে গিয়ে বেশ বিরক্ত মিসরীয় সাংবাদিক হামজা। তিনি তার কথা বুঝাতে পারছেন না । আবার রুশদের কথাও তার মাথায় ঢুকছে না। শেষে আরেকজন এসে তার সমস্যার সমাধান করল। কাল স্পাটার্ক অ্যাকাডেমিতে যাওয়ার সময় সেই একই বিড়ম্বনা। কেউ ইংরেজি বলে সাহাস্য করতে পারছে না। পরে একজন স্মার্ট লোককে ডাকলাম। তার একই উত্তর আমি ইংরেজি জানি না। তাই বলে আমাকে ফেলে যায়নি। মোবাইলে ইন্টারনেট ঘাঁটাঘাটি করে আকাডেমির অবস্থান নিশ্চিত করল। কিন্তু সেখান থেকে আমার হেঁটে যেতে লাগবে ২৫ মিনিট। তাই তিনি ডাকলেন ট্যাক্সিকে । ট্যাক্সিওয়ালার আপত্তিতে পরে তিনি নিজেই তার গাড়িতে করে আমাকে নিয়ে গেলেন অ্যাকাডেমিতে। তিনি সাধারণ কোনো মানুষ নয়। মস্কোর একটি আদালতের বিচারক। নাম দিমিত্রি। গাড়িতে বসে জানালেন, তার মাতাও ছিলেন সাংবাদিক। আর নিজে রুশ ক্লার লোকোমেটিভ মস্কোর সমর্থক। ভদ্র মানুষ তিনি। সাথে ফুটবলপ্রেমী এবং সাংবাদিক মায়ের সন্তান। তাই আমার প্রতি এই আন্তরিকতা।

ফেরার সময় আরেক রুশ মেয়ে আন্না নিজে আমাকে সাথে নিয়ে ট্রাম গাড়িতে উঠিয়ে দিলো।এই বেচারিও ইংরেজি কিছুই জানে না।


আরো সংবাদ