মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮
বেটা ভার্সন

আর্জেন্টিনাকে ফেবারিট বলছেন তেভেজ

আর্জেন্টিনাকে ফেবারিট বলছেন তেভেজ - সংগৃহীত

ফের জাতীয় দলে ফেরার ইচ্ছে ছিল কার্লোস তেভেজের। স্বপ্ন ছিল রাশিয়া বিশ্বকাপে খেলা। তাই চীনের লিগ ছেড়ে আর্জেন্টিনা লিগে চলে আসেন তিনি। যোগ দেন প্রিয় ক্লাব বোকা জুনিয়র্সে। অথচ কপাল মন্দ তার। ইনজুরি তাকে পুনরায় আকাশী নীল-সাদা জার্সী গায়ে তুলতে দেয়নি। নিজ মুখেই এই কস্টের কথা জানালেন এই তারকা ফুটবলার। তবে নিজে না খেলতে পারলেও এবারের বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার সম্ভাবনা দেখছেন। তার মতে, ‘বিশ্বকাপে তো আর্জেন্টিনার সমকক্ষ তো কেবল জার্মানী এবং ব্রাজিল। আর্জেন্টিনার উজ্জ্বল সম্ভাবনা আছে এবার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার।’ তেভেজ এই কথা বললেও খোদ মেসি বলেছিলেন এবার শিরোপার প্রতিদ্বন্ধী নয় আলবিকেলেসেতারা।এটারই জবাব দিলেন তেভেজ।

১৬ জুন এবারের বিশ্বকাপ মিশন শুরু হবে দুই বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের। প্রতিপক্ষ নবাগত আইসল্যান্ড। রাশিয়ার টিকিট পেতে বেশ ঘাম ঝরাতে হয়েছে মেসিদের। অনেক অনিশ্চয়তার পর শেষ ম্যাচে জিতে তাদের এবারের বিশ্বকাপ নিশ্চিত করা। ইনজুরির জন্য দলের শক্তি খর্ব হয়ে গেছে। এখনও তাদের গুরুত্বপূর্ন খেলোয়াড়রা মাত্র ফিট হয়ে ফিরছেন। বলতে গেলে মেসি নির্ভর দলটি। মেসি ব্যর্থ হলে অন্যদের আর যোগ্যতা থাকে না দলকে টেনে তোলার। গত বিশ্বকাপ এবং টানা দুই কোপা আমেরিকার ফাইনালে এই একই চিত্র। এসবই সন্দেহের জন্ম দিয়েছে ১৯৭৮ এবং ১৯৮৬’র চ্যাম্পিয়নদের সম্ভাবনা নিয়ে।

এখন লস অ্যাঞ্জেলস এ ছুটি কাটাচ্ছেন তেভেজ। তবে তার মন পড়ে আছে রাশিয়ায়। জানান তিনি। তার বক্তব্য, ‘মেসিদের তো শিরোপা জেতার জন্যই খেলা উচিত। আমার মতে এবারের বিশ্বকাপ হবে শুধুই মেসরি।’ অনেকে বলাবলি করছেন এটাই বোধহয় শেষ বিশ্বকাপ লাওনেল মেসির। এদের সাথে দ্বিমত ২০০৬ এবং ২০১০ বিশ্বকাপ খেলা তেভেজের। তা বক্তব্য, ‘আমি মোটেই তা মনে করি না। আর এটা নিয়ে বারবার কথা বলাও উচিত নয়। এটা বলা মানে তার উপর চাপ প্রয়োগ করা। মেসির মতো প্রতিভা কি সবসময় জন্মায়। এবার তার মধ্যে ভালো কিছু করার তীব্র ক্ষুদা আছে। যদিও তিনি তা বুঝতে দিতে চান না।’

আরেক আর্জেন্টাইনের প্রশংসা তেভেজের মুখে। তিনি লওরাতো মার্টিনেজ। এই ফরোয়ার্ডের মতে, ‘কি অসাধারন এক ফুটবলার এই লওরাতো। তার মধ্যে ভালো করার সব গুনই আছে। কয়েক বছর আগে তাকে আমি দেখেছিলাম আর্জেন্টিনা যুব দলে। তখনই তার খেলায় মুগ্ধ হযে যাই। তার টেকনিক খুবই ভালো। এখন সে অনেক পরিনত।’ আর্জেন্টিনা দলে দিবালা এবং হিগুয়েনের একাদশে জায়গা পাওয়ার লড়াইকে বেশ উপভোগ করেছন তিনি। এই প্রতিযোগিতায় পড়ে বাদ যেতে হয় মাওরো ইকার্দিকে।

৩৪ বছরে পা দিয়েছেন তেভেজ। তার পেশাদারী ফুটবল ক্যারিয়ারে ইতি টানার সময়। দরজায় কড়া নাড়ছে তার বিদায় বেলা। অবশ্য তেভেজ এখনই অবসরে যেতে চাচ্ছেন না। তার ইচ্ছে, ‘আমি বোকা জুনিয়র্সকে আরেকটি আন্তর্জাতিক ট্রফি এনে দিতে চাই। এটা শুধু বোকার প্রানপ্রিয় সমর্থকদের জন্য। যদিও এখনও অনেক পথ বাকী। কোপা লিবার্তাদোরেসে আমাদের পরের খেলা প্যারাগুয়ের ক্লাবের সাথে। লক্ষ্য একটাই বোকাকে ফের এই আসের চ্যাম্পিয়ন করা। এরপর ২০১৯ এ অবসরের চিন্তা।’ খেলা ছেড়ে তার ইচ্ছে কর্মকর্তা হওয়া। জানালেন, আমার পরিকল্পনায় আছে বোকা জুনিয়র্সের সভাপতি হওয়া। ভালো সম্পর্ক আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট মাওরিসিও মার্কির সাথে। তবে আমি রাজনীতি বুঝিনা। কথা বলতেও চাই না রাজনীতি নিয়ে।


আরো সংবাদ