১৭ নভেম্বর ২০১৮

ভোট বাতিল করে পুনর্নির্বাচন চেয়েছেন আরিফ

নির্বাচন
আরিফুল হক চৌধুরী (ফাইল ছবি) - ছবি : আর্কাইভ

অনিয়মের ভোট বাতিল করে পুননির্বাচন চেয়েছেন সিলেটে বিএনপির মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী।

আজ সোমবার দুপুর সোয়া ১টার দিকে রির্টানিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে এসে জাল ভোট, কেন্দ্র দখলসহ নানা অনিয়ম তুলে ধরেন তিনি।

পরে সাংবাদিকদের বলেন, পুলিশের সামনেই কেন্দ্র দখল, ককটেল বিস্ফোরণ, কারচুপির ঘটনা ঘটছে, যা পুণ্যভূমি সিলেটকে কলঙ্কিত করেছে।

তিনি বলেন, এ ধরনের নির্বাচনে আমি বিজয়ী হলেও সেটি সুষ্ঠু বলে গ্রহণযোগ্য হবে না।

আরো পড়ুন :

সিলেটে কেন্দ্রে কেন্দ্রে অনিয়ম, জালভোট
মঈন উদ্দিন খান, সিলেট থেকে
সিলেটে বহু ভোট কেন্দ্রে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে নানা অনিয়ম ও জাল ভোট দেয়ার হিড়িক পরতে দেখা গেছে। সকাল আটটায় ভোট শুরু হওয়ার পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে বিভিন্ন জায়গায় গোলযোগ, কেন্দ্র দখল ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। নগরীর ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাজী জালালউদ্দীন বহুমুখী বালিক উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

সকাল সাড়ে ১১টার দিকে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থী নাজমুল ইসলাম ইয়াহিয়ার সমর্থকরা কেন্দ্রে ঢুকে ব্যালট ছিনতাই করতে যায়। এসময় আওয়ামী সমর্থিত প্রার্থী সাজুওনের সমর্থকরা প্রতিহত করতে গেলে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ভোট বন্ধ রাখেন। এসময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ২২ নম্বর ওয়ার্ডের শাহজালাল আদর্শ বিদ্যালয়ে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীর সমর্থকরা জাল ভোট দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপিসহ অন্য দলের প্রার্থীরা।

অন্যদিকে, জামেয়া ইসলামিয়া মাদানী বাহিরবাজার মাদ্রাসা কেন্দ্রে নৌকা ছাড়া অন্য কোনো প্রার্থীর এজেন্ট দেখা যায়নি। নগরীর শিশু বিদ্যালয় এমসি কলেজ কেন্দ্রের সাতটি বুথে নৌকা ছাড়া অন্য কোনো দলের এজেন্ট দেখা যায়নি। সেখানে থাকা প্রিসাইডিং অফিসার রাজীব কান্তি পাল জানিয়েছেন, সকালে ধানের শীষসহ অন্য কোনো প্রার্থীর এজেন্টরা জিনিসপত্র বুঝে নেয়নি। এছাড়া পাঠানটোলা কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ-জামায়াত প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। নবীনবাগ আদর্শ বর্ণমালা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে নৌকায় সিল মারার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বিএনপির মেয়রপ্রার্থী আরিফুল হকের নিজ কেন্দ্র রানাঘর সরকারি প্রাথামিক বিদ্যালয় কেন্দ্র দখল করার চেষ্টা করে আওয়ামী লীগের সমর্থকরা। এসময় গোলোযোগের ঘটনা ঘটে। পরে সেখানে ভোট গ্রহণ স্থগিত রাখা হয়। এছাড়া অধিকাংশ কেন্দ্রে নৌকার সমর্থক, নেতাকর্মী ছাড়া অন্য কোনো দলের কাউকে পাওয়া যায়নি।

রাতেই নৌকার পক্ষে সিল মেরে বাক্স ভরে রাখা হয়েছে: আরিফুল হক চৌধুরী
মঈন উদ্দিন খান, সিলেট থেকে
প্রয়োজনে মৃত্যুকে বরণ করে নেবেন তবু নির্বাচনের মাঠ থেকে সরে কাউকে জায়গা করে দেবেন না বলে জানিয়েছেন সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী।

আজ সকালে রায়নগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সাংবাদিকদের কাছে এক প্রতিক্রিয়ায় আরিফুল হক একথা বলেন। এর আগে সকাল ৮টা ১০ মিনিটে এই কেন্দ্রে নিজের ভোট দেন তিনি।

এসময় বিএনপির এই মেয়র প্রার্থী অভিযোগ করেন যে, নগরীর ২০ নম্বর ওয়ার্ডের এমসি কলেজ কেন্দ্রসহ বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে রোববার রাতেই নৌকার প্রার্থীর পক্ষে সিল মেরে ব্যালট বাক্স ভরে রাখা হয়েছে।

শত প্রতিকূলতার মধ্যে যদি জনগণ ভোট দিতে পারে তাহলে তিনি বিপুল ভোটে মেয়র নির্বাচিত হবেন বলে আশা প্রকাশ করেন আরিফুল হক চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘কোনো অবস্থাতেই সিলেটের ভোটের মাঠ অস্থিতিশীল হতে দেবো না।’

সিলেটের মানুষ ভোটকেন্দ্রে আসছেন উল্লেখ করে এই মেয়র প্রার্থী বলেন, ‘তারা যেন নিজের ভোট নিজে দিতে পারে সেটি প্রশাসনকে নিশ্চিত করতে হবে।’

রাজশাহী ও বরিশালের সঙ্গে সোমবার সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়েছে সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ।


আরো সংবাদ