২২ জুন ২০১৮

দুই মাতাল নারীর মারামারির ঘটনায় তোলপাড়

দুই মাতাল নারীর মারামারির ঘটনায় তোলপাড়। ছবি - ডেইলি মেইল।

দুই মাতাল মহিলার ঝগড়া নিয়ে প্রকাশিত একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঝড় তোলেছে।

এই ভিডিওটিতে দেখা যায়, একজন গোলাপী জামা পরিহিতা নারী আরেকজন নীল জামা পরিহিতা নারীর সাথে ঝগড়া করছে। এর মধ্যে গোলাপী জামা পরিহিতা নারীকে অপরজন অশ্লীল গালি দিলে সে বিদ্রুপ অঙ্গভঙ্গি করে তার দিকে তেড়ে যায়। একজন অপরজনকে হাত দিয়ে মারতে শুরু করে।মারামারির এক পর্যায়ে নীল জামা পরিহিতা মহিলা অন্যজনের দিকে চা ছুড়ে মারেন।

এই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ হওয়ার ২৪ ঘন্টার মধ্যেই ১.৫ মিলিয়ন বার দেখা হয় । ঘটনাটি ব্রিটেনের ডারহাম কাউন্টির শিলডন এলাকার আলবিয়ন এভিনিউয়ে ঘটেছে।

জন ক্যান্টি, যিনি এই ভিডিওটি রেকর্ড করেছেন তিনি বলেন, দুজনকে পরবর্তিতে গ্রেফতার করা হলেও কোন ঝামেলা ছাড়াই মুক্তি দেয়া হয়।

ভিডিওটি শুরু হয় দুজন মাতাল মহিলার ঝগড়া মাধ্যমে। যাদের একজন ‘লিন্ডসেইন’ ও অপরজনকে ‘ব্লাক জুসি’ নামে পরিচিত।

নীল জামা পরিহিতা নারী (ব্লাক জুসি), গোলাপী জামা পরিহিতা(লিন্ডসেইন) নারীকে গালি দিলে সে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করে দেখায়। এতে ক্ষেপে গিয়ে দুজন দুজনের দিকে তেড়ে আসে।

এতে লিন্ডসেইন রাগে অগ্নিশর্মা হয়ে ঐ মহিলাকে তার বাসার সামনে কিছু বুঝে উঠার আগেই দুহাতে মারতে শুরু করে।

এসময় লিন্ডসেইনের দিকে ঐ মহিলার হাতে থাকা কাপের চা ছিটিয়ে দেন। কিন্তু লিন্ডসেইন দ্রুত মুখ ঘুরিয়ে নিয়ে চা তার মুখে পড়া থেকে নিজেকে রক্ষা করে।

এরপর দুই মহিলা একে অপরকে চড় থাপ্পড় মারতে শুরু করে। রাস্তা থেকে ঝগড়া করতে করতে একজন অন্যজনকে পাশে থাকা গাছের সাথে চেপে ধরেন।

এবার লিন্ডসেইনের চুল টেনে ধরেন ব্লাক জুসি। এসময় আকস্মিকভাবে লিন্ডসেইন মাটিতে পড়ে যান।

আর নীল জামা পরিহিতা মহিলা চিৎকার করে তার প্রতিবেশীর সাথে শোরগোল করতে থাকে।

পুনরায় তারা দুইজন মারামারি শুরু করেন। এবার লিন্ডসেইন পেছন থেকে ধাক্কা দিয়ে ‘ব্লাক জুসি’ কে রাস্তায় ফেলে দেন।

এবার লিন্ডসেইন রাস্তায় থাকা ডাস্টবিনের ঢাকনা দিয়ে ব্লাক জুসির দিকে ছুঁড়ে মারেন। এভাবেই চলতে থাকে দুই মহিলার ঝগড়া।

জন ক্যান্ট তার ইউটিউব চ্যানেল ‘ক্যান্টস লেট নাইট শো’তে সম্পূর্ণ ভিডিও আপলোড করেন। তিনি বলেন, পুলিশ ব্লাক জুসিকে গ্রেফতার করলেও পরে তাকে মুক্তি দিয়ে দেন।

সূত্র: ডেইলি মেইল।

আরো দেখুন: ইংল্যান্ডে আবারো বাংলাদেশী মুজিবুর মেয়র নির্বাচিত
 
ইংল্যান্ডের করবী বারাহ কাউন্সিলে দ্বিতীয় বারের মত মেয়রের দায়িত্ব পেলেন বাংলাদেশী বংশদ্ভোত কাউন্সিলর মোহাম্মদ মুজিবুর রহমান। 
বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় বিকেল ৭ টায় সিভিক হলে আয়োজিত কাউন্সিলের প্রথাগত এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে কাউন্সিলর মোহাম্মদ মুজিবর রহমানকে আগামী এক বছরের জন্য এই দায়িত্ব দেয়া হয়। এই দায়িত্ব প্রাপ্তির মাধ্যমে করবী কাউন্সিল এই প্রথমবারের মত কোন কাউন্সিলর মেয়রের দায়িত্ব পাওয়ার গৌরব অর্জন করলেন।
অনুষ্ঠানে করবী কাউন্সিলের সকল নির্বাচিত কাউন্সিলর, স্থানীয় বিশিষ্টজনসহ শতাধিক আমন্ত্রিত অতিথি উপস্থিত ছিলেন। 
মেয়রের দায়িত্বপ্রাপ্ত হওয়ার আগে ২০১৭-২০১৮ সালে তিনি ডেপুটি মেয়রের দায়িত্ব পালন করেছেন। 
বিগত ২০১১-২০১৩ সালে সফলতার সাথে কাউন্সিলর মুজিবুর রহমান করবীর মেয়রের দায়িত্ব পালন করছেন। সেই সময় ইংল্যান্ডের রাণী দ্বিতীয় এলিজাবেথ প্রথমবারের মত করবী বারাহ পরিদর্শন করেন।


বাংলাদেশের সিলেটের উসমানি নগরের খাগদিওর গ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা মরহুম আলহাজ রমজান আলী ও গুলবাহার বিবির ৪ ছেলে ও ৪ মেয়ের মধ্যে তৃতীয় সন্তান মোহাম্মদ মুজিবুর। ১৯৭৯ সাল থেকে বৃটেনে সপরিবারে বসবাস করেছেন।
৪৬ বছর বয়সী কাউন্সিলার মুজিবুর ব্যক্তিগত জীবনে ৫ মেয়ে ও ১ ছেলের জনক। তার সহধর্মীনি ইমরানা বেগম তার কনর্সট এর দায়িত্ব পেয়েছেন। 
২০১১ সালে স্থানীয় সরকার নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পর থেকে কাউন্সিলর মুজিবুর করবী কাউন্সিলের বিভিন্ন গুরুত্বর্পূর্ণ পদে দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করছেন। 
র্নথা¯পটনশায়ার কাউন্টি কাউন্সিলের অর্ন্তগত এই বারায় খুব অল্প সংখ্যক বাংলাদেশী বসবাস করে। জায়গাটিতে বাংলাদেশী কম হলেও মূলধারার রাজনীতিতে বাংলাদেশীদের পদচারণা চোখে পড়ার মত। ২০১১ সালে দুই জন বাংলাদেশী স্থানীয় সরকারের কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন। 
২০১৫ সালের স্থানীয় সরকার নির্বাচনে মুজিবুর রহমান একমাত্র বাংলাদেশী কাউন্সিলর হিসাবে নির্বাচিত হন।


আরো সংবাদ