২০ জুলাই ২০১৯

আনকাট সেন্সর পেল মায়াবতী

-

প্রথমবারের মতো কোনো চলচ্চিত্রের নাম ভূমিকায় অভিনয় করলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী তিশা। অরুণ চৌধুরী পরিচালিত মায়াবতী নামের এই চলচ্চিত্রটি গত রোববার বিনা কর্তনে সেন্সর সনদপত্র পায়। এ চলচ্চিত্রের মাধ্যমেই প্রথমবারের মতো বড় পর্দায় জুটিবদ্ধ হলেন তিশা ও ‘স্বপ্নজাল’ খ্যাত নায়ক ইয়াশ রোহান। আনোয়ার আজাদ ফিল্মস ও অনন্য সৃষ্টি ভিশন প্রযোজিত এই চলচ্চিত্রটি সেন্সর পাওয়ার পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় পরিচালক অরুণ চৌধুরী বলেন, সেন্সর বোর্ডের সম্মানিত সদস্যরা আমাদের এই চলচ্চিত্রটি দেখে মুগ্ধ হয়েছেন। এ জন্য তাদের তো অবশ্যই, সেই সাথে মায়াবতী চলচ্চিত্রের সাথে জড়িত প্রতিটি সদস্যকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানাই। যারা এতদিন ধরে মায়াবতী চলচ্চিত্রটি দেখার জন্য অপেক্ষা করছেন, তারা খুব শিগগিরই দেখতে পাবেন আশপাশের সিনেমা হলে। সবাই আমাদের জন্য আশীর্বাদ করবেন এবং পাশে থাকবেন। মায়াবতী চলচ্চিত্রে তিশা-ইয়াশ রোহান ছাড়াও রয়েছেন অসংখ্য মেধাবী অভিনয়শিল্পীদের সমাবেশ : রাইসুল ইসলাম আসাদ, মামুনুর রশীদ, দিলারা জামান, ফজলুর রহমান বাবু, আফরোজা বানু, ওয়াহিদা মল্লিক জলি, আব্দুল্লাহ রানা, অরুণা বিশ্বাস, তানভীর হোসেন প্রবাল, আগুন প্রমুখ। এ ছবির গল্পের পটভূমি সম্পর্কে অরুণ চৌধুরী বলেন, মায়া নামের এক কিশোরী ছোটবেলায় ওর মায়ের কাছ থেকে চুরি হয়ে ‘ওম্যান ট্রাফিকিং’-এর ফাঁদে পড়ে বিক্রি হয়ে যায়, দৌলতদিয়ার রেড লাইট এরিয়ায়। সেই পাড়ায় মায়াকে ধীরে ধীরে গড়ে তুলতে থাকেন সঙ্গীত গুরু খোদা বক্স। ওই দিকে মায়ার গানের প্রেমে পড়ে পাড়ার পাশে গৃহস্থবাড়ির পড়াশোনা করা ব্যারিস্টার পুত্র। বিধাতার নির্মম পরিহাসে একটা সময় মায়া ভয়ঙ্কর খুনের ঘটনাতেও জড়িয়ে পড়ে। শুরু হয় নতুন গল্প। নতুন সংগ্রাম। প্রায় ৮০০ নাটকের নাট্যকার-পরিচালক অরুণ চৌধুরী পরিচালিত প্রথম চলচ্চিত্র আলতাবানু গত বছর মুক্তি পেয়েছে। এই চলচ্চিত্রটি ইতোমধ্যে দেশ-বিদেশের বিভিন্ন চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়ে প্রশংসা কুড়িয়েছে।

 


আরো সংবাদ




gebze evden eve nakliyat instagram takipçi hilesi