film izle
esans aroma Umraniye evden eve nakliyat gebze evden eve nakliyat Ezhel Şarkıları indirEzhel mp3 indir, Ezhel albüm şarkı indir mobilhttps://guncelmp3indir.com Entrumpelung wien Installateur Notdienst Wien webtekno bodrum villa kiralama
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ডেঙ্গু আক্রান্ত : এক দিনে কমেছে ১৮ শতাংশ

দুই যুবক ও শিশুর মৃত্যু
-

ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা আরো কমেছে। গতকাল শনিবার সারা দেশে আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজার ১৭৯ জন। গতকালের তুলনায় আক্রান্তের সংখ্যা কমেছে ১৮ শতাংশ। এর মধ্যে রাজধানী ঢাকায় আক্রান্ত হয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৫৭০ জন এবং রাজধানীর বাইরে সারা দেশের হাসপাতালে ৬০৯ জন। জুলাই মাসের শেষ দিকে আক্রান্তের সংখ্যার সাথে গতকালের আক্রান্তের তুলনা করা যায়। ২৬ জুলাই সারা দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল এক হাজার ২১৭ জন এবং আগস্টে সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৭ আগস্ট দুই হাজার ৪২৮ জন। সারা দেশে চিকিৎসাধীন আছে ছয় হাজার ২৮৯ জন। এছাড়া গতকাল ডেঙ্গুতে কেরাণীগঞ্জ ও আশুলিয়ায় দুই যুবক ও ময়মনসিংহে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে।
বৃষ্টি কমে যাওয়ার কারণে সারা দেশেই মশার উৎপাদনের হারও কমছে। বাংলাদেশে এখন চলছে শরৎকাল। এ সময় এমনিতে বৃষ্টি কম হয়। হলেও থেমে থেমে হয়ে থাকে। আবহাওয়া অফিস বলছে, বাংলাদেশে মওসুমি বায়ু মোটামুটি সক্রিয়। নির্দিষ্ট কিছু অঞ্চল ছাড়া অন্যান্য স্থানে খুব বেশি বৃষ্টি হচ্ছে না। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানী ঢাকায় ১০ থেকে ২০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। মাটিতে পানি না জমলেও মশা উৎপাদনের সুযোগ থাকে না। তবে ডেঙ্গু জীবাণুবাহী এডিস মশার ডিম প্রকৃতিতে অনেক দিন থাকে। ছয় মাস পরও এডিস মশা ডিম পানির স্পর্শ পেলে লার্ভা ফুটে থাকে। কিন্তু পানি না পেলে মশা উৎপাদনের সুযোগ থাকে না।
গতকাল দুপুর ১২টা পর্যন্ত পূর্বের ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালেই ভর্তি হয়েছে ১৮৫ জন। মিটফোর্ড হাসপাতালে ৫৪ জন, ঢাকা শিশু হাসপাতালে ১৪, শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ৪৮, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ২৪, পুলিশ হাসপাতালে ১২, মুগদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৬৫, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ৩০, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ২৬ জন, বিজিবি হাসপাতালে চারজন, কুয়েত মৈত্রী সরকারি হাসপাতালে দুইজন, অন্যান্য সরকারি হাসপাতালে চারজন। ঢাকার বাইরের ঢাকা বিভাগে ১৭৭, চট্টগ্রাম বিভাগে ৭৪, খুলনা বিভাগে ১৩৮, রাজশাহী বিভাগে ৫৭, রংপুর বিভাগে ২৪, বরিশাল বিভাগে ১০৬, সিলেট বিভাগে আট এবং ময়মনসিংহ বিভাগে ২৫ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।
এ ছাড়া রাজধানীর বেসরকারি হাসপাতালের মধ্যে বাংলাদেশ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ১০ জন, হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট হাসপাতালে ১৫ জন, বারডেম হাসপাতালে সাতজন, ইবনে সিনা হাসপাতালে সাতজন, স্কয়ার হাসপাতালে ছয়জন, সেন্ট্রাল হাসপাতালে ১৭, কাকরাইলের ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে ১৭ জন, গ্রিন লাইফ হাসপাতালে ছয়জন, সিরাজুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চারজন, আদদ্বীন হাসপাতালে আটজন ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন।
এ দিকে ঢাকায় ডেঙ্গুতে মৃত্যুর খবর না পাওয়া গেলেও গতকাল ডেঙ্গুতে কেরাণীগঞ্জ ও আশুলিয়ায় দুই যুবক ও ময়মনসিংহে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে।
আশুলিয়া (ঢাকা) সংবাদদাতা জানান, আশুলিয়া বাইপাইল এলাকার অজয় দাস (২৫) নামের এক যুবক ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গতকাল শনিবার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে মারা গেছেন।
অজয় দাসের বাবা গৌতম দাস জানান, গত মঙ্গলবার অজয় দাস বাইপাইল ফলের আড়তে কাজ করাবস্থায় তার জ্বর আসে। পরে তাকে স্থানীয় হাবিব কিনিকে ভর্তি করা হয়। গত বৃহস্পতিবার অজয় দাসকে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করলে সেখানে তার ডেঙ্গু ধরা পড়ে। সেখান থেকে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ভর্তি করে আইসিইউতে রাখা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল শনিবার সকালে অজয় দাস মারা যান। অজয় দাস চাঁদপুর জেলার মতলব থানার সুজাতপুর গ্রামের বাসিন্দা।
ঢাকা জেলা সংবাদদাতা জানান, ঢাকার কেরানীগঞ্জে ডেঙ্গুজ্বরে আবুল কালাম (৩০) নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার গভীর রাতে রাজধানীর মিটফোর্ড হাসপাতালে তিনি মারা যান। নিহতের ছেলে শাকিল জানান, তার পিতা আবুল কালাম রঙ দোকানের শ্রমিক ছিলেন। গত এক সপ্তাহ তিনি জ্বরে ভুগছিলেন। জ্বর না কমলে গত মঙ্গলবার তাকে মিটফোর্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গত শুক্রবার গভীর রাতে তিনি মারা যান। আবুল কালাম কেরানীগঞ্জ মডেল থানার জিনজিরা ইউনিয়নের রহমতপুর এলাকার বাসিন্দা। ছেলে শাকিল ছাড়াও লামিয়া নামের তার ছোট একটি মেয়ে রয়েছে।
ময়মনসিংহ অফিস জানায়, ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে জারিফ নামে পাঁচ মাস বয়সী এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গাজীপুর হাসপাতাল ভর্তি হওয়ার পর অবস্থার অবনতি হলে তাকে গত শুক্রবার বিকেলে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আইসিইউতে নেয়ার ৪০ মিনিট পর তার মৃত্যু হয়। জারিফ ময়মনসিংহ নগরীর মিকারিকান্দা গ্রামের আরিফের ছেলে।
ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সহকারী পরিচালক এ বি এম শামসুজ্জামান সেলিম জানান, এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল পাঁচজনে। এদের মধ্যে দু’জন নেত্রকোনা ও দু’জন কিশোরগঞ্জ জেলার বাসিন্দা। এরা ঢাকায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ভর্তি হয়েছিল। এ দিকে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৫ জন ভর্তি হয়েছেন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১১০ জন। গত ২১ জুলাই থেকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এক হাজার ১৪২ জন ভর্তি হন বলেও জানান তিনি।
মুন্সীগঞ্জ সংবাদদাতা জানান, জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ছয়জন। এ জেলায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা ৩০২। সরকারি হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসাধীন আছেন ২৬ জন। এ ছাড়া সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২২৫ জন এবং চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছে ৫১ জনকে। গতকাল শনিবার বিকেল ৫টায় জেলা সিভিল সার্জন শেখ ফজলে রাব্বি নয়া দিগন্তকে এসব তথ্য জানান।
জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ১২ জন, সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তিনজন, শ্রীনগরে তিনজন, লৌহজংয়ে তিনজন, টঙ্গিবাড়ীতে দু’জন চিকিৎসাধীন রয়েছে।
সুনামগঞ্জ সংবাদদাতা জানান, সুনামগঞ্জে প্রতিদিনই বাড়ছে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। জেলার সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন হাসপাতালে এ পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি রয়েছেন ৩৫ জন। সুনামগঞ্জ সিভিল সার্জন অফিস থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, আক্রান্তদের সবাই ঢাকায় আক্রান্ত হয়ে সুনামগঞ্জে এসেছেন।
সদর হাসপাতালের ডেঙ্গু মেডিসিন পুরুষ ওয়ার্ডের ডেঙ্গু বিভাগের ইনচার্জ গীতা চিষা জানান, ‘সদর হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীরা চিকিৎসা নিচ্ছেন। কিছু ডেঙ্গু রোগীকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য রেফার্ড করা হয়েছে। সুনামগঞ্জ সিভিল সার্জন ডা: আশুতোষ দাস জানান, সুনামগঞ্জে স্থানীয়ভাবে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন এমন রোগী পাওয়া যায়নি। সবাই ঢাকায় আক্রান্ত হয়ে ফিরেছেন।


আরো সংবাদ




short haircuts for black women short haircuts for women