১৬ অক্টোবর ২০১৯

চট্টগ্রামে আবাহনী মুক্তিযোদ্ধা ও মোহামেডানে র্যাবের অভিযান

-

চট্টগ্রামের তিন ক্লাবের জুয়ার আস্তানায় র্যাব-৭ এর একাধিক টিম ভাগ হয়ে অভিযান চালিয়েছে গতকাল সন্ধ্যায়। ঢাকায় জুয়ার আস্তানায় অভিযানে সরকারদলীয় নেতাদের গ্রেফতারের আলোচনার মধ্যেই এবার চট্টগ্রামেও এ অভিযানে নামে র্যাব। ওই তিন ক্লাবে প্রবেশ করার পর তাসসহ জুয়ার সরঞ্জাম পেয়েছে র্যাব। রাত সাড়ে ৮টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অভিযান চলছে।
র্যাব সূত্র জানায়, শনিবার সন্ধ্যা সোয়া ৭টার পর থেকে একযোগে র্যাব-৭ এর একাধিক টিম ভাগ হয়ে নগরীর হালিশহর থানার আবাহনী ক্লাব, সদরঘাট থানার মোহামেডান ক্লাব ও মুক্তিযোদ্ধা ক্রীড়া সংসদে অভিযান চালায়। তবে এই তিন ক্লাবই আগে থেকে তালাবদ্ধ থাকায় কর্তৃপক্ষকে ডেকে পাঠিয়েছে র্যাব। যদি র্যাবের ডাকে ক্লাব কর্তৃপক্ষ সাড়া না দেয়, তাহলে তালা ভেঙে সেখানে তল্লাশি করার কথা থাকলেও সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ক্লাবের কেয়ারটেকাররা এসে তালা খুলে দিলে র্যাব ভেতরে প্রবেশ করে। র্যাব-৭ এর মিডিয়া অফিসার এএসপি মাহমুদুল হাসান মামুন নয়া দিগন্তকে জানান, তিনটি ক্লাবে একযোগে অভিযান চালানো হয়েছে। ওই তিন ক্লাব থেকে জুয়ার সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে। তবে কাউকে আটক করা যায়নি। কী পরিমাণ জুয়ার সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে তা নিরূপণের কাজ চলছিল বলে তিনি জানান। অভিযানকালে একটি ক্লাব থেকে ধারালো অস্ত্রও উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানা গেছে।
এর আগে শুক্রবার রাতে নগরীর কোতোয়ালি থানার আলমাস সিনেমা হলের পাশে বিলিয়ার্ড খেলার ঘর ‘হ্যাংআউট’ এ অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় কোনো ধরনের অনুমোদন না থাকায় মালিকের ছেলে ও এর আগে বৃহস্পতিবার একযোগে নগরীর সব থানায় জুয়ার আসরবিরোধী অভিযানে নেমেছিল পুলিশ। তবে নগরীর কোতোয়ালি থানার পুলিশ প্লাজায় একটি ক্যাসিনো থাকলেও সেটি আগে থেকেই বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ। এরপরও অনুমোদিত যেসব বার ও ক্লাবে অবৈধভাবে জুয়ার আসর বসে সেখানে অভিযান চালানো হবে বলে জানা গেছে।

 


আরো সংবাদ




astropay bozdurmak istiyorum