১৫ নভেম্বর ২০১৮

আমেরিকা তার মিত্রদেরকে অবজ্ঞা করে : জার্মানি

আমেরিকা তার মিত্রদেরকে অবজ্ঞা করে : জার্মানি - সংগৃহীত

জার্মানির অর্থমন্ত্রী পিটার আল্‌তমেয়ার বলেছেন, ইরানের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা পরিষ্কারভাবে দেখিয়ে দিচ্ছে যে, আমেরিকা তার মিত্রদেরকে অবজ্ঞা করে। সে ক্ষেত্রে আমরা ওয়াশিংটনকে নির্দেশনা দেয়ার সুযোগ দেব না বরং আমরা ভিয়েনা পরমাণু সমঝোতার ওপর টিকে থাকব।

জার্মানির ‘বিল্ড অ্যাম সনট্যাগ’ পত্রিকাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে আল্‌তমেয়ার রোববার এসব কথা বলেছেন। তিনি বলেন, কার সাথে আমরা বাণিজ্য করব ওয়াশিংটনকে সে বিষয়ে নির্দেশনা দেয়ার অনুমতি দেবে না বার্লিন।

তিনি আরো বলেন, আমেরিকা এমন কোনো অবস্থানে নেই যে, তারা বলে দেবে বার্লিন কোন দেশের সাথে বাণিজ্য করতে পারবে। ইরানের সাথে তার দেশের কোম্পানিগুলো বাণিজ্য অব্যাহত রাখবে বলেও তিনি অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

জার্মান মন্ত্রী বলেন, তার দেশ আরো বেশি প্রত্যয়ী হবে বিশেষ করে ইরানে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করবে। পাশাপাশি তিনি বলেন, ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে জার্মানি ও ইউরোপের অন্য দেশগুলোর স্বাধীন পথ অনুসরণ করা উচিত।

ইরানের বিরুদ্ধে যখন আমেরিকা নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে তখন জার্মান মন্ত্রী এমন কড়া বক্তব্য দিলেন। এবারই প্রথম ইরান ইস্যুতে মার্কিন নীতির বিরুদ্ধে ইউরোপের দেশগুলো অবস্থান নিয়েছে।

 

জার্মানি ও ফ্রান্স সম্পূর্ণ ধ্বংস করতে সক্ষম সারমাট

৩০ জুন ২০১৮

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, তার দেশ নতুন অস্ত্র তৈরির শিল্পে প্রতিদ্বন্দ্বী দেশগুলোর চেয়ে কয়েক দশক এগিয়ে রয়েছে। সম্প্রতি রাশিয়ার সামরিক অ্যাকাডেমিগুলো থেকে পাস করা একদল গ্র্যাজুয়েটের সমাবেশে এ মন্তব্য করেছেন তিনি।

পুতিন বলেছেন, আধুনিক অস্ত্রগুলো রাশিয়ার সামরিক সক্ষমতাকে কয়েকগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে। আমাদের কিছু কিছু সমরাস্ত্র সিস্টেম প্রতিদ্বন্দ্বী দেশগুলোর চেয়ে কয়েক দশক এগিয়ে রয়েছে।

রুশ প্রেসিডেন্ট দৃষ্টান্ত হিসেবে তার দেশের ‘অ্যাভানগার্ড’ হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রের কথা তুলে ধরেন যা শব্দের চেয়ে বিশ গুণ দ্রুত গতিতে চলে। এই ক্ষেপণাস্ত্র লক্ষ্যবস্তুর দিকে ছুটে যাওয়ার সময় আবহমণ্ডলে দিক ও উচ্চতা পরিবর্তন করতে পারে বলে তা যেকোনো ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা বা বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার জন্য চরম অভেদ্য বা ধরা-ছোঁয়ার বাইরে থাকে বলে পুতিন জানান।

রুশ প্রেসিডেন্ট তার দেশের একটি নতুন আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রের কথাও উল্লেখ করেন। এটি দশটিরও বেশি পরমাণু অস্ত্র বহন করতে সক্ষম এবং ২২০ টন ওজনের এই ক্ষেপণাস্ত্র পৃথিবীর যেকোনো স্থানে আঘাত হানতে পারে।

‘সারমাট’ নামের এই ক্ষেপণাস্ত্র সোভিয়েত যুগের আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র ‘ভয়েভোডা’র চেয়েও বেশি শক্তিশালী। ‘ভয়েভোডা’-কে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র বলে মনে করা হতো এবং পাশ্চাত্যে একে বলা হয় ‘স্যাটান’ বা শয়তান। জার্মানি ও ফ্রান্স সম্পূর্ণ ধ্বংস করতে সক্ষম সারমাট।

পুতিন এমন সময় এসব বক্তব্য রাখলেন যখন রাশিয়ার প্রতিদ্বন্দ্বী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সম্প্রতি এই বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে যে, রাশিয়ার সঙ্গে সম্ভাব্য সংঘাত দেখা দিলে ন্যাটো জোট হয়তো রাশিয়ার মতো দ্রুতগতিতে অগ্রসর হতে পারবে না বরং ট্র্যাফিক জ্যামে আটকা পড়তে পারে।


আরো সংবাদ