২৬ জুন ২০১৯

লন্ডনের মেয়র সাদিক খানকে হত্যার হুমকি

সাদিক খান - ছবি : সংগৃহীত

অনলাইনে একের পর এক হুমকির পর সার্বক্ষণিক পুলিশী ব্যবস্থা দেয়া হয়েছে লন্ডনের প্রথম মুসলমান মেয়র সাদিক খানকে। ২০১৬ সালের নির্বাচনে ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির প্রার্থী জ্যাক গোল্ডস্মিথকে পরাজিত করে ইতিহাস সৃষ্টি করেন পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত সাদিক খান। তার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ২০১৬ সালের ব্রেক্সিট বিষয়ক গণভোটের পর থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অব্যাহত হুমকি ও বিষেদাগারের লক্ষ্য বানানো হয়েছে এই মেয়রকে।

দ্য গার্ডিয়ান পত্রিকাকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে সাদিক খান বলেন, ‘আমি এতে ভীত নই; কিন্তু আমার আশপাশের লোকরা আমাকে নিয়ে ভয় পাচ্ছেন। আমি লন্ডনের মেয়র ও একজন মুসলমান হওয়ার কারণেই আমাকে পুলিশি পাহাড়ায় থাকতে হচ্ছে এটি প্রত্যাশিত নয়।’

২০১৬ সালের ব্রেক্সিট গণভোটে ইউরোপীয় ইউনিয়নে থাকার পক্ষে প্রচারণা চালিয়েছেন সাদিক খান। তিন বছর আগের সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এখনো তার প্রতি ক্ষোভ পুষে রাখাকে অস্বাভাবিক ঘটনা হিসেবে আখ্যায়িত করেন তিনি।

সাদিক খান বলেন, এসব হুমকি যদি এড়িয়ে যাওয়া হয় তবে তা সহিংসতায় রূপ নিতে পারে এবং লেবার এমপি জো কক্সের হত্যাকাণ্ডের মতো আরো উদাহরণ সৃষ্টি করতে পারে। ২০১৬ সালের জুন মাসে লেবার পার্টির ওই নারী এমপিকে গুলি ও ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেছিল কট্টর ডানপন্থী সন্ত্রাসীরা।

সাদিক খান বলেন, তারা এমনসব মেসেজ আমার সন্তানদের কাছে পাঠাচ্ছে, যারা রাজনীতির কিছুই বোঝে না।

সাম্প্রতিক সময়ে ব্রিটেনে বেক্সিটের বিপক্ষে অবস্থান নেয়া বেশ কয়েকজন এমপি, কর্মকর্তাকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে। এগুলো কখনো অনলাইনে, কখনো বা ব্যক্তিগতভাবে সরাসরি দেয়া হয়েছে।


আরো সংবাদ