২৬ জুন ২০১৯

মোবাইল ব্যাংকিং লেনদেন সীমা ৩ গুণ পর্যন্ত বাড়ল

-

মোবাইল ব্যাংকিংয়ে লেনদেনে সীমা ৩ গুণ পর্যন্ত বাড়াল বাংলাদেশ ব্যাংক। আগে যেখানে দিনে ২ বারে সর্বোচ্চ ১৫ হাজার টাকা ক্যাশইন করা যেতো। এখন তা বাড়িয়ে দিনে ৫ বার সর্বোচ্চ ৩০ হাজার টাকা ক্যাশইন করা যাবে। আর একজন গ্রাহক তার ব্যক্তি মোবাইল হিসেবে সর্বোচ্চ ৩ লাখ টাকা স্থিতি রাখতে পারবেন। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, মোবাইল ব্যাংকিংয়ে লেনদেনের সীমা বাড়ানোর ফলে হুন্ডি তৎপরতা আরো বেড়ে যেতে পারে। কমে যেতে পারে রেমিট্যান্স প্রবাহ।
জানা গেছে, মোবাইল ব্যাংকিংয়ে বিপুল পরিমাণ অর্থ হুন্ডির মাধ্যমে পাচারের প্রমাণ পায় বাংলাদেশ ব্যাংক। ফলে বিদেশ থেকে বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্য থেকে রেমিট্যান্স প্রবাহ বিপুল পরিমাণ কমে যায়। একই সাথে অবৈধ পথে বিশেষ করে ব্যাংকিং চ্যানেলের বাইরে মোবাইলে হুন্ডির মাধ্যমে রেমিট্যান্স আসার প্রবণতা বেড়ে যায়। মধ্যপ্রাচ্যের কয়েকটি দেশে বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা সরেজমিন পরিদর্শনে গিয়ে এমন অভিযোগের সত্যতা পায়।
বৈধপথে বিশেষ করে ব্যাংকিং চ্যানেলে রেমিট্যান্স প্রবাহ বাড়াতে ২০১৭ সালের ১১ জানুয়ারি এক সার্কুলারের মাধ্যমে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের লেনদেনের সীমা কমিয়ে আনে বাংলাদেশ ব্যাংক। ওই সময় দিনে ২ বারে একজন ব্যক্তির ক্যাশইন করার অনুমতি দেয়া হয় সর্বোচ্চ ১৫ হাজার টাকা এবং মাসে সর্বোচ্চ ২০ বারে এক লাখ টাকা। আর একজন ব্যক্তির দিনে ২ বারে ক্যাশআউট করার অনুমতি দেয়া হয় সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা এবং মাসে ১০ বারে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা।
বাংলাদেশ ব্যাংকের এমন নির্দেশনার পর মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে হুন্ডি তৎপরতা অনেকাংশে কমে এসেছিল। আর বৈধ পথে বিশেষ করে ব্যাংকিং চ্যানেলের মাধ্যমে রেমিট্যান্স প্রবাহ বেড়ে গিয়েছিল। কিন্তু মাত্র ২ বছরের মাথায় বাংলাদেশ ব্যাংক আবারো মোবাইল ব্যাংকিংয়ের লেনদেন সীমা ৩ গুণ পর্যন্ত বাড়িয়ে দিলো। এ বিষয়ে গতকাল বাংলাদেশ ব্যাংকের পেমেন্ট সিস্টেমস বিভাগ থেকে এ সার্কুলার জারি করা হয়েছে। গতকালই তা বিভিন্ন ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীকে অবহিত করা হয়েছে।
পুনর্নির্ধারিতসীমা অনুযায়ী এখন একজন ব্যক্তি দিনে সর্বোচ্চ ৫ বারে ৩০ হাজার টাকা ক্যাশইন করতে পারবে এবং মাসে ২৫ বারে করতে পারবে ২ লাখ টাকা। আর দিনে ৫ বার সর্বোচ্চ ক্যাশআউট করা যাবে ২৫ হাজার টাকা এবং মাসে ২০ বার দেড় লাখ টাকা ক্যাশআউট করা যাবে।
মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে লেনদেনের সীমা বাড়ানোর যুক্তিকতা তুলে ধরে বাংলাদেশ ব্যাংকের সার্কুলারে বলা হয়েছে, দেশের দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতির সাথে তাল মিলিয়ে চলতে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা বর্তমানে নতুন খাত সম্প্রসারণে যেমন রেমিট্যান্স বিতরণ, ই-কমার্স, ক্ষুদ্র ব্যবসা, বেতন প্রদান ইত্যাদি খাতে ভূমিকা রাখছে। পেমেন্ট ইকো সিস্টেমের পরিবর্তিত প্রেক্ষাপটে নতুন নির্দেশনা জারি করা হলো। ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট টু অ্যাকাউন্ট লেনদেন সীমা দিনে ১০ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ২৫ হাজার টাকা এবং মাসিক ২৫ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ৭৫ হাজার টাকা করা হয়েছে।
একজন গ্রাহক তার অ্যাকাউন্টে সর্বোচ্চ ৩ লাখ টাকা রাখতে পারবেন। আর ৫ হাজার টাকার বেশি লেনদেনে পরিচয়পত্র দেখাতে হবে। একই জাতীয় পরিচয়পত্র একই মোবাইল ব্যাংকিংয়ের সঙ্গে একটির বেশি অ্যাকাউন্ট রাখা যাবে না। গ্রাহকের সঙ্গে যোগাযোগ একটি বাদে অন্যগুলো বন্ধ করে দিতে হবে। এ ছাড়া এজেন্টরা এজেন্ট অ্যাকাউন্টে লেনদেন করতে পারবেন না। একজন এজেন্ট দিনে সর্বোচ্চ ৫ বার নিজের অ্যাকাউন্টে নগদ অর্থ জমা দিতে পারবেন।

 


আরো সংবাদ