২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

সম্মানের সাথে বিদায় নিতে চায় মিসর-সৌদি আরব

সালাহ, বিশ্বকাপ,
মোহাম্মদ সালাহ - সংগৃহীত

মিসর এবং সৌদি আরবের নিজেদের তৃতীয় ম্যাচ থেকে হারানোর কিছু নেই। তবে এই দুই দেশ গ্রুপ ‘এ’ থেকে তৃতীয় স্থান নিয়ে কিছুটা সম্মানের সাথে যেতে চায়। সেটা তখনই সম্ভব গ্রুপের নিচের দিকে থাকা এ দুই দলের লড়াইয়ে যে দল জিতবে। ভলগগ্রাদ এরিনায় এই দুই দল মুখোমুখি হবে এবং নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচে পরাজিত হয়ে মোহাম্মদ সালাহর মিসর এবং সবুজ বাজপাখিখ্যাত সৌদি আরবের বিশ্বকাপ শেষ হয়ে গেছে এবং নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে তাদের হারানোর কিছু নেই। বিশেষ করে ফারাওখ্যাত মিসরীয়দের জন্য রাশিয়া বিশ্বকাপ ছিল খুবই হতাশাজনক। বিশ্বকাপের আগই তারা বেশ বড় আঘাত পেয়েছিল। তারা জানত, সেরা তারকা ফুটবলার মোহাম্মদ সালাহ কাঁধের ইনজুরি নিয়ে আছেন এবং প্রথম ম্যাচে তাকে নাও পাওয়া যেতে পারে।

মিসর নিজেদের প্রথম ম্যাচে উরুগুয়ের বিপক্ষে ১-০ গোলে পরাজিত হয় এবং দ্বিতীয় ম্যাচে স্বাগতিক রাশিয়ার কাছে তারা ৩-১ গোলে বিধ্বস্ত হয়। সৌদি আরবের বিশ্বকাপ আরো হতাশজনকভাবে শুরু হয়েছিল রাশিয়ার বিপক্ষে ৫-০ গোলের পরাজয় তাদের লজ্জা এনে দিয়েছিল। এ বিশ্বকাপের দুই ম্যাচ থেকে তারা কোনো গোল করতে পারেনি এবং বিপরীতে গোল খেয়েছে ছয়টি।

সৌদি আরব গ্রুপ ‘এ’ থেকে দ্বিতীয় পর্বে যাওয়ার লড়াইয়ে কখনোই সামনের কাতারে ছিল না। কিন্তু স্বাগতিক রাশিয়াও ছিল না কিন্তু পূর্ব ইউরোপের দেশটির বিপক্ষে গ্রিন বাজপাখিদের অসহায় আত্মসমর্পণ তাদের ভক্ত-সমর্থকদের শুধু লজ্জা দিয়েছে। অপর দিকে রাশিয়া গ্রুপ পর্বে সব দেশের মধ্যে সবচেয়ে ভালো গোলপার্থক্য উপভোগ করছে। বিশ্বকাপের আগেই মিসর বেশ বড় একটা ধাক্কা খেয়েছিল। গত উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে খেলতে নেমে তাদের সেরা তারকা ফুটবলার লিভারপুলের মোহাম্মদ সালাহ কাঁধে আঘাত পেয়েছিল এবং শেষ পর্যন্ত এ বিশ্বকাপে সে অংশ নিলেও তাকে অলরেডদের হয়ে সেই ধ্বংসাত্মক রূপে দেখা যায়নি।

মিসর ৩০ বছর পর আবার বিশ্বকাপ ফুটবলে ফেরত এসেছে। ১৯৯০ বিশ্বকাপে তারা সর্বশেষ অংশ নিয়েছিল। মোহাম্মদ সালাহবিহীন ম্যাচে উরুগুয়ের বিপক্ষে মিসর ১-০ গোলে পরাজিত হয় এবং দ্বিতীয় ম্যাচে মিসর হারলেও একটি পেনাল্টি পেয়েছিল রাশিয়ার বিপক্ষে এবং সেটি থেকে স্পট কিকে লক্ষ্য ভেদ করে মোহাম্মদ সালাহ। চেরচেসভের রাশিয়ার বিপক্ষে শুধু তৃতীয় হওয়ার জন্য খেলাটাই মিসরের জন্য বেশ বড় আঘাতের। যদিও এ ম্যাচে সালাহ অসাধারণ খেলে গোল করলেও তার দেশ দ্বিতীয় পর্বে যাবে না।

এ ম্যাচ থেকে দুই দলের প্রাপ্তির কিছু না থাকলেও মিসরের ফুটবলার খারাবি বলেন, ‘এ ম্যাচটি আমাদের জন্য বেশ কঠিন। কারণ এটি হচ্ছে আমাদের দুটি আরব দেশের ডার্বি। কোনো দেশই পরাজিত হতে চায় না।’

তিনি আরো বলেন, ‘ফুটবল সবসময় শক্তিশালী দলকে পুরস্কৃত করে না এটি সুশৃঙ্খলিত এবং নিয়ম মানা দলকে পুরস্কার দেয়।’ তিনি আরো যোগ করেন, ‘বাড়িয়ে বলব না এবং সত্যি বলব আমরা মিসরের ইতিহাসে প্রথম বিশ্বকাপ ঘরে তুলতে চেয়েছিলাম কিন্তু প্রথম দুটি ম্যাচে আমরা মোটেও ভালো খেলেনি এবং আমাদের সামনে যাওয়ার আর কোনো সুযোগ নেই।’

মিসর এবং সৌদি আরবের একে অপরের বিপক্ষে মুখোমুখি হয়েছে ছয়বার এবং চারবার জয় পেয়েছে মিসর এবং একটি খেলায় পরাজিত হয়েছে এবং একটি খেলায় ড্র হয়েছে।


আরো সংবাদ