২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

হেলিকপ্টার দুর্ঘটনা, নিহত ১৮

হেলিকপ্টার দুর্ঘটনা, নিহত ১৮ - ছবি : সংগৃহীত

আবারো হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন ১৮ জন৷ রাশিয়ার পরিবহণ মন্ত্রণালয় সূত্রে খবর শনিবার ভোরবেলা ‘এম আই-৮ ‘ হেলিকপ্টারটি উত্তর সার্বিয়ার একটি তেল স্টেশনে ধাক্কা মারে। ঘটনায় ৩ পাইলটসহ ১৫ জন যাত্রী নিহত হয়েছে।

স্থানীয় প্রশাসন জানাচ্ছে, উড়ানের কিছুক্ষণ পরই অন্য একটি জ্বালানিবাহী বিমানের সঙ্গে সংঘর্ষ হয় ‘এম আই-৮ -এর৷ আবহাওয়া স্বাভাবিক থাকার কারণে অন্য বিমানটি অক্ষত অবস্থায় অবতরণ করতে পারে৷

পরিবহণ মন্ত্রণালয় জানায় এম আই-৮ এর প্রথম উড়ান সফল হয়৷ সেইবার কিছু জাহাজের পণ্য সামগ্রী নিয়ে বিমানটি যাত্রা করেছিল, তাতে কোনও যাত্রী ছিলেন না। এবার ছিল দ্বিতীয় উড়ান৷ আর সেখানেই ঘটল বিপত্তি৷ একটি তেল স্টেশনের কর্মীদের নিয়ে যাত্রা করেছিল হেলিকপ্টারটি৷ প্রাথমিক তথ্যের ভিত্তিতে তারা বলেন, এটি ভেঙে পড়ার পর এতে আগুন লেগে যায়৷ হেলিকপ্টারটি রাশিয়ান ন্যাশানাল এয়ারলাইন ইউ ট্যায়ারের দ্বারা পরিচালিত হত৷ যার প্রধান অফিস পশ্চিম সার্বিয়ার কান্তি মান্সিয়াক বিমানবন্দর৷

ট্যায়ার তাদের ওয়েব সাইটে একটি তথ্য দিয়ে বলেছে, ক্রাসনয়াসক প্রদেশের তুরুহান্সক জেলার ভানকর অয়েল ও গ্যাস ফিল্ডের একটি হ্যালিপ্যাড থেকে হেলিকপ্টারটি যাত্রা শুরু করে এবং উড়ানের কিছুক্ষণের মধ্যেই ৫টা ৪৩ মিনিটে ( মস্কো সময় – ০২৪৩ জিএমটি) এই দুর্ঘটনা ঘটে। তৈল ক্ষেত্রটি রাশিয়ার ন্যাশানাল অয়েল কোম্পানি রোসনেফটের সহযোগী ভেঙ্ক্রনেফটের দ্বারা পরিচালিত হয়৷

ট্যায়ার আরো জানায়, হেলিকপ্টারটি ২০১০ সালে রাশিয়ায় নির্মিত হয়। ‘এম আই-৮-এর পাইলট ১৯৮৫ সালে জন্মগ্রহণ করেন এবং দক্ষিণপশ্চিম সার্বিয়ার ওমস্ক আভিয়াটন স্কুলে প্রশিক্ষিত ছিলেন৷ ট্যায়ার তার বক্তব্যে বলে, মৃত পাইলট প্রায় ৫৫৯০ ঘণ্টা বিমানে উড়েছেন । যার মধ্যে ২৩০০ ঘণ্টা তিনি হেলিকপ্টার কম্যান্ডার ছিলেন। তা সত্ত্বেও কিভাবে এই দুর্ঘটনা ঘটল তা খতিয়ে দেখতে সেখানে বিশেষজ্ঞ দলকে সেখানে পাঠানো হয়েছে।

রাশিয়ার পরিবহন মন্ত্রণালয় সূত্রে খবর একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে ৷ এবং ফেডারেল এয়ারপোর্ট এজেন্সির ভাইস ডিরেক্টর ঘটনাস্থল ঘুরে দেখার জন্য রওনা দিয়েছেন৷ দেশের তদন্ত কমিটি জানিয়েছে, তারা এই দুর্ঘটনার একটি অপরাধমূলক তদন্তও করবেন৷

আরো পড়ুন :
ভারতে পাথর খনিতে বিস্ফোরণে ১১ জন নিহত
ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় অন্ধ্র প্রদেশে একটি পাথর খনির ভেতরে ডিনামাইট বিস্ফোরণে কমপক্ষে ১১ জন নিহত ও চারজন আহত হয়েছে। শনিবার কর্মকর্তারা একথা জানান। খবর সিনহুয়ার।

অন্ধ্র প্রদেশের প্রধান নগরী আমারাভাথির প্রায় ৪১২ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমের কুরনল জেলার আলুরু মন্ডল গ্রামে একটি গ্রানাইট পাথর খনির ভেতরে শুক্রবার রাতে এ বিস্ফোরণ ঘটে।
স্থানীয় এক সরকারি কর্মকর্তা বলেন,‘গতরাতে এখানে ওই পাথর খনির ভেতরে বিস্ফোরণ ঘটলে ১১ শ্রমিক নিহত ও অপর চারজন মারাত্মকভাবে আহত হয়।’

এতে সেখানে রাখা বিভিন্ন ট্রাক্টর, লরি ও মালামাল রাখার একটি অস্থায়ী কেন্দ্রে আগুন ধরে যায়।
এদিকে এ বিস্ফোরণে প্রাণহানির ঘটনায় অন্ধ্র প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী এন চন্দ্রবাবু নাইডু শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা ও শোক জানিয়েছেন।


আরো সংবাদ