১৮ জুন ২০১৯

যুদ্ধের জন্যে তিমিকে প্রশিক্ষণ দিচ্ছে কারা?

সাদা তিমি - ফাইল ছবি

নরওয়েতে সম্প্রতি গলায় বকলেস পরা অবস্থায় ধরা পড়েছে একটি সাদা তিমি। এর পর থেকে কারা এটিকে বকলেস পরিয়েছে- বিষয়টি নিয়ে একটি পরীক্ষাও চালায় নরওয়ের বিশেষজ্ঞরা। তাদের ধারণা যুদ্ধে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করতে বিশেষ প্রশিক্ষণ গিয়ে এই সাদা তিমিটিকে সমুদ্রে ছাড়া হয়েছে। আর এক্ষেত্রে সন্দেহের আঙ্গুল তোলা হচ্ছে রাশিয়ার দিকে।

নরওয়ের বিশেষজ্ঞদের এ বক্তব্যের পর বিশ্বজুড়ে বেশ চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। পশুবিদদের মতে, সাদা তিমি বিরলতম বিশ্বের প্রাণীদের মধ্যে পড়ে। তাই তারা এ কাজে তিমি বিশেষ করে সাদা তিমি ব্যবহারের তীব্র বিরোধিতা করেন।

জানা যায়, গত কয়েকদিন আগে নরওয়ের বেশ কয়েকজন মৎস্যজীবী সমুদ্রে মাছ ধরতে গেলে ওই সাদা তিমিটা দেখতে পান তারা। ওই তিমির গলায় বকলস জাতীয় একটি জিনিস দেখে অবাক হয়ে যান তারা। তিমিটি বারবার তাদের কাজে ব্যাঘাত ঘটানোর চেষ্টা করছিল বলে জানায় ওই মৎস্যজীবীরা। এরপরেই ওই তিমিটিকে ধরে নিয়ে যায় তারা। দেখা যায় তিমির গলার বকলসের ভেতরে লেখা ‘ইকুইপমেন্ট অফ সেন্ট পিটার্সবার্গ।’ ওই লেখা দেখে মনে করা হচ্ছে রুশ নৌবাহিনী এই সাদা তিমিটাকে বিশেষ প্রশিক্ষণ দিয়েছে।

পরে আরো পরীক্ষানিরীক্ষা চালানোর পর নরওয়ের বিশেষজ্ঞরা বুঝতে পারেন, যুদ্ধের জন্য এটিকে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে।

নরওয়ের আর্কটিক ইউনিভার্সিটির আর্কটিক ও মেরিন বায়োলজি বিভাগের অধ্যাপক অ্যানডান রিকার্ডসেন জানান, খুব সম্ভবত রুশ নৌবাহিনী যুদ্ধের কাজে এটিকে ব্যবহার করার জন্য প্রশিক্ষণ দিয়েছে।

উল্লেখ্য এর আগে রাশিয়া ডলফিন সেনা বানিয়েছিল। যা কিনা গোটা বিশ্বের সামরিক জগতকে অবাক করে দিয়েছিল। এরই ধারাবাহিকতায় এবার ওই সাদা তিমিটিকে রাশিয়ান নৌবাহিনী ট্রেনিং দিয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে।


আরো সংবাদ