১৬ নভেম্বর ২০১৮

ইভিএম আসবে কোত্থেকে

-

তড়িঘড়ি করে তিন হাজার ৮২১ কোটি টাকায় দেড় লাখ ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) কিনতে চায় নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এ জন্য গণপ্রতিনিধিত্ব অধ্যাদেশ (আরপিও) সংশোধনের কাজও প্রায় চূড়ান্ত করেছে নির্বাচনী এই সংস্থাটি। রাজনৈতিক দলগুলোর মতামত উপেক্ষা করে ইসির এমন সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়েছে তারা। ইসি কর্তৃক পাঠানো প্রস্তাবনায় দেড় লাখ ইভিএমের যন্ত্রপাতি ও সিস্টেম ক্রয়ের কথা প্রকল্পে প্রস্তাবে উল্লেখ রয়েছে।

তবে কোথা থেকে কিভাবে এসব যন্ত্রপাতি সংগ্রহ করা হবে তা প্রস্তাবে উল্লেখ করা হয়নি।

প্রকল্পে ৩১১০ জনের প্রশিক্ষণের কথা উল্লেখ থাকলেও তারা কারা সে বিষয়ে উল্লেখ করা হয়নি। ফলে পিইসির ১৯ আগস্টের ওই সভা মুলতবি করা হয়েছে। সভায় প্রকল্পটির সম্ভাব্যতা যাচাই ছাড়াই প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে মর্মে মতামত এসেছে।

পরিকল্পনা কমিশন সূত্রে জানা গেছে, প্রকল্পটির সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের প্রয়োজনীয়তার ব্যাপারে আলোচনার তাগিদ দিয়েছে পিইসি। প্রকল্পে ২০৪ জন পরামর্শকের প্রয়োজনীয়তা জানতে চেয়েছে পিইসি। এক্ষেত্রে পরামর্শকের যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা ও কর্মপরিধি ডিপিপিতে উল্লেখের জন্য বলা হয়েছে। এ ছাড়া ৩০ জনকে বিদেশে প্রশিক্ষণ প্রদানের কথা বলা হলেও তাদের পরিচয় জানানো হয়নি। প্রকল্পে বিজ্ঞাপন প্রচার, পরিবহন, মোটরযানবাহন ক্রয়, কম্পিউটার সফটওয়্যার, আসবাবপত্র ক্রয় বাবদ বিপুল অর্থ ব্যয়ের প্রস্তাব রাখা হয়েছে।

সম্প্রতি ‘নির্বাচন ব্যবস্থাপনায় অধিকতর স্বচ্ছতা আনয়নের লক্ষ্যে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ক্রয়, সংরক্ষণ ও ব্যবহার’ শীর্ষক প্রকল্প গ্রহণের জন্য পরিকল্পনা কমিশনে প্রস্তাব পাঠিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে আলাপ-আলোচনা না করেই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে এ প্রকল্প গ্রহণের উদ্যোগ নিয়েছে ইসি।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে আলাপ-আলোচনা ছাড়াই জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারের লক্ষ্যে আরপিও সংশোধনের উদ্যোগ নিয়েছে ইসি। এ জন্য প্রায় দেড় লাখ ইউনিট ইভিএম ক্রয়ের জন্য ৩৮২৯ কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহণের প্রস্তাবও পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। সারা দেশে মাঠপর্যায়ে কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ প্রদান শুরু করেছে ইসি। এর আগে ইসি জানিয়েছিল, স্থানীয় সরকারের বিভিন্ন নির্বাচনে ইভিএমে ব্যবহারে সফলতা পেলে একাদশ সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করবে ইসি।

সিইসি কেএম নূরুল হুদা একাধিকবার বলেছেন, জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারের প্রস্তুতি নেই ইসির। রাজনৈতিক দল ও ভোটাররা সর্বসম্মতি দিলেই নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার হতে পারে। ইসির সাথে সংলাপে বিএনপিসহ বেশ কয়েকটি রাজনৈতিক দল জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারের বিরোধিতা করেছে। অন্য দিকে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট ইভিএম ব্যবহারের পক্ষে মত দিয়েছে।

জাতীয় নির্বাচনের আগে সিটি করপোরেশন নির্বাচনগুলোতে সীমিত পরিসরে ইভিএম ব্যবহার করা হয়। বাড়তি জনবল, খরচ ও সময় বেশি লাগার কারণে এসব নির্বাচনে নানা সমালোচনা সৃষ্টি হয়। এরও আগে ২০১৩ সালে সিটি নির্বাচনে বুয়েটের তৈরি ইভিএমে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে রাজশাহী সিটির পিটিআই কেন্দ্রে রণত্রে তৈরি হয়। ইভিএমের কারণে পুরো নির্বাচন প্রক্রিয়া বিতর্কিত হয়ে পড়ে।

সর্বপ্রথম এক-এগারোর সময়কার এ টি এম শামসুল হুদা কমিশন স্থানীয় নির্বাচনে ইভিএমের প্রচলন ঘটায়। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) সহায়তায় প্রথমে ২০১০ সালে এ প্রযুক্তির ৫৩০টি মেশিন কেনা হয়। ব্যবহার করতে গিয়ে ইভিএমে নানা যান্ত্রিক ত্রুটি ধরা পড়ে। পরে ২০১১ সালে বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরির (বিএমটিএফ) প্রস্তুত করা ৭০০ ইভিএম কেনা হয়। এগুলোও পুরোপুরি ত্রুটিমুক্ত ছিল না।

শামসুল হুদা কমিশন ২০১১ সালে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনে ২১নং ওয়ার্ডে বুয়েটের ইভিএম ব্যবহার করে। পরে কুমিল্লা সিটি করপোরেশন, নারায়ণগঞ্জ সিটি, টাঙ্গাইল পৌরসভা ও নরসিংদী পৌরসভায় এ প্রযুক্তি ব্যবহার হয়। পাঁচ বছর মেয়াদ পূর্ণ হওয়ায় হুদা কমিশনের স্থলে বিধির নিয়মে নতুন কমিশন হিসেবে ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারিতে বিদায়ী রকিব উদ্দিন কমিশন দায়িত্ব নেয়। তাদের মেয়াদে রাজশাহী সিটিতে ২০১৩ সালে ইভিএম ব্যবহার করে পুরো বিতর্কের মধ্যে পড়ে যায় ইসি। পরে কমিশনার হিসেবে মেয়াদ পূর্ণের আগে ইভিএম ব্যবহার করেনি। তবে নতুন ইভিএমের প্রচলন চালু রেখে যায়।

এ ছাড়া ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে কে এম নূরুল হুদার কমিশন দায়িত্বে এসে কমিটি করে পুরনো ইভিএমকে পরিত্যক্ত ঘোষণা করে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নির্বাচনের কমিশনের সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ বলেন, সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের জন্য পরিকল্পনা কমিশন থেকে কিছু জানানো হয়নি। মাননীয় মন্ত্রী এর আগে একটা সভা ডেকেছিলেন। ওই সভা মুলতবি হয়েছে। সভার পরবর্তী তারিখ এখনো জানানো হয়নি।


আরো সংবাদ

বিএনপির বিভাগওয়ারী প্রার্থীগণের সাক্ষাতের সময়সূচী নির্ধারণ মক্কা মদিনাসহ বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে খাসোগির গায়েবানা জানাজা বিএনপির নেতাকর্মীদের গ্রেফতারে নিন্দা জানিয়েছেন মির্জা ফখরুল প্রধানমন্ত্রী কে হবেন, সিদ্ধান্ত নেবে জোটের সংখ্যাগরিষ্ঠ দল : ড. কামাল রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তা নজরদারিতে এবার আর্মড পুলিশের নতুন ব্যাটেলিয়ন সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশী শিশু নিহত প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়ে স্বামীর বিরুদ্ধে গুমের মামলা, অবশেষে উদ্ধার নরসিংদীতে আওয়ামী লীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ৪ ‘হাসিনা-এরশাদের ঐক্য কেউ বিনষ্ট করতে পারবে না’ খাশোগি হত্যার নির্দেশদাতার নাম প্রকাশ করল সৌদি আরব সেদিন পল্টনে কী হয়েছিল, জানতে আইজিপিকে চিঠি দিবে ইসি

সকল