২৫ এপ্রিল ২০১৯

স্কুলে মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ!

স্কুলে মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ! - সংগৃহীত

প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে স্কুলে মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ করেছে ফ্রান্সের সরকার। পড়াশোনায় মনোযোগ বাড়াতে ও অনলাইন বুলিং ঠেকাতেই স্কুলে মোবাইল ফোন নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত। ফরাসি সরকারের ওই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রতিবন্ধী ও জরুরি প্রয়োজন ছাড়া শিক্ষার্থীরা ক্লাস চলাকালীন সময়ে মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবে না।

ব্রিটেনের প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তিদের ৭০ ভাগই চাইছেন একই নিয়ম তাদের দেশেও বাস্তবায়ন করা হোক, একই ধরনের পদক্ষেপ নিক সরকার। এক জরিপে অধিকাংশ ব্রিটিশ বাবা-মা বলেছেন, তারা মনে করেন ক্লাস চলাকালীন সময় মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ করা উচিত। আর উত্তরদাতাদের ৯৩ ভাগ বলেছেন, ক্লাস চলাকালীন সময়ে মোবাইল ফোনের আরো ভালো ব্যবহার হওয়া উচিত।

জরিপে দেখা গেছে, ক্লাস চলাকালে মোবাইল ফোনের কারণে সন্তানদের পড়াশোনায় অনাগ্রহ সৃষ্টি হওয়া নিয়ে বাবা-মায়েরা খুব উদ্বিগ্ন। এর পরের অবস্থানেই রয়েছে স্কুলে বুলিংয়ের শিকার হওয়ার আশঙ্কা। উত্তরদাতাদের এক-তৃতীয়াংশ মনে করেন, মোবাইল ফোনের কারণে তাদের সন্তানরা অনলাইন শিকারিদের কবলে পড়ছে।

ইন্টারনেট ম্যাটার্সের গবেষণায়, ৫৯ ভাগ ব্রিটিশ বাবা-মা বলেছেন, তারা মনে করেন ক্লাস চলাকালীন সময়ে মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ করা উচিত। আর ৫১ ভাগ উত্তরদাতা বলেছেন, স্কুলে মোবাইল ফোন নিতে দেয়ায় উচিত নয়।

৪৮ শতাংশ মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী স্মার্টফোনে আসক্ত

 ১৬ জুলাই ২০১৮

বিশ্বব্যাপী প্রযুক্তির প্রয়োজনীয় অনুষঙ্গগুলোর মধ্যে মোবাইল ফোন আমাদের প্রাত্যহিক জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করে নিয়েছে। স্মার্টফোনের ইতিবাচক দিক যেমন রয়েছে, পাশাপাশি নেতিবাচক বেশ কিছু দিক রয়েছে। সম্প্রতি ডিজিটাল কনটেন্ট ডেলিভারি প্লাটফর্ম লাইমলাইট নেটওয়ার্ক সম্প্রতি ‘দ্য স্টেট অব ডিজিটাল লাইফস্টাইলস-২০১৮’ শীর্ষক একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

প্রযুক্তিনির্ভর মানুষ এখন স্মার্টফোনে বেশি সময় ব্যয় করছে। বিশ্বের ৪৮ শতাংশ মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী ডিভাইসে আসক্ত। এসব মানুষ ডিভাইস ছাড়া থাকতে পারে না। জরিপে এমন তথ্যই উঠে এসেছে। ১০টি দেশের মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীদের ওপর এ জরিপ পরিচালনা করা হয়েছে।

জরিপের তথ্য বলছে, মালয়েশিয়ার মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীরা ডিভাইসে সবচেয়ে বেশি আসক্ত। এর পরেই রয়েছে ভারত। দেশটির দুই-তৃতীয়াংশ মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী ফোনে আসক্ত। ভারতের ৪৫ শতাংশ ডিভাইস ব্যবহারকারী ল্যাপটপ কিংবা ডেস্কটপ কম্পিউটার ছাড়া একদিনও চলতে পারেন না।

জরিপে অংশ নেয়া ৯০ শতাংশের বেশি ভারতীয় নাগরিক জানিয়েছেন, তাদের জীবনে ডিজিটাল প্রযুক্তি ইতিবাচক ভূমিকা রেখেছে। দেশটির ৭৫ শতাংশের বেশি জানান, তারা সপ্তাহে কমপে একদিন ডাউনলোড করা কিংবা স্ট্রিমিং মিউজিক দেখেন, যা জরিপে অংশগ্রহণকারী দেশগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ। ডাউনলোড করে বা অফলাইনে সিনেমা দেখতেও ভারতীয়রা অন্যদের চেয়ে এগিয়ে রয়েছেন।

বিশ্লেষকদের মতে, ফোনের মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহার শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য মোটেও ভালো নয়। ডিভাইস ব্যবহারের েেত্র আরো অধিক সচেতন হওয়া উচিত। 


আরো সংবাদ




iptv al Epoksi boya epoksi zemin kaplama Daftar Situs Agen Judi Bola Net Online Terpercaya Resmi

Hacklink

Bursa evden eve nakliyat
arsa fiyatları tesettür giyim
Canlı Radyo Dinle hd film izle instagram takipçi satın al ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme

instagram takipçi satın al
hd film izle
gebze evden eve nakliyat