২১ এপ্রিল ২০১৯

বিজয়ের চেতনায় রঙিন

মডেল : অনুভব, জাহিদ, বৃষ্টি, সোহা, ঘুম, পোশাক : রঙ বাংলাদেশ, ছবি : মুনতাকিম -

ডিসেম্বর বাঙালির স্বাধীনতা ও বিজয়ের মাস। নিজের দেশ, ভাষা এবং সার্বভৌমত্ব। এ মাসের গুরুত্ব বাঙালির জীবনে অনেক বেশি। ১৬ ডিসেম্বর বিজয়ের এ দিনটি নানাভাবে উদযাপন করবে বাঙালি জাতি। তবে বিজয় দিবস উদযাপনে প্রথম যে বিষয়টি এ সময়ে গুরুত্বপূর্ণ সেটি হলো- পোশাক। জাতীয় চেতনাভিত্তিক পোশাক পরে বাঙালি দেশের প্রতি তার ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা প্রকাশ করে। স্বদেশপ্রেমের এ চেতনা থেকে ফ্যাশন ডিজাইনাররাও ফ্যাশনে নিয়ে আসেন বিজয় ও দেশের প্রতি ভালোবাসা প্রকাশ ঘটায় এমন পোশাক।
ফ্যাশন হাউজগুলো ঘুরে দেখা গেল বিজয় দিবসের বিশাল কালেকশন এসেছে বিজয়ের চেতনাকে উজ্জীবিত করার প্রয়াস হিসেবে। রঙ হিসেবে জাতীয় পতাকার লাল-সবুজই প্রাধান্য পেয়েছে। তবে পাশাপাশি লাল ও সবুজের বিভিন্ন শেড, কমলা, হলুদ- এসব রঙের ব্যবহারও দেখা গেছে। ফ্যাশন হাউজ সাদাকালো তাদের রঙের থিমকে প্রাধান্য দিয়ে সাদাকালোর মাধ্যমেই বিজয় দিবসের চেতনাকে ফুটিয়ে তোলার প্রয়াস পেয়েছে।
কাপড় হিসেবে সুতি প্রাধান্য পেয়েছে। তবে পাশাপাশি খাদি, তাঁত, টাঙ্গাইলের তাঁত, মোটা কটন, এনডি- এসব কাপড় ব্যবহার করা হয়েছে শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ, ফতুয়া ও পাঞ্জাবিসহ বিভিন্ন পোশাকে। শীতকালকে প্রাধান্য দিয়ে এসেছে নানা ধরনের শাল। এসব শালেও সবুজ ও লাল রঙ প্রাধান্য পেয়েছে। পাশাপাশি থাকছে চেতনাভিত্তিক নানা মোটিভ। অর্থাৎ ফ্যাশন ডিজাইনাররা সব পোশাকের মাধ্যমে আমাদের অহঙ্কার, আমাদের বিজয় দিবসের চেতনাকে প্রকাশের চেষ্টা করেছেন।
পোশাকে ব্যবহার করা হয়েছে নিজস্ব উইভিংয়ে করা ডিজাইন, টাই অ্যান্ড ডাই, স্ক্রিন প্রিন্ট, ব্লক প্রিন্ট, অ্যাপলিক, এমব্রয়ডারিসহ বিভিন্ন মাধ্যম। কারোর পোশাকে উঠে এসেছে বাংলাদেশের মানচিত্র, কারোর নকশায় প্রাধান্য পেয়েছে জাতীয় পতাকা, কোনোটায় রয়েছে মুক্তিযুদ্ধের নানা ছবি, লেখা, কবিতার লাইন ও জাতীয় ফুল। অর্থাৎ বিজয় উৎসবের বিভিন্ন প্রতীক ব্যবহার করে ডিজাইন করা হয়েছে বিজয় দিবসের পোশাকগুলো।

ফ্যাশন হাউজ অঞ্জন’স এর ফ্যাশন ডিজাইনার শাহীন আহমেদ তাদের বিজয় দিবসের আয়োজন প্রসঙ্গে বলেন, দিবসভিত্তিক এসব আয়োজন করতে খুবই ভালো লাগে। মনে হয়, দেশের সব শ্রেণীর মানুষের কাছে বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দিচ্ছি দেশের প্রতি আমাদের ভালোবাসা ও শ্রদ্ধার বার্তা। এ ধরনের কাজ আমাকে খুবই অনুপ্রাণিত করে। রঙ হিসেবে লাল-সবুজ প্রাধান্য পেয়েছে। আরেকটি বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, সব বয়সী মানুষের দিকে লক্ষ রেখে পোশাক তৈরি করা হয়েছে, যেন সবাই বিজয় দিবসে নিজেদের রাঙিয়ে নিতে পারেন স্বদেশপ্রেমের চেতনায়।
ফ্যাশন ডিজাইনারদের এই প্রচেষ্টায় সাড়া দিতে ভোলেন না সচেতন মানুষ। মহান বিজয় দিবস পালনে নতুনভাবে সাজেন বাঙালি। সাজিয়ে তোলেন বাংলাদেশ। সারা দেশ ছেয়ে যায় লাল-সবুজ পতাকায়। আর একই অনুভূতি বুকে ধারণ করে পোশাকের মাধ্যমে বিজয়ের গৌরব তুলে ধরেন বাঙালি।

ফ্যাশন হাউজে বিজয় দিবসের আয়োজন

দেশীদশ
বছর ঘুরে বিজয় দিবস আসে বারবার। এবারো গৌরবের বিজয় দিবস এসেছে আনন্দ আর উল্লাস নিয়ে। দেশীদশের বিজয় দিবস উদযাপনের প্রতিপাদ্য লাল-সবুজে দেশীদশ। তাই প্রতিবারের মতো এবারের বিজয় দিবসেও দেশীদশ সেজেছে জ্বলজ্বলে লাল-সবুজে। যেন সবুজের বুকে লাল সূর্যটা ঝলমল উচ্ছল প্রাণের বন্যা।
সমকালীন ফ্যাশন চলমানতাকে সামনে রেখে দেশীদশে একাধারে নিপুন, কে-ক্র্যাফট, অঞ্জনস, রঙবাংলাদেশ, বাংলারমেলা, সাদাকালো, বিবিআনা, দেশাল, নগরদোলা, সৃষ্টিসহ ১০টি ফ্যাশন হাউজ সেজেছে লাল-সূর্যের সবুজ ছায়ায়।

নিপুণ
নিপুণ তৈরি করেছে বিশেষ বিজয় দিবস সংগ্রহ। লাল আর সবুজ রঙকে প্রাধান্য দিয়ে তৈরি করা হয়েছে এবারের বিজয় দিবস সংগ্রহ। বেশির ভাগ সুতির পাশাপাশি এই কালেকশনে ব্যবহার করা হয়েছে লিনেন, বেক্সি ভয়েল, জয়সিল্ক। কাট আর প্যাটার্নকে গুরুত্ব দিয়েই তৈরি হয়েছে নিপুণের বিজয় দিবস সংগ্রহ। এর মধ্যে এবারের বিশেষ আকর্ষণ এ-কাট। মিনিমালিস্টিক ফ্যাশন এবার উপস্থাপনে মনোযোগী নিপুণ। ফ্যাশনপ্রিয়দের অনন্যতা বজায় রাখতে করা হয়েছে একটা ডিজাইনের একটাই লঙ সিঙ্গেল কামিজ। এর সাথে মিক্স আর ম্যাচ করে বেছে নেয়া যাবে অন্য যেকোনো অনুষঙ্গ।
এ ছাড়া মেয়েদের অন্যান্য ট্র্যাডিশনাল পোশাক যেমনÑ শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ, দোপাট্টা তো আছেই। এ সংগ্রহে আরো আছে ছেলেদের পাঞ্জাবি আর ক্যাজুয়াল শার্ট। পাশাপাশি বিশেষ গুরুত্ব পেয়েছে ছোটরা। তাদের জন্য পাঞ্জাবি, সালোয়ার-কামিজ, দোপাট্টা আর ফ্রকের সাথে আছে শাড়িও। সবমিলিয়ে নিপুণের বিজয় দিবস সংগ্রহ বিজয়ের উদযাপনে যোগ করবে সানন্দ মাত্রা।

রঙ বাংলাদেশ
বাংলাদেশের ঘরোয়া ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রির অন্যতম শীর্ষ হাউজ রঙ বাংলাদেশ বিজয়ের উদযাপনকে অন্য মাত্রা দিতে বিশেষ ব্যবস্থা করেছে। স্বাধীনতার গান ও বাংলাদেশের পতাকার বিষয়কে এবার ধরা হয়েছে কাপড়ের ক্যানভাসে। মূল রঙ হিসেবে বেছে নেয়া হয়েছে লাল ও পতাকার সবুজ আর সহকারী রঙ হিসেবে আছে সবুজের শেড, সাদা, টিয়া, গোল্ডেন ও হলুদ।
কেবল বড়দের নয়, প্রতিটি উপলক্ষে ছোটদের পোশাককে সমান গুরুত্ব দিয়ে থাকে বলেই শিশুদের সংগ্রহও হয় বিশেষভাবে আকর্ষণীয়।
পোশাকের নকশাকে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে নানা ভ্যালু অ্যাডেড মিডিয়ার ব্যবহারে। এর মধ্যে রয়েছে স্ক্রিন প্রিন্ট, ব্লক প্রিন্ট, এমব্র্রয়ডারি, হাতের কাজ, গ্লাসওয়ার্ক ইত্যাদি।
সংগ্রহে যা রয়েছে : মেয়েদের পোশাক : শাড়ি, থ্রি-পিস, সিঙ্গেল কামিজ, কুর্তি, ওড়না, ব্লাউজ, আনস্টিচড থ্রি-পিস। ছেলেদের পোশাক : পাঞ্জাবি, কাতুয়া, শার্ট, টি-শার্ট। ছোটদের পোশাক : সিঙ্গেল কামিজ, ফ্রক, পাঞ্জাবি, শার্ট, টি-শার্ট, কাতুয়া এবং কাপল ও ফ্যামিলি ড্রেস। আরো রয়েছে নানা ডিজাইনের মগ। এ ছাড়াও রঙ বাংলাদেশের সাব ব্র্যান্ড হিসেবে ওয়েস্ট রঙ, শ্রদ্ধাঞ্জলি আর রঙ জুনিরের পোশাকেও রয়েছে বিজয় উৎসবের আমেজ।

মেঘ
ফ্যাশন হাউজ মেঘ বিজয় দিবস উপলক্ষে এনেছে ছেলেদের পাঞ্জাবি, টি-শার্ট, মেয়েদের কামিজ, শিশুদের ফতুয়া, ফ্রক ও টি-শার্ট। লাল-সবুজ রঙে আরামদায়ক কাপড়ে এসব পোশাকের নকশায় ফুটিয়ে তোলা হয়েছে মুক্তিযুদ্ধের আমেজ।

Art
বিজয় দিবসকে সামনে রেখে Art নানা রঙের, ডিজাইনের বেশকিছু নতুন পোশাক এনেছে। Art’’র পোশাকে নানা রঙের বিন্যাস আর নজরকাড়া বৈচিত্র্য রয়েছে। Art তারুণ্যের চাহিদা বিবেচনায় ক্রেতাদের জন্য এনেছে ফুল হাতা টি-শার্ট।
Art’র টি-শার্টগুলোর অন্যতম বৈশিষ্ট্য মার্জিত কালার কম্বিনেশন। টি-শার্ট ’র কাপড়ের ক্ষেত্রে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে সম্পূর্ণ কটন কাপড়। তারুণ্যের চাহিদা বিবেচনায় শতভাগ সুতি কাপড়ে এবং হালকা কালারের ভেতর পোশাকের ডিজাইনে আনা হয়েছে বৈচিত্র্য।
আসন্ন শীত ঋতুতে Art’র নিত্য নতুন ডিজাইন ও নতুন কালেকশনে রয়েছে ব্লেজার, লেদার জ্যাকেট, হুডি, ফুল হাতা টি-শার্ট, পলো শার্ট, ফুল হাতা শার্ট, জিন্স প্যান্ট,গ্যাবার্ডিন প্যান্ট, পানজাবি। এছাড়াও আছে মেয়েদের আধুনিক ও রুচিসম্মত পোশাক।


আরো সংবাদ

iptv al Epoksi boya epoksi zemin kaplama Daftar Situs Agen Judi Bola Net Online Terpercaya Resmi

Hacklink

Bursa evden eve nakliyat
arsa fiyatları tesettür giyim
Canlı Radyo Dinle hd film izle instagram takipçi satın al ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme

instagram takipçi satın al
hd film izle
gebze evden eve nakliyat