১৫ নভেম্বর ২০১৮

আজ উত্তেজনার পারদ আরো চড়বে

বিশ্বকাপ
নক আউট পর্বে উত্তেজনার পারদ চড়বে - সংগৃহীত

বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ড শেষে আজ থেকে শুরু হচ্ছে দ্বিতীয় রাউন্ড। মোট ৬৪টি ম্যাচের মধ্যে ৪৮টি অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাকি আছে ১৬টি ম্যাচ। আজ শুরু হচ্ছে নক আউট পর্ব। উত্তেজনার পারদ আরো চড়বে এই রাউন্ড থেকে। কারণ যারা বাদ পড়বে তারাই বিদায় নিবে বিশ্বকাপ থেকে। তাই প্রতিটি ম্যাচই হবে শ্বাসরুদ্ধকর। দ্বিতীয় রাউন্ডের প্রথম ম্যাচটি হবে আর্জেন্টিনা ও ফ্রান্সের মধ্যে। রাত ৮টায় ম্যাচটি শুরু হবে। দ্বিতীয় ম্যাচটিতে মুখোমুখি হবে পর্তুগাল ও উরুগুয়ে। রাত ১২টায় ম্যাচটি শুরু হবে।

গ্রুপ সি'র শীর্ষ দল ফ্রান্স। তাদের সাথে আজ লড়বে ডি গ্রুপের দ্বিতীয় স্থানে থাকা আর্জেন্টিনা।

আর গ্রুপ এ'র শীর্ষ দল উরুগুয়ের সাথে মোকাবেলা করবে গ্রুপ বি'র দুই নম্বরে থাকা পর্তুগাল।

চার দলের স্কোয়াড :

প্রথম ম্যাচ : ফ্রান্স vs আর্জেন্টিনা

ফ্রান্স

গোলরক্ষক : স্টিভ মানদান্দা, আলফোনসে আরিওলা, হুগো লরিস।

ডিফেন্ডার : লুকাস হার্নান্দেজ, প্রেসনেল কিমপেম্বে, বেঞ্জামিন মেন্দি, বেঞ্জামিন পাভার্ড, আদিল রামি, জিব্রিল সিদিবে, স্যামুয়েল উমতিতি, রাফায়েল ভারানে।

মিডফিল্ডার : এনগুলো কান্তে, ব্লেইস মাতুইদি, স্টিভেন এনজোনজি, পল পগবা, ক্লোরেনতিন তোলিসো।

ফরোয়ার্ড : ওসমান ডেম্বেলে, নাবিল ফেকির, অলিভার জিরু, আন্তোনিও গ্রিজম্যান, থমাস লেমার, কিলিয়ান এমবাপে, ফ্লোরিয়ান থাওভিন।

আর্জেন্টিনা

গোলরক্ষক : নাহুয়েল গুজমেন, ফ্রাঙ্কো আরমানি, উইলি কাবায়েরো।

ডিফেন্ডার : গ্যাব্রিয়েল মারকাদো, ফেডেরিকো ফ্যাজিও, নিকোলাস ওটামেন্ডি, ক্রিস্টিয়ান আনসালদি, নিকোলাস ত্যাগলিয়াফিকো, মার্কোস রোহো।

মিডফিল্ডার : এভার বানেগা, জেভিয়ার মাসচেরানো, এডুয়ার্ডো সালভিও, লুকাস বিলিয়া, অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া, জিওভানি লো সেলসো, এনজো পেরেস, ম্যাক্সিমিলিয়ানো মেজা, মার্কোস অ্যাকুনা।

ফরোয়ার্ড : লিওনেল মেসি, ক্রিশ্চিয়ান পাভোন, পাওলো দিবালা, সার্জিয়ো আগুয়েরো, গঞ্জালো হিগুয়েইন।

দ্বিতীয় ম্যাচ : উরুগুয়ে vs পর্তুগাল

উরুগুয়ে

গোলরক্ষক : ফার্নান্দো মুসলেরা, মার্টিন সিলভা, মার্টিন কামপানা।

ডিফেন্ডার : মার্টিন ক্যাসেরাস, সেবাস্টিয়ান কোতেস, হোসে মারিয়া গিমেনেজ, দিয়েগো গোডিন, ম্যাক্সিমিলিয়ানো পেরেইরা, গ্যাস্টন সিলভা, গুইলারমো ভারেলা।

মিডফিল্ডার : গিওর্গিয়ান ডি আরাসকায়েটা, রদ্রিগো বেনটানকার, দিয়েগো লাক্সাল্ট, নাহিটান নানডেজ, ক্রিস্টিয়ান রডরিগুয়েজ, কার্লোস সানচেজ, লুকাস টোরেইরা, মাটিয়াস ভেসিনো।

ফরোয়ার্ড : এডিনসন কাভানি, ম্যাক্সিমিলিয়ানো গোমেজ, লুইস সুয়ারেজ, ক্রিস্টিয়ান স্টুয়ানি।

পর্তুগাল

গোলরক্ষক : অ্যান্থোনি লোপেজ, বেতো, রুই প্যাট্রিসিয়া।

ডিফেন্ডার : ব্রুনে আলভেজ, কেডরিক, হোসে ফন্তে, মারিও রুই, পেপে, রাফায়েল গুয়েরেইরো, রিকার্ডো পেরেইরা, রুবেন ডিয়াজ।

মিডফিল্ডার : অ্যাদ্রিয়েন সিলভা, ব্রুনো ফার্নান্দেজ, হোয়াও মারিও, জোয়াও মুতিনহো, ম্যানুয়েল ফার্নান্দেজ, উইলিয়াম কার্ভালহো।

ফরোয়ার্ড : আন্দ্রে সিলভা, বার্নার্ডো সিলভা, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, জেলসন মার্টিন্স, গনক্যালো গুয়েদেস, রিকার্ডো কারেসমা।

 

আরো পড়ুন : যে ক্ষেত্রে মেসিরা ফ্রান্সের চেয়ে এগিয়ে

আর্জেন্টিনা-ফ্রান্স। বিশ্ব চ্যাম্পিয়ান হওয়ার গৌরব রয়েছে দুই দলেরই। এই দুই দলের খেলা দিয়েই শনিবার শুরু হচ্ছে রাশিয়া বিশ্বকাপের শেষ ষোলোর লড়াই। সাবেক দুই বিশ্বচ্যাম্পিয়নের লড়াইয়ে পরিসংখ্যান অবশ্য আর্জেন্টিনারই পক্ষে। এখন পর্যন্ত ১১ বার মুখোমুখি হয়েছে দুই দল, আর্জেন্টিনা জিতেছে ছয়বার, তিনবার ড্র এবং দুটি ম্যাচে ফ্রান্স জিতেছে।

শুধু তাই নয়, কোনো প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে এখনো জিততে পারেনি ফ্রান্স। যে দুটি ম্যাচ জিতেছে ফ্রান্স, দুটিই আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ।

ফ্রান্স ও আর্জেন্টিনা দুই দল প্রথম মুখোমুখি হয়েছিল ১৯৩০ সালের বিশ্বকাপে। সেবার আর্জেন্টিনা ১-০ গোলে জিতেছিল। ৩৫ বছর পর ১৯৬৫ সালে আবার দুই দল মুখোমুখি হয় আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে, সোবার অবশ্য গোলশূন্য ড্র হয়েছিল।

১৯৭১ সালে আবার প্রীতি ম্যাচে মুখোমুখি হয় দুই দল, অবশ্য সেবার ৪-৩ গোলে জেতে ফ্রান্স। একই বছর দ্বিতীয় ম্যাচে দুই দলের লড়াইয়ে অবশ্য আর্জেন্টিনা ২-০ গোলে জিতেছিল।

এ ছাড়া ১৯৭২ সালে ড্র, ১৯৭৪ সালে আর্জেন্টিনার জয়, ১৯৭৭ সালে ড্র এবং ১৯৭৮ সালের বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা জিতেছে। এ ছাড়া ১৯৮৬ সালে ফ্রান্স জিতেছে এবং ২০০৭ ও ২০০৯ সালে জিতেছে আর্জেন্টিনা।

এবারের বিশ্বকাপে দুই দলের লড়াইটি কেমন হয় সেটাই এখন দেখার। অবশ্য গ্রুপ পর্বে থেকে শেষ ষোলোতে আসতে বেশ ঘাম ঝরাতে হয়েছে আর্জেন্টিনাকে। মেসিরা ‘ডি’ গ্রুপ রানার্সআপ হয়ে এবং ফ্রান্স বেশ দাপট দেখিয়ে ‘সি’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই নকআউট পর্বে ওঠে।


আরো সংবাদ