১২ ডিসেম্বর ২০১৯

রুনা লায়লাতে অনুপ্রাণিত হয়ে মাহদিয়া গাইলেন অনেক বৃষ্টি ঝড়ে

-

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সঙ্গীতশিল্পী রুনা লায়লার গানের ভক্ত কে নন, তাকে খুঁজে পাওয়া কঠিনই হবে। তবে যেসব মেয়ে নিজেদের একজন সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে গড়ে তোলার ভাবনায় থাকেন তাদের কাছে সবচেয়ে পছন্দের শিল্পী হিসেবে রুনা লায়লার নামটিই সবার আগে শ্রদ্ধার সাথে উচ্চারিত হয়। সবারই যেন একজন রুনা লায়লা হওয়ারই স্বপ্ন থাকে। চলচ্চিত্রের সফল তারকা দম্পতি নাইম-শাবনাজের ছোট মেয়ে মাহদিয়ারও স্বপ্ন রুনা লায়লার মতো নিজেকে একজন আন্তর্জাতিক সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে গড়ে তোলা। সেই ছোটবেলা থেকেই সঙ্গীতে তার অনুপ্রেরণার নাম রুনা লায়লা। ক্লাস থ্রিতে যখন পড়তেন মাহদিয়া, সেই সময়ে তিনি নিজেকে রুনা লায়লার আঙ্গিকে সেজে স্কুলের মঞ্চে পয়লা বৈশাখের একটি অনুষ্ঠানে ‘আল্লাহ মেঘ দে পানি দে’ গানটি গেয়ে সবাইকে মুগ্ধ করেছিলেন। এরই মধ্যে বাবা-মায়ের অনুপ্রেরণায় মাহদিয়া গধযফরুধয ঘধরস নামে একটি ইউটিউব চ্যানেলেরও যাত্রা শুরু করেছেন। চ্যানেলটিতে এরই মধ্যে মাহদিয়ার গাওয়া দুটি ইংলিশ ও একটি বাংলা গান প্রকাশিত হয়েছে। আজ প্রকাশিত হবে মাহদিয়ার গাওয়া ‘অনেক বৃষ্টি ঝড়ে তুমি এলে গানটি’। রুনা লায়লার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন এবং রুনা লায়লাতে অনুপ্রাণিত হয়েই মাহদিয়া গানটি গেয়েছেন। গানটি নতুন করে সুর ঠিক রেখে সঙ্গীতায়োজন করেছেন সাঈদ সুজন। গানটি গাওয়া শেষে রুনা লায়লার কাছ থেকে আশীর্বাদ নেয়ার জন্য এরই মধ্যে রুনা লায়লার সাথে মাহদিয়া তার বাবা-মাকে সাথে নিয়ে একদিন দেখাও করে এসেছেন। রুনা লায়লা মাহদিয়ার কণ্ঠে গান শোনে ভীষণ মুগ্ধ হয়েছেন। শুধু তাই নয়, মাহদিয়ার কণ্ঠে বাংলা গানের চেয়ে ইংরেজি গান শোনে বেশি মুগ্ধ হয়েছেন রুনা লায়লা। রুনা লায়লা গান শোনে মাহদিয়ার আগামী দিনের শুভ কামনা জানিয়ে দোয়া করে দেন। মাহদিয়া বলেন, শ্রদ্ধেয় রুনা লায়লা ম্যাডামের বাসায় যেদিন আমি প্রথম যাই গানের জন্য তার অসংখ্য অ্যাওয়ার্ড দেখে আমি মুগ্ধ হয়ে যাই। তখনই মূলত আরো বেশি অনুপ্রাণিত হই। মনে মনে আরো সাহস সঞ্চয় করি যে আমাকেও একদিন গানে গানে সবাইকে মুগ্ধ করার মধ্য দিয়ে এমন সম্মাননা অর্জন করতে হবে। রুনা ম্যাডাম যখন আমাকে দেখে বুকে টেনে নিলেন, আমার গান শুনলেন, আমার গায়কীর প্রশংসা করলেন তখন আসলে আমি কিছু বলার ভাষা হারিয়ে ফেলেছিলাম। এত প্রখ্যাত, এত বড় মাপের একজন শিল্পী হয়েও অতি সাধারণ তিনি। আমি মিস করছিলাম আমার বড় আপু নামিরাকে। কারণ গানের ব্যাপারে আমার বড় বোনই সবচেয়ে বেশি উৎসাহ দেন। নিজের মেয়ে প্রসঙ্গে নাইম বলেন, সত্যি বলতে কী পড়ালেখার চাপে মাহদিয়া গানের চর্চাটা সঠিকভাবে করতে পারছে না, তা না হলে গানে সে আরো অনেক ভালো করতে পারত। আজ সন্ধ্যায় মাহদিয়ার ইউটিউব চ্যানেলে গানটি প্রকাশ হবে। গানটি লিখেছেন আবু হেনা মোস্তফা কামাল এবং সুর করেছেন আব্দুল আহাদ। উল্লেখ্য, রাজধানীর আগা খান স্কুলে এ লেভেলে পড়ছেন মাহদিয়া।
ছবি : গোলাম সাব্বির


আরো সংবাদ