১৭ নভেম্বর ২০১৮

ফ্রান্সে জনসমক্ষে নারীকে যৌন হয়রানির পর চড়, ভিডিও ভাইরাল

নারী
যৌন হয়রানির পর ওই নারীকে চড় মারে বখাটে - ছবি: সংগৃহীত

ফ্রান্সে জনসমক্ষে এক নারীকে যৌন হয়রানির পর এক বখাটে কর্তৃক চড় মারার ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ ভিডিও ফাঁস হওয়ার পর তীব্র ক্ষোভ তৈরি হয়েছে প্যারিসজুড়ে।

গত মঙ্গলবার ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে একটি ক্যাফের সামনে এ ঘটনা ঘটে। গতকাল সোমবার এ খবর দিয়েছে বিবিসি।

সোমবারই ফ্রান্স রেডিওর সাথে এক সাক্ষাৎকারে ঘটনার বিস্তারিত তুলে ধরেছেন মেরি ল্যাগা নামের ওই নারী।

ভিডিওতে দেখা যায়, রাস্তার ধারে এক কফি দোকানের পাশ দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় ওই পুরুষ টেবিল থেকে একটি ছাইদানি তুলে বিপজ্জনক ভঙ্গিতে অন্যদের মাথার ওপর দিয়ে সেটি ওই নারীর দিকে ছুড়ে মারছে। এরপর লোকটি ওই নারীর কাছে এসে তাকে সজোরে চড় বসিয়ে দিয়ে হেঁটে চলে যায়।

মেরি ল্যাগা এ ঘটনার একটি সিসিটিভি ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করে লিখেন, ‘গত ২৪ জুলাই বিকেলে তিনি যখন বাড়ির দিকে ফিরছিলেন, বখাটে লোকটি তাকে উদ্দেশ করে শিস দেয়া থেকে শুরু করে বিভিন্ন রকম আপত্তিকর শব্দ করতে থাকে।’ এ ছাড়া পাস দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় লোকটি অশ্লীল ভাষায় বিভিন্ন মন্তব্য করে মেরিকে বিব্রত ও ক্ষুব্ধ করে তোলে বলে জানান তিনি।

হয়রানির প্রসঙ্গে মেরি আরো লিখেন, “দুর্ভাগ্য, ওই লোকটাই সে দিনের একমাত্র বখাটে নয়, আমি রীতিমতো ক্লান্ত ছিলাম, তাকে (অশ্রাব্য কথাবার্তা বন্ধ করে) ‘চুপ থাকো’ বলে আমি চলে যাই। (প্রতিবাদ না করে, কিংবা কিছু না বলে) এ ধরনের আচরণ আমি মেনে নিতে পারি না, চুপচাপও থাকতে পারি না, আমাদের অবশ্যই চুপ থাকা উচিত নয়।”

পরে মেরি জানান, লোকটি কীভাবে তার দিকে ছাইদানি ছুড়ে মারে এবং তাকে অনুসরণ করতে থাকে।

‘সে ডজনখানেক প্রত্যক্ষদর্শীর সামনে দিনদুপুরে আমার গায়ে হাত তোলে, এ ব্যাপারে আমি একটি অভিযোগ দাখিল করেছি।’

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, মেরিকে চড় মারার পর কফি দোকানে উপস্থিত দু-একজন ওই লোকটির সঙ্গে বাকবিতণ্ডা শুরু করছেন, কিন্তু পাত্তা না দিয়ে লোকটি হেঁটে চলে যায়।

এ ধরনের বাজে পরিস্থিতি প্রসঙ্গে মেরি লিখেন, ‘এই লোকটাই একমাত্র লোক না, হয়রানি নিত্যদিনের। এ ধরনের পুরুষেরা মনে করে রাস্তায় সবকিছু জায়েজ, এরা নারীদের হেয় করে, এটা মেনে নেয়া যায় না। এ রকম অনাচার বন্ধের এখনই সময়’।

এ ব্যাপারে প্যারিস প্রশাসন এর মাঝেই তদন্ত শুরু করেছে বলে জানা গেছে। তবে এখন পর্যন্ত ওই লোকটিকে চিহ্নিত করা সম্ভব হয়নি।

ফ্রান্সের লিঙ্গ সমতাবিষয়ক মন্ত্রী মারলিন শিয়াপা বলেন, সহিংস ভিডিওচিত্রটি মানুষজনকে আহত করেছে।

সোমবার ফ্রান্সের রেডিও আরটিএলে যৌন হয়রানির মেরির উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, ‘এই সাহসী নারী মেরিকে আমি স্যালুট জানাই, যে এ ধরনের (হয়রানির বিরুদ্ধে প্রতিবাদের জন্য মুখ খুলেছে।’

সম্প্রতি ফ্রান্সে যৌন হয়রানি বিষয়ে একটি বিল সিনেটে পাস হয়েছে, যাতে প্রকাশ্যে কারো উদ্দেশ্যে বাজে মন্তব্য, হয়রানি, কিংবা কারো ফোন নাম্বার চাইলে ৭৫০ ইউরো পর্যন্ত জরিমানা করা হবে।

দেখুন ভিডিওতে :


আরো সংবাদ