২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

ফাইনালের স্বপ্ন দেখছেন হিগুয়েন

বিশ্বকাপ, ফুটবল, আর্জেন্টিনা
ফাইনালের স্বপ্ন দেখছেন হিগুয়েন - নয়া দিগন্ত

একটি জয় পাল্টে দিয়েছে পুরো আর্জেন্টিনা দলকে। ধুকতে থাকা দলটি এখন আত্মবিশ্বাসে ফুটছে। এই জয়ের পর স্ট্রাইকার গঞ্জালো হিউয়েন তো ১৫ জুলাই ফাইনাল খেলার স্বপ্ন দেখছেন। নাইজেরিয়াকে হারানোর পর আর্জেন্টাইনদের এই আশা মনে জাগতেই পারে।

মিস মাস্টার হিগুয়েনের মতে, ‘আমরা ছন্দে ফিরেছি। ভালো সুযোগ তৈরি হয়েছে সামনে এগুনোর। এখন আমাদের লক্ষ্য ফাইনাল খেলা।’

ফ্রান্সে জন্ম হয়েছে হিগুয়েনের। আর এই ফ্রান্সের বিপক্ষেই দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচ আর্জেন্টিনার। তাই হিগুয়েনের জন্য ম্যাচটি বিশেষ কিছু। বলেন, ‘আমার কাছে অন্যরকম ম্যাচ এটি। এই প্রথম খেলতে যাচ্ছি ফ্রান্সের বিপক্ষে।’

গত বিশ্বকাপের ফাইনালে সহজ গোলের সুযোগ হাতছাড়া করেছিলেন হিগুয়েন। পরপর দুই কোপা আমেরিকার ফাইনালে আবার গোল মিস করেছেন তিনি। পরশু নাইজেরিযার বিপক্ষে ফের গোল করতে ব্যর্থ ইতালিয়ান লিগে খেলা এই ফুটবলার। দুটি সুযোগ হাতছাড়া করেন। তবে আগের তিন ম্যাচের মতো অবশ্য এবার হারেনি আর্জেন্টিনা।

নাইজেরিয়ার বিপক্ষে গোল মিস সম্পর্কে বলেন, ‘বল খুব দ্রুত এসেছিল আমার কাছে। তাই বল আমার পায়ে লেগে বার উচিয়ে চলে যায়।’

ইনজুরি কাটিয়ে ফেরা এবং জয়সূচক গোল করা মার্কোস রোহোর প্রশংসা করে বলেন, 'জয়ের পর অনেক ফুটবলারই তাদের আবেগ ধরে রাখতে পারেনি। কেঁদেছে তারা।'

 

আরো পড়ুন : 'মেসি আর্জেন্টিনাকে শতভাগ দেন না, এটা সত্য না'

নাইজেরিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে জয়ের পর লিওনেল মেসি বলেছেন, "এর আগে কখনো তিনি এতটা ভোগেননি।"

বিশ্বকাপ থেকে দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের বিদায় প্রায় নিশ্চিত হয়েই যাচ্ছিল। শেষমুহূর্তে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ডিফেন্ডার মার্কোস রোহো আর্জেন্টাইনদের হয়ে জয়সূচক গোলটি করেন।

টুর্নামেন্টের শুরুটা ভালো হয়নি আর্জেন্টিনার। নিজেদের দুর্বলতা দূর করে টুর্নামেন্টের পরবর্তী অংশে কি শক্তিশালী দল হিসেবে ফিরে আসতে পারবে তারা? সেটা সময়ই বলে দিবে।

তবে আর্জেন্টিনার পুরো দলকেই এবার নানা ধরণের সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে। ক্রোয়েশিয়ার কাছে ৩-০ গোলে হারার পর এই দলকে আর্জেন্টিনার "ইতিহাসের সবচেয়ে বাজে" দলও বলা হয়েছে।

কোচ সাম্পাওলি সমর্থকদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন এমন গুজবও উঠেছে।

ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধ শুরুর আগে টানেলে মেসিকে দেখা যায় দলের খেলোয়াড়দের নির্দেশনা দিতে। মেসি বলেন, "খুবই কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে ছিলাম আমরা।"

"আমাদের জন্য এটি বড় ধরণের একটি পরিত্রাণ ছিল বলা যায়। শেষ ম্যাচে হারের পর এই জয় দলের সবার জন্যই দারুণ স্বস্তি এনে দিয়েছে। সৌভাগ্যজনকভাবে আমরা লক্ষ্য অর্জন করতে পেরেছি।"

ম্যাচ শেষে কোচ সাম্পাওলি ও প্রশংসা করেন।

মেসি তার জাতীয় দলের হয়ে শতভাগ খেলেন না, এমন গুজব সত্য নয় বলে মন্তব্য করেন সাম্পাওলি।

সাম্পাওলি বলেন, "মেসি প্রত্যেক ম্যাচেই প্রমাণ করেন যে, তিনি অন্য সবার চেয়ে উঁচুমাপের খেলোয়াড়। কিন্তু তারও দলের সদস্যদের কাছ থেকে সমর্থন প্রয়োজন।"

"মেসির মানবিক দিকগুলো অসাধারণ। দলের খারাপ সময়ে তিনিও কষ্ট পান, অনেক সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন। অনেকে বলেন, তিনি আর্জেন্টিনার জন্য খেলা উপভোগ করেন না, কিন্তু আমি এই ধারণার সাথে একমত পোষণ করি না।"

সাম্পাওলি বলেন, "আমার দলের খেলোয়াড়রা প্রত্যেকে হৃদয় দিয়ে খেলে, তারা প্রত্যেকে সত্যিকারের যোদ্ধা।"

প্রতি দশকে গোল - মেসির পরিসংখ্যান

- কৈশোরে অর্থাৎ টিনএজে, বিশের কোঠায় ও ত্রিশের কোঠায় বিশ্বকাপে গোল করা প্রথম খেলোয়াড় মেসি।

- নাইজেরিয়ার বিপক্ষে গোলটি ছিল মেসি'র ষষ্ঠ বিশ্বকাপ গোল। বিশ্বকাপে করা মেসি'র ৬টি গোলের তিনটিই নাইজেরিয়ার বিপক্ষে (২০১৪'তে দু'টি আর এই বিশ্বকাপে একটি)

- গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতা (১৯৯৪,১৯৯৮ ও ২০০২) আর ডিয়েগো ম্যারাডোনার (১৯৮২,১৯৮৬ ও ১৯৯৪) পর তৃতীয় আর্জেন্টাইন হিসেবে তিনটি বিশ্বকাপে গোল করলেন মেসি (২০০৬,২০১৪ ও ২০১৮)

- নাইজেরিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে মেসি'র গোলটি ছিল ২০১৮ বিশ্বকাপের ১০০তম গোল।

- ম্যাচে ৭টি ড্রিবল পূর্ণ করেন মেসি, যার ফলে বিশ্বকাপে মোট ১০৭টি ড্রিবল পূর্ণ করেন তিনি। ১৯৬৬ সালের পর থেকে বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশিবার ড্রিবল পূর্ণ করার রেকর্ড করলেন তিনি। ১০৫টি পূর্ণ ড্রিবল নিয়ে এর আগের রেকর্ডটি ছিল দিয়েগো ম্যারাডোনার।


আরো সংবাদ

Hacklink

ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme