১৬ নভেম্বর ২০১৮

ভিডিওতে দেখুন মাঠে সেদিন কী হয়েছিল?

বিশ্বকাপ, ব্রাজিল, নেইমার
ব্যাথায় 'কাতরাচ্ছেন' নেইমার (ডানে), তার পায়ের ওপর লায়ুনের পা (বামে, ভিডিও থেকে নেয়া) - সংগৃহীত

ব্রাজিলের খেলা শুরুর আগেই কথা উঠে নেইমারকে নিয়ে। না, তার খেলা নিয়ে নয়, মাঠে তার কাণ্ডকারখানা নিয়ে। প্রতিপক্ষ তার পারফরমেন্সের চেয়ে আতঙ্কে থাকেন মাঠে তার গড়াগড়ি নিয়ে। কারণ অল্পতেই কাতর হয়ে পড়েন তিনি, যা রেফারির কাছে এতোটাই বাস্তব মনে হয় যে, প্রতিপক্ষের জন্য বিপদ হয়ে দাঁড়ায়। সর্বশেষ মেক্সিকোর বিপক্ষে নক আউট পর্বের খেলার সময় আবারো একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হয়েছে। অবশ্য আগেই মেক্সিকান কোচ ও অধিনায়ক এ নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলেন, আমরা নেইমারের অভিনয় নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছি। তা-ই সত্যি হয়েছে মাঠে।

ঘটনাটি ছিল মেক্সিকোর মিগুয়েল লায়ুনকে নিয়ে। নেইমারের পায়ের গোড়ালিতে পা রাখতে দেখা গেছে তাকে আর তখনি ভয়ানক কাতরাতে আর গড়াগড়ি করতে দেখা যায় নেইমারকে। যদিও মেক্সিকানরা বলছে, নেইমার 'অতি অভিনয়' করেছেন।

মেক্সিকো কোচ জুয়ান কার্লোস ওসোরিও বলেন, "পিএসজি খেলোয়াড়ের অভিনয় ফুটবলের জন্য ভালো উদাহরণ নয়।"

এর আগে তার মাঠে নাটক বা অভিনয় নিয়ে কথা বললেও তাতে খুব একটা গা করেননি নেইমার।

জবাবে কি বলছেন নেইমার?

"আমার ওপর বাজেভাবে পা রাখা হয়েছিলো। আমি মনে করি এটা ছিল খেলার বাইরে। এটা হওয়া উচিত নয়।"

নেইমার বলেন, "কিন্তু এখন বিষয়টা হলো যে তারা ম্যাচের আগে অনেক বড় বড় কথা বলেছিল। অথচ এখন তারাই (মেক্সিকো)বাড়ি ফিরে যাচ্ছে।"

মেক্সিকোর বিরুদ্ধে নিজে এক গোল করেছেন আবার অন্য গোলটিতেও তার অবদান অনেক।

তবে এবার পুরো বিশ্বকাপ জুড়েই নেইমারের বিরুদ্ধে হুট করে পড়ে যাওয়া কিংবা গড়াগড়ি খাওয়ার অভিযোগ ওঠে। এর মাধ্যমে তার বিরুদ্ধে সময় নষ্ট করার অভিযোগ করেছেন মেক্সিকোর কোচ।

তিনি বলেন, "এটা ফুটবলের জন্যই লজ্জার। একজন খেলোয়াড়ের জন্য আমার অনেক সময় নষ্ট হয়েছে।''

"এটা যারা ফুটবল দেখেছে তাদের সবার ও যেসব শিশুরা দেখেছে তাদের জন্যও লজ্জার। কোনো অভিনয় করা উচিত নয়। আমি মনে করি এটা আমাদের গতি ও স্টাইলের ওপর প্রভাব ফেলেছে।"

তবে ব্রাজিলের কোচ তিতে শক্তভাবেই নেইমারের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। "তার ওপর পা দেয়া হয়েছিল। এটা বড় পর্দায় দেখেছি।''

ভিডিওতে দেখুন সেদিনের ঘটনা :

 

নেইমার কি ভুতের ভয় পান?

নেইমারের পড়ে যাওয়া কিংবা এসব 'নাটকে'র ঘটনা নিয়ে প্রতিক্রিয়া-পাল্টা প্রতিক্রিয়া হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। মাঠে ভুতের ভয়ে পড়ে যাচ্ছেন এমন কাল্পনিক ছবি তৈরি করে ট্রল করা হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। আর প্রকাশ্য সমালোচনা তো আছেই।

সাবেক ইংলিশ তারকা অ্যালান শিয়ারার বলছেন, "এটা অত্যন্ত দুঃখজনক। তার সামর্থ্য নিয়ে কোনো প্রশ্ন নেই।" আমরা ব্যাকহিল দেখলাম, ফিনিশিং দেখলাম কিন্তু আঘাত পাওয়ার ভয় করে মাঠে গড়াগড়ি খাওয়া দুঃখজনক।"

সাবেক জার্মান তারকা ইয়ুর্গেন ক্লিন্সম্যান বলেন, "পুরো খেলায় নেইমারকে কয়টা ফাউল করা হয়েছে। লায়ুনের চ্যালেঞ্জে তিনি অতি অভিনয় করেছেন? অবশ্যই। কিন্তু লায়ুনও পা রেখেছিল।"

 

আরো পড়ুন : নেইমারকে তুলোধুনো করলো ব্রাজিলের মিডিয়া

'নেইমার ব্রাজিলকে তৃপ্তি দিয়েছেন, কিন্তু বিশ্বকে বিরক্ত করেছেন'। মেক্সিকোকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে যাওয়ার পর ব্রাজিলের স্থানীয় পত্রিকা গ্লোবো এই শিরোনাম করেছে। মাঠে নেইমারের 'কাণ্ডকারখানা'র কয়েকটি ছবি দিয়ে করা প্রতিবেদন এমনটাই বলেছে। তাদের মতে, 'নেইমারের কীর্তি ছিল নিখুঁত কিন্তু বিরক্তিকর।'

যদিও এ মূহূর্তে বিশ্বের সবচেয়ে দামী খেলোয়াড়টির নাম নেইমার আর কোনো তর্ক ছাড়াই বলতে হয় লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর বিদায়ের পর বিশ্বকাপে টিকে থাকা একমাত্র সুপারস্টার।

পারফরমেন্সের কারণেই সোমবারের খেলায় তিনিই ছিলেন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। এমনকি দলের ২-০ গোলের দারুণ বিজয়েও তার অবদানই বেশি। তারপরেও নিরপেক্ষ বিশ্লেষকদের মধ্যে এখনো মোটেও জনপ্রিয় নন নেইমার। তবে দলের জয়ে অসাধারণ অবদান তারই। বল নিয়ে কসরত দেখিয়ে জায়গা বের করা দেখিয়েছেন তিনি। গতির সাথে স্কীল, বুদ্ধিমত্তার সাথে পেছনে পাস দেয়ার মাধ্যমে প্রথম গোলটির ক্ষেত্র তিনিই তৈরি করেছেন সোমবার সন্ধ্যায়।

কিন্তু সেখানে কিছুটা বিরক্তিও আর নাটকও ছিল যদিও এটা হতে পারে সামান্য সুবিধা আদায়ের চেষ্টা, যা সত্যিই ফুটবল মূল্যবোধের সাথে অসঙ্গতিপূর্ণ বলে অনেকে মনে করেন। মেক্সিকোর ফুল ব্যাক মিগুয়েল লায়ুন যখন ভদ্রভাবেই তার গোড়ালিতে পা রাখলেন তখনি নেইমার শুরু করলেন গড়াগড়ি, যেনো প্রচণ্ড ব্যথায় কাতর হয়ে পড়েছেন তিনি।

এটা সবারই দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। তার টীম মেটস, মেক্সিকোর খেলোয়াড়, রেফারি ও সহকারীরা, কর্মকর্তাসহ সবাই জড়িয়ে পড়েন এ ঘটনায়। প্রেস বক্সে বিবিসি সাংবাদিকের পাশে থাকা এক জার্মান সাংবাদিকের নির্ভার মন্তব্য ছিলো, "এটা নেইমার"।

আর এই নেইমার ও ব্রাজিলই শুক্রবার শেষ আটের খেলায় মুখোমুখি হবে বেলজিয়ামের। এবং ২৬ বছর বয়সী এই পিএসজি তারকাই খেলার সেরা খেলোয়াড় হয়েছেন। সে কারণে পরে সাক্ষাতকার দিতে আসার পর এ বিষয়ক প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়েছে তাকে, তবে এর উত্তর দিয়েছেন কোচ তিতে। "তারা তাকে পা দিয়ে মাড়িয়েছে। আমি বড় পর্দায় দেখেছি।" পরে নেইমার প্রশ্নকর্তাকে বলেন, "এটা আমাকে ছোটো করার অপপ্রয়াস ছাড়া আর কিছুই নয়।"।

তিনি বলেন, ‘সমালোচনা বা প্রশংসাকে আমি পরোয়া করি না। গত দুটি ম্যাচের পর আমি প্রেসের সাথে কথা বলিনি, কারণ আমি সেটি চাইনি। আমাকে শুধু খেলতে হবে, টীম-মেটদের সহায়তা করতে হবে ও দলকে সাহায্য করতে হবে’।

কিন্তু সবাই বিষয়টিকে এতো সহজ করে দেখছেন না। বিবিসি রেডিও ফাইভে অ্যাস্টন ভিলার সাবেক খেলোয়াড় ডিওন ডাবলিন বলেছেন, ‘নেইমারের জন্য আমি বিব্রত। তিনি বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়দের একজন। কিন্তু তিনি যখন মাঠে গড়াগড়ি খান সেটা মেনে নিতে পারি না।" নেইমারকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, "কাম অন ইয়াংম্যান। তুমি এর চেয়ে ভালো খেলোয়াড়। উঠে আসো এবং খেলো।’ (৩ জুলাই ২০১৮, প্রকাশিত সংবাদ)


আরো সংবাদ