১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

পাখির সাথে ধাক্কা খেয়ে ভুট্টা ক্ষেতে জরুরি অবতরণ করলো রুশ বিমান

ভূট্টা ক্ষেতে জরুরি অবতরণ করা ইউরাল এয়ারলাইন্সের দুর্ঘটনাকবলিত বিমান। (ইনসেটে) বিমান অবতরণের পরপরই বাইরে বেরিয়ে আসে যাত্রীরা - সংগৃহীত

রাশিয়ার একটি যাত্রীবাহী বিমান এক ঝাঁক পাখির সঙ্গে ধাক্কা লাগার পর মস্কোর কাছে একটি ভুট্টা ক্ষেতে জরুরি অবতরণ করেছে। এই ঘটনায় ২৩ জন আহত হয়েছেন। দেশটির স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বলছেন বিমানটি ইঞ্জিন বন্ধ অবস্থায় অবতরণ করেছে এবং নামার সময় বিমানের চাকাগুলো খোলেনি।

ইউরাল এয়ারলাইনসের ৩২১ এয়ারবাসটি ক্রিমিয়ার সিমফেরোপলে যাচ্ছিল। বিমানটি ওড়ার অল্পক্ষণের মধ্যেই এক ঝাঁক চিলের সাথে ধাক্কা খায় এবং ফলে বিমানের ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়। রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম এই অবতরণকে ''রামেনস্কে অলৌকিক অবতরণ'' বলে বর্ণনা করেছে।

বিমান সংস্থা বলেছে- বিমানটির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে এবং বিমানটি আর উড়তে পারার অবস্থায় নেই। সরকারি তদন্ত প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। রুশ ঐ বিমানে ২৩৩ জন যাত্রী ও বিমানের ক্রু ছিলেন। বিমান পাখিগুলোকে ধাক্কা মারার পর বিমানের ইঞ্জিন সেগুলোকে ভেতরে টেনে নেয়। বিমান চালক সঙ্গে সঙ্গে বিমানটি জরুরি অবতরণের সিদ্ধান্ত নেন।

অজ্ঞাতপরিচয় একজন যাত্রী রাষ্ট্রীয় টিভি চ্যানেলকে জানান, বিমানটি মাটি থেকে আকাশে ওঠার পর অসম্ভব রকম কাঁপতে শুরু করে।

''পাঁচ সেকেণ্ড পরেই বিমানের ডানদিকে বাতি ফ্লাশ করতে শুরু করে এবং পোড়া গন্ধ বেরতে থাকে। এরপর বিমানটি অবতরণ করে এবং প্রত্যেকে বিমান থেকে বেরিয়ে ছুটে পালায়,'' বলেন তিনি।

বিমান পরিবহন সংস্থা রোজাভিয়াৎসিয়া বলছে বিমানটি ঝুকোভস্কি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের রানওয়ে থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে একটা ভুট্টা ক্ষেতে নেমেছে। বিমানের ইঞ্জিন কাজ করছিল না এবং চাকাও গুটানো ছিল। যাত্রীদের বিমান থেকে বের করে আনা হয়, কিছু যাত্রীকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নেয়া হয় এবং বাকিদের আবার বিমানবন্দরে ফেরত নেয়ার ব্যবস্থা করা হয়।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানাচ্ছে, বিমানটি জরুরি অবতরণের পর যাদের হাসপাতালে নেয়া হয়েছে তাদের মধ্যে পাঁচজন শিশু আছে। আহতদের মধ্যে ''কয়েকজনের আঘাত গুরুতর, কয়েকজন মোটামুটি কম আহত হয়েছেন'' বলে মন্ত্রণালয় জানিয়েছে।

ইউরাল এয়ারলাইন্স-এর পরিচালক কিরিল স্কুরাতফ তাস সংবাদ সংস্থাকে বলেছেন, যেসব যাত্রী তাদের গন্তব্যে যেতে চান, তাদের চিকিৎসকরা পরীক্ষা করার পর তাদের বিকল্প ফ্লাইটে যাত্রার ব্যবস্থা করা হবে।

রুশ সংবাদমাধ্যম এই ঘটনাকে ২০০৯ সালে ইউএস এয়ারওয়েসের একটি বিমান ওড়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই যেভাবে হাডসন নদীর ওপর জরুরি অবতরণ করেছিল তার সাথে তুলনা করেছে।

বিমান চলাচলের ক্ষেত্রে পাখির সঙ্গে বিমানের সংঘর্ষ একটা চলতি সমস্যা। আমেরিকায় বছরে কয়েক হাজার এধরনের ঘটনার খবর পাওয়া যায়। তবে পাখির সঙ্গে ধাক্কা লেগে দুর্ঘটনা বা বিমানের ক্ষতির ঘটনা প্রায় বিরল। সূত্র : বিবিসি।


আরো সংবাদ