২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

এতো পরিশ্রম বৃথাই গেল!

যানজট
ফ্রানি নামের একজন বাসিন্দা বলছেন, '' এটা তাদের জন্য যেন একটা মজার ব্যাপার। হয়তো তারা ভেবেছে, ওখানে ব্যাটম্যান থাকে।'' - ছবি : বিবিসি

ক্রোয়েশিয়ার দক্ষিণে ৪৪ মিলিয়ন ডলার বা প্রায় ৩৬০ কোটি টাকার বেশি খরচ করে পাহাড়েরর ভেতর দিয়ে একটি টানেল তৈরি করা হয়েছিল যানজট কমানোর জন্য। কিন্তু এখন তারা বুঝতে পারছে না, এই টানেল নিয়ে তারা কি করবে।

আরটিএল ক্রোয়েশিয়ার খবর অনুযায়ী, ওমিস শহরের যানজট কমানোর উদ্দেশ্যে বাইপাস তৈরির জন্য একটি পাহাড়ের ভেতর দিয়ে ওই টানেলটি নির্মাণ করা হচ্ছিল।

ওমিস ব্রিজ নামের একটি স্থানে টানেলের মুখ বের হবার কথা, যার ফলে ওমিসের বাসিন্দারা সহজেই উপকূলের সড়কে উঠতে পারবে। টানেলের কারণে শহরের ট্রাফিক জ্যাম কমবে বলেও আগে করা হয়েছিল।

ছয় বছর আগে নির্মাণ কাজ শুরু হয়।

কিন্তু ১৪৭১ মিটার নির্মাণের পর দেখা গেল, সেটি বেরিয়েছে পাহাড়ের একটি খাদের ওপর, যেখান দিয়ে যাবার কোন পথ নেই।

এ নিয়ে ক্ষুব্ধ ওমিস শহরের মানুষজন।

যে টানেল দিয়ে যাবার কোন জায়গা নেই

 

ফ্রানি নামের একজন ব্যাঙ্গ করে বলছেন, ‘এটা তাদের জন্য যেন একটা মজার ব্যাপার। হয়তো তারা ভেবেছে, ওখানে ব্যাটম্যান থাকে। শহরের জন্য যেখানে যানজট, সেখানে কোন খরচ করা হয়নি, কোন কাজ করা হয়নি।’

আরটিএল বলছে, শহরের কর্তৃপক্ষ স্বীকার করেছে যে, পুরো প্রকল্পটি তাদের জন্য লজ্জাজনক। গ্রীষ্মের ছুটি শেষ হলেই তারা নতুন করে কাজ শুরুর কথা ভাবছে। সূত্র : বিবিসি

আরো পড়ুন : 
চট্টগ্রামে যানজট নিয়ন্ত্রণে ৭ সুপারিশ বাস্তবায়নের উদ্যোগ
চট্টগ্রাম ব্যুরো, ২৩ মে ২০১৮
চট্টগ্রাম নগরীতে যানজট নিয়ন্ত্রণে আনার লক্ষ্যে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক), চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) ও রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের মধ্যে ত্রিপক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল দুপুর ১২টার দিকে সংশ্লিষ্ট সংস্থার প্রতিনিধিরা নগর ভবনের সম্মেলন কক্ষে বৈঠকে মিলিত হন। বৈঠকে নগরীর ট্রাফিক শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে সাত সুপারিশ বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।
সুপারিশগুলো বাস্তবায়নে ইতিবাচক পদক্ষেপ গ্রহণে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন প্রতিনিধিদের সাথে নানামুখী আলাপ-আলোচনা করেন অনুষ্ঠানের সভাপতি চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

আলোচনায় নগরজুড়ে কমপ্রিহেনসিভ ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম চালুকরণ আন্তঃজেলা বাস, ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান মালিক সমিতিকে সমন্বিতকরণ, চলতি রমজান মাসে সল্টগোলা রেল ক্রসিং গেট বিকেল ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত বন্ধ রাখা, ইস্টার্ণ রিফাইনারি, পদ্মা, যমুনা, মেঘনা অয়েল কোম্পানি ও বন্দরের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে ড্রাইডকের সব ধরনের পরিবহনের ক্ষেত্রে দিনের বেলায় চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারিকরণ, সড়ক ও ড্রেন নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নের কারণে রাস্তার পাশে ফেলে রাখা মাটি অপসারণে সিটি করপোরেশনের মোবাইল কোর্ট পরিচালনাসহ সুপারিশগুলো বাস্তবায়নের ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ ঐকমত্য পোষণ করেছেন।

এ সময় মেয়ন আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, জনস্বার্থ বিবেচনায় রেখে চলতি রমজানে যানজট সমস্যা নিয়ন্ত্রণে আমাদের সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে। এ ব্যাপারে প্রত্যেককে নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করতে হবে। মেয়র আ জ ম নাছির বলেন, সল্টগোলা ক্রসিং এলাকার রেলগেটে বিকেল ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত বন্ধ রাখা, জাকির হোসেন রোডের রেলগেট সংস্কারকরণে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের ইতিবাচক সহযোগিতা কামনা করেন।

মেয়র আরো বলেন, রমজানে মফস্বল এবং উপজেলা শহর থেকে প্রতিদিন ১০ থেকে ১৫ লাখ মানুষ নগরে প্রবেশ করছে। নগরে বেড়ে গেছে যানবাহন এবং পরিবহন সংখ্যা। প্রতিদিন বাইরে থেকে হাজার হাজার যানবাহন ও পরিবহন নগরে প্রবেশ করছে। যোগাযোগ ব্যবস্থাপনার ওপর যানবাহনের এই চাপ বেড়েই চলছে। যানজট নিরসনে একটি ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম চালুকরণে ইতোমধ্যে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এবং সিএমপি ট্রাফিক বিভাগ উদ্যোগ হাতে নিয়েছে। এ ব্যাপারে প্রস্তাবনাটি অনুমোদনের ব্যাপারে মন্ত্রণালয়ে উপস্থাপিত করা হবে।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন চসিক প্রধান নির্বাহী মো: সামসুদ্দোহা, রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল জিএম সৈয়দ ফারুক আহমেদ, সিএমপি অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক)কুসুম দেওয়ান, বাংলাদেশ রেলওয়ে অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী (সেতু) মো: গোলাম মোস্তফা, চসিক প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল মহিউদ্দিন, এসি ট্্রাফিক (উত্তর) মো: মিজানুর রহমান প্রমুখ।


আরো সংবাদ