২১ নভেম্বর ২০১৮

শুধু জিতলেই নক আউটে যাবে না আর্জেন্টিনা, আছে খুঁটিনাটি অনেক হিসেব

মেসি, বিশ্বকাপ, আর্জেন্টিনা
লিওনেল মেসি - সংগৃহীত

বিশ্বকাপের ডি গ্রুপের শেষ রাউন্ডের ম্যাচে আজ মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা-নাইজেরিয়া এবং ক্রোয়েশিয়া-আইসল্যান্ড। এরই মধ্যে দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠে গেছে ক্রোয়েশিয়া। আর বাকি তিন দলেরই এখনও সুযোগ রয়েছে নক আউট পর্বে যাওয়ার। তবে এনিয়ে রয়েছে নানা হিসেব-নিকেশ। আর্জেন্টিনার জন্য দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলা নিশ্চিত করতে হলে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে জয়ের কোনো বিকল্প নেই।

শুধু জিতলেই তারা দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে পারবে না। আর্জেন্টিনাকে তাকিয়ে থাকতে হবে ক্রোয়েশিয়া-আইসল্যান্ড ম্যাচের দিকে।

বিবিসির ক্রীড়া সাংবাদিক ক্রিস বেভান মনে করেন ক্রোয়েশিয়ার সাথে হতাশাজনক খেলার পরেও ডি গ্রুপ থেকে আর্জেন্টিনা দ্বিতীয় রাউন্ডে যাবে।

"আর্জেন্টিনার খেলোয়াড়রা বৈঠক করেছে এবং ম্যানেজার সাম্পোলিকে বরখাস্তের দাবি করেছেন। এতে আমি অবাক হয়নি। দলের মধ্যে কিছু একটা ঘটছে। এর ফলে লিওনেল মেসি এবং সার্জিও অ্যাগুয়েরোর কাছ থেকে ভালো কিছু আসবে," বলছিলেন ক্রিস বেভান।

বেভান মনে করেন আর্জেন্টিনা জয়লাভ করবে। কিন্তু সেটা তাদের জন্য যথেষ্ট হবে কী-না।

নাইজেরিয়ার ভাগ্য তাদের হাতে রয়েছে। তারা জানে শুধু একটি পয়েন্ট হলেই দ্বিতীয় রাউন্ডে চলে যাবে নাইজেরিয়া।

গ্রুপের হিসেব-নিকেশ

ক্রোয়েশিয়া এরই মধ্যে দ্বিতীয় রাউন্ডে পৌঁছেছে। আইসল্যান্ডের বিপক্ষে শুধু ড্র করলেই তারা গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হবে।

আর্জেন্টিনার বিপক্ষে জয়লাভ করলে নাইজেরিয়া দ্বিতীয় রাউন্ডে যাবে। আইসল্যান্ড যদি ক্রোয়েশিয়াকে পরাজিত না করে তাহলে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে নাইজেরিয়ার ড্র করলেই চলবে।

আর্জেন্টিনা এবং নাইজেরিয়া যদি ড্র করে এবং আইসল্যান্ড যদি ক্রোয়েশিয়াকে ২-০ গোলে পরাজিত করে, তাহলে আইসল্যান্ড দ্বিতীয় রাউন্ডে পৌঁছবে।

একদিকে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে জয় এবং একই সাথে নাইজেরিয়ার চেয়ে একটি গোল বেশি থাকলেই আইসল্যান্ড দ্বিতীয় রাউন্ডে যাবে।

আর্জেন্টিনার হিসেবটা একটু ভিন্ন।

তারা যদি নাইজেরিয়াকে পরাজিত করে এবং অন্যদিকে আইসল্যান্ড যদি ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে জয়লাভ করতে না পারে, তাহলে আর্জেন্টিনা দ্বিতীয় রাউন্ডে যাবে।

আইসল্যান্ড ক্রোয়েশিয়াকে পরাজিত করলেও আর্জেন্টিনার জন্য দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে যদি তারা নাইজেরিয়াকে দুটির বেশি গোল দিয়ে পরাজিত করতে পারে।

যদি আর্জেন্টিনা এবং আইসল্যান্ড উভয়ই জয়লাভ করে এবং তাদের গোল সংখ্যাও যদি একই রকম হয়, তাহলে উভয়দলের শৃঙ্খলা এবং অন্যান্য বিষয়গুলো সামনে আসবে।

আর্জেন্টিনার তিনজন খেলোয়াড় এখনো পর্যন্ত হলুদ কার্ড পেয়েছে। অন্যদিকে আইসল্যান্ডের একজন খেলোয়াড় হলুদ কার্ড পেয়েছে।

'আর্জেন্টিনার জন্য নতুন ইতিহাস তৈরি হবে'

কোচ ইয়র্গে সাম্পোলি সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, নাইজেরিয়ার সাথে শক্ত লড়াই হবে।

ক্রোয়েশিয়ার সাথে পরাজয়ের পর এ সপ্তাহ তাদের জন্য বেশ কঠিন ছিল বলে তিনি উল্লেখ করেন। তবে নাইজেরিয়ার বিরুদ্ধে জয়ের আশা করছেন সাম্পাওলি।

আর্জেন্টিনার কোচ বলেন, পাঁচটি ফাইনাল ম্যাচের মধ্যে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে ম্যাচটি হচ্ছে প্রথম ফাইনাল।

অর্থাৎ তিনি বোঝাতে চেয়েছেন যে বিশ্বকাপ জিতে হলে এখন থেকে পাঁচটি ম্যাচ জিততে হবে।

আজ আসল আর্জেন্টিনাকে দেখা যাবে বলে নিশ্চিত সাম্পোলি।

 

আরো পড়ুন : মেসির জ্বলে উঠার অপেক্ষায়...

নাইজেরিয়ার বিপক্ষে মঙ্গলবার বাঁচা-মরার লড়াইয়ে মাঠে নামছে লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা। আর বিশ্বকাপে টিকে থাকার শেষ সুযোগের এই ম্যাচে পুরো বিশ্বের সাথে জাতীয় দলের সতীর্থরাও মেসির জ্বলে ওঠার অপেক্ষায় থাকবে।

গ্রুপ-ডি’র দুই রাউন্ড শেষে গতবারের রানার্স-আপ দলটি এখন বিদায়ের দ্বারপ্রান্তে। রাশিয়া বিশ্বকাপে অভিষিক্ত নবাগত আইসল্যান্ডের সাথে ১-১ গোলে ড্র ও তারকা সমৃদ্ধ ক্রোয়েশিয়ার কাছে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত হয়েছে আর্জেন্টিনা।

টুর্নামেন্টের আগেই মেসিকে নিয়ে একটি আলোচনায় সরব ছিল পুরো ফুটবল বিশ্ব। এবারের বিশ্বকাপ কি মেসির জন্য সৌভাগ্যের বার্তা বয়ে আনবে কিনা। ফুটবলীয় ক্যারিয়ারে তার চির প্রতিদ্বন্দ্বি ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো পর্তুগালের জন্য ২০১৬ ইউরো শিরোপা উপহার দিয়েছেন। কিন্তু মেসি আধুনিক যুগের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় হওয়া সত্ত্বেও জাতীয় দলের হয়ে বড় কোনো সাফল্য এখনো হাতে পাননি।

টিকে থাকার লড়াইয়ে সেন্ট পিটার্সবার্গে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে জয়ের বিকল্প নেই। একইসাথে ইতোমধ্যেই নক আউট পর্ব নিশ্চিত করা ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে আইসল্যান্ড যেন কোনো সাফল্য না পায় সেদিকেও তাকিয়ে থাকতে হবে আলবে সেলেস্তাদের।

বৃহস্পতিবার ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে বিধ্বস্ত হওয়ার ম্যাচটি যেন কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছেনা আর্জেন্টাইন সমর্থকরা। ১৯৮৬ বিশ্বকাপ জয়ী দলের অধিনায়ক ও কিংবদন্তী তারকা দিয়েগো ম্যারাডোনা দলের প্রধান কোচ জর্জ সাম্পাওলি ও তার মেথড নিয়ে প্রচণ্ড সমালোচনা করেছেন। এমনকি সারা বিশ্ব জুড়ে গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে এমন গুঞ্জনও শোনা গেছে কোচের বিপক্ষে খোদ আর্জেন্টাইন খেলোয়াড়রাই বিদ্রোহ ঘোষণা করেছেন। যদিও আর্জেন্টাইন ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ক্লডিও টাপিয়া পুরো বিষয়টিকে ভ্রান্ত ধারণা বলে উড়িয়ে দিয়েছেন।

এ সম্পর্কে আর্জেন্টাইন ফুটবল প্রধান বলেন, সত্যিকার অর্থে সাংবাদিকরা অনেক শক্তিশালী। এটা ভুললে চলবে না যে যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে তারা কাজ করে থাকে। তাদের হাতে সেই ধরনের ক্ষমতা আছে। তবে পুরো বিষয়টি একেবারেই মিডিয়ার তৈরি। তারা কোচিং স্টাফদের সরাসরি অনুশীলনে দেখতে পায়। পুরো দলের অনুশীলন তারা প্রত্যক্ষ করে। সেখানে তাদের চোখে অনেক কিছুই ধরা পড়তে পারে। কিন্তু আমি একটি বিষয় নিশ্চিত করে বলতে পারি এ ধরনের কিছুই জাতীয় দলের মধ্যে ঘটেনি।

টুর্নামেন্টের হট ফেবারিট আর্জেন্টিনা যেখানে বাঁচা মরার লড়াইয়ের মুখোমুখি সেখানে প্রতিপক্ষ নাইজেরিয়ান পরের রাউন্ডে যেতে হলে ড্র করলেই চলবে। তবে সেক্ষেত্রে আইসল্যান্ড যদি ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে দেয় তবে সমীকরণ সম্পূর্ণ পাল্টে যাবে। তবে সবকিছুর পরেও নাইজেরিয়াও ভালভাবেই জানে মেসি জ্বলে উঠলে সেটা তাদের জন্য সমস্যাই বয়ে আনবে। যদিও দলের প্রস্তুতিতে মেসিকে আটকানোর সব ধরনের পরিকল্পনা করা হয়েছে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন দলের ডিফেন্ডার উইলিয়াম ট্রুস্ট-একং।

তিনি বলেন, এই প্রথমবার আমরা এমন একটি দলের বিপক্ষে খেলছি যাদের সব খেলোয়াড়ই ভালো। আমরা আমাদের সুযোগগুলো কাজে লাগিয়ে ম্যাচে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করবো।

আইসল্যান্ডের বিপক্ষে আহমেদ মুসার করা দুই গোলের নাইজেরিয়ার জয় নিশ্চিত হয়েছিল। আর তারপর থেকেই আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ম্যাচের আগে মেসির পাশাপাশি মুসার নামও সবার মুখে মুখে শোনা যাচ্ছে। আর পুরো বিষয়টি বেশ উভোগ করছেন মুসা।

দুই দলের এ পর্যন্ত খেলা আটটি ম্যাচেই চারটি হয়েছে বিশ্বকাপে যার মধ্যে সবকটিতেই জয়ী হয়েছে শক্তিশালী আর্জেন্টিনা। ১৯৯৮ সালের পরে প্রথমবারের মত পরপর দুটি বিশ্বকাপের ম্যাচে জয়ের অপেক্ষায় রয়েছে নাইজেরিয়া।

 

আরো পড়ুন : কোটি কোটি আর্জেন্টাইন ভক্তকে বিশ্বকাপজয়ের আনন্দে ভাসাতে চাই : মেসি

বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ড এখনও নিশ্চিত হয়নি আর্জেন্টিনার। প্রথম ম্যাচে আইসল্যান্ডের সাথে ড্র আর দ্বিতীয় ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার কাছে শোচনীয় পরাজয়ের পর সমালোচনার ঝড় বইছে। গত আসরের ফাইনালে জার্মানির কাছে হারের পর অঝোর ধারায় কাঁদা মেসি অবসরের ঘোষণা দিয়েছিলেন। শেষ পর্যন্ত সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন তিনি। এবার দুই ম্যাচের এই ফলাফলের পর হতাশায় ডুবে গেছে আর্জেন্টাইনরা। কোচ সাম্পাওলির সাথে কেউ কেউ তো মেসিকে অবসরও নিতে বলছেন। তবে মেসি বলছেন অন্য কথা। বিশ্বকাপ না জিতে অবসর নিবেন না তিনি। কারণ তার স্বপ্ন যে, দুই হাতে বিশ্বকাপের শিরোপা উঁচিয়ে ধরা।

এই স্বপ্ন পূরণ করতে হলে আর্জেন্টিনাকে শেষ ম্যাচে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে জিততেই হবে। পাশাপাশি নজর রাখতে হবে আইসল্যান্ড ও ক্রোয়েশিয়ার ম্যাচের দিকে। আইসল্যান্ড যদি ক্রোয়েশিয়ার বিরুদ্ধে বড় ব্যবধানে জিতে তাহলে পরের রাউন্ডে যেতে পারবে না আর্জেন্টিনা। এই দুঃস্বপ্ন নিয়ে এখনই ভাবতে চান না মেসি। শুধু ভক্তদের আশ্বস্ত করেত চান, বিশ্বকাপ না জিতে অবসর নিবেন না তিনি।

ফুটবলের এই জাদুকর বলেন, 'আমি সব সময় বিশ্বকাপের শিরোপা উঁচিয়ে ধরে রাখার স্বপ্ন দেখেছি। এরপর আনন্দে ভেসে যাওয়ার স্বপ্নও দেখেছি। এ মুহূর্তটি মনে হলে আমার মাথার চুল পর্যন্ত দাড়িয়ে যায়। আমি বিশ্বের কোটি কোটি আর্জেন্টাইন ভক্তকে এই আনন্দে ভাসাতে চাই। এই স্বপ্ন কিছুতেই বিসর্জন দিতে পারব না।'

মেসি আরো বলেন, 'আমি গুরুত্বপূর্ণ সব কয়টি টুর্নামেন্ট জিতেছি। দিন শেষে আমি কিন্তু উচ্চবিলাসীই। আমি আমার দেশের জন্য বিশ্বকাপ না জিতে অবসর নিবো না।'

আগামীকাল নাইজেরিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামবে মেসির আর্জেন্টিনা।- দ্য সান


আরো সংবাদ