১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

সেমির সমীকরণে বাংলাদেশ

-

জমে উঠেছে বিশ্বকাপের লড়াই। টুর্নামেন্টের শুরুতে পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা ও অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বাদ পড়ার শঙ্কা জাগিয়ে তুলেছে হট ফেভারিট ইংল্যান্ড। আর এ দিকে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড ও ভারত অনেকটাই নিশ্চিতভাবে সেমিফাইনালে যাচ্ছে। তাই সেমিফাইনালে যেতে চতুর্থ দলটি কারা হবে এই নিয়ে হচ্ছে নানা সমীকরণ।
সেমিফাইনালে খেলার সম্ভাবনার সারিতে একই অবস্থানে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা। তিন দলকে সামনের তিনটি ম্যাচ জিততে হবে। তবে শুধু জিতলেই হবে না, তাকিয়ে থাকতে হবে অন্যের জয়-পরাজয়ের দিকে। গত মঙ্গলবার অস্ট্রেলিয়ার কাছে ইংল্যান্ডের পরাজয়ে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা।
এই যখন সমীকরণ, তখন গতকাল নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি পাকিস্তান। এজবাস্টনের ওই ম্যাচ জিতলেই সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলবে এখনো অপরাজিত থাকা নিউজিল্যান্ড। আর পাকিস্তান জিতলে সেমির সমীকরণে এগিয়ে থাকবে তারা। পয়েন্ট তালিকায় পাকিস্তানের অবস্থান এখন সপ্তম। এখন পর্যন্ত ছয়টি ম্যাচ খেলে পাকিস্তান পেয়েছে পাঁচ পয়েন্ট। কিউইদের বিপক্ষে জয়ী হলে পয়েন্ট হবে সাত।
চতুর্থ অবস্থানে থাকা ইংল্যান্ডের চেয়ে মাত্র এক পয়েন্ট পিছিয়ে আছে বাংলাদেশ। পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষ চারটি দল সেমিফাইনাল খেলবে। পাকিস্তানের সামনের দু’টি ম্যাচের একটি আফগানিস্তান ও অন্যটি বাংলাদেশ। আফগানিস্তান এখন পর্যন্ত একটি ম্যাচও জেতেনি। কাগজে-কলমে ওই ম্যাচটিতে এগিয়ে পাকিস্তান। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচের পর পাকিস্তানের শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী বলতে বাংলাদেশ। মুখোমুখি হবে ৫ জুলাই।
বাংলাদেশের ম্যাচ আগামী ২ জুলাই, ভারতের বিপক্ষে। সেমিতে খেলার সম্ভাবনা এখনো টিকিয়ে রেখেছেন মাশরাফিরা। এ জন্য অবশ্যই ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচে জয় পেতেই হবে বাংলাদেশকে। তবে অন্য দলগুলোর দিকেও তাকিয়ে থাকতে হবে। অন্য দলগুলোর দিকে তাকিয়ে থাকা বলতে আপাতত বাংলাদেশের এক ধাপ এগিয়ে থাকা ইংল্যান্ড ও ঠিক এক ধাপ নিচে শ্রীলঙ্কা ও দুই ধাপ নিচে পাকিস্তানের কথা বলা হচ্ছে। বাংলাদেশের ক্রীড়াপ্রেমীরা অবশ্যই চাইবে ওই দলগুলো পয়েন্ট হারাক।
ইংল্যান্ডের খারাপ অবস্থার কারণে আশাবাদী করেছে বাংলাদেশ, পাকিস্তান এমনকি শ্রীলঙ্কাকেও। বাংলাদেশ ৭ ম্যাচ খেলে তিনটিতে জয় পেয়ে ৭ পয়েন্ট পেয়েছে। ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে জয় পেলে বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে ১১। ছয় ম্যাচে দুই জয়ে এবং পরিত্যক্ত হওয়া দুই ম্যাচে পয়েন্ট পেয়ে শ্রীলঙ্কার পয়েন্ট ছয়। শ্রীলঙ্কার বাকি আছে তিনটি ম্যাচ। ২৮ জুন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। ১ জুলাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এবং ৬ জুলাই ভারতের বিপক্ষে। যদি শ্রীলঙ্কা উইন্ডিজ ও সাউথ আফ্রিকার বিপক্ষে জয়ী হয় তাহলে পয়েন্ট হবে দশ। তবে মুখোমুখি লড়াইয়ে এবং রান রেটে পিছিয়ে থাকবে শ্রীলঙ্কা।
পাকিস্তান শুরু থেকেই আনপ্রেডিক্টেবল। এই বিশ্বকাপেও সেটিই প্রমাণ করছে দলটি। প্রথম ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১০৫ রানে অল-আউট হওয়া দলটি ইংল্যান্ডের বিপক্ষে করে ৩৪৮ রান। জয়ী হয় ১৪ রানে। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে পাকিস্তান যদি জিতে যায় তাহলে পাঁচ নাম্বারে থাকবে দলটি। আর পরাজিত হলে সে ক্ষেত্রে তাদের পরবর্তী দু’টি ম্যাচ আফগানিস্তান ও বাংলাদেশের বিপক্ষে। এই দুই ম্যাচ জিতলেই যে পাকিস্তান সেমিফাইনাল খেলবে সেটি নিশ্চিত নয়। সে ক্ষেত্রে অন্যদের ফলাফলের দিকেও চোখ রাখতে হবে। তবে সব ম্যাচ জিতলে সেমিতে খেলার লড়াইয়ে এগিয়ে থাকবে তারাই।


আরো সংবাদ

জাভিকে হয়তো বার্সার কোচ হতে হবে, না হয় খুন করা হবে ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’ দাবিতে সুপ্রিম কোর্টে আইনজীবীদের পোস্টার নিষিদ্ধ হলেন লঙ্কান ক্রিকেট তারকা আন্দোলনকারীরা পদত্যাগ চাইলেও অনড় জাবি ভিসি ফারজানা বৃষ্টির পানি সংরক্ষণ, শ্রীলংকার অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে পারে বাংলাদেশ রিয়াল মাদ্রিদকে পেয়ে চোখও টিপলেন, জিহ্বাও বের করলেন অ‌নিয়‌মে ভ‌র্তিকৃতরা ডাকসুতে নেতৃত্ব দেয়ার অধিকার হারিয়েছে : ঢা‌বি সাদা দ‌ল ঢাকায় জুয়া খেলা, ক্লাব হাউজি থেকে ক্যাসিনো গফরগাঁওয়ে প্রাথমিক শিক্ষকদের মানববন্ধন জাবি ভিসিকে ‘ওয়ালাইকুম আসসালাম’ ক্যাসিনো ব্যবসায় প্রশাসনের কেউ জড়িত থাকলে ব্যবস্থা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সকল