২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

নির্বাচন কেন্দ্র করে মাথা চাড়া দিয়ে উঠছে চক্রান্তকারীরা

নির্বাচন কেন্দ্র করে মাথা চাড়া দিয়ে উঠছে চক্রান্তকারীরা - সংগৃহীত

তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন,‘সামনের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আবার ষড়যন্ত্র চক্রান্তকারীরা মাথা চাড়া দিয়ে উঠছে। তিনি বলেন, ‘নির্বাচনে আসা না আসা নিয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ নানা শর্ত আরোপ করছে, যা আসলে নির্বাচন বানচালেরই ষড়যন্ত্র। একইসাথে দেশের যুগান্তকারী পরিবর্তন ও উন্নয়ন থমকে দেবার ষড়যন্ত্র করছে তারা।

বৃহস্পতিবার বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলা সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় ময়দানে জাসদ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘বিএনপি-খালেদা চক্র রাজনীতির মাঠ সমতল করার নামে কারাগার ও আদালত গুঁড়িয়ে দিয়ে জঙ্গি-রাজাকার-অপরাধীদের সুযোগ করে দিতে চাচ্ছে। দেশের স্বার্থে, মানুষের কল্যাণে এই চক্রান্ত রুখতে হবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘দেশের মানুষ চায় খুনী-অপরাধী ও জঙ্গিমুক্ত রাজনীতি। আর বিএনপি-রাজাকার-জঙ্গি-জামায়াত চক্রের এই ষড়যন্ত্রীরা গণতন্ত্র ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দোহাই দিয়ে রাজনীতির মাঠ সমতল করার নামে কারাগার ও আদালত গুঁড়িয়ে দিয়ে মাটির সাথে মিশিয়ে দিতে চায়। রাজনীতির তথাকথিত এই সমতল মাঠে জঙ্গি-রাজাকার-অপরাধীরা নির্বিঘ্নে তাদের ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করতে চায়। এই প্রস্তাব আসলে গণতন্ত্র গুঁড়িয়ে দেয়ার চক্রান্ত। জঙ্গি-রাজাকার-অপরাধীদের সুযোগ দেবার চক্রান্ত।’

‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজনীতির মাঠ থেকে জঙ্গি-রাজাকার-অপরাধীদের আগাছা দক্ষ হাতে পরিস্কার করছেন, রাজনীতির এই পরিস্কার মাঠের পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখাই আমাদের অঙ্গীকার’ বলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, ‘গত দশ বছরে দেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়নগুলো সাধিত হয়েছে। এর পেছনে ছিল দু’টি মূল শক্তি। এক, শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্ব ও দুই, মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তির ঐক্য। আমাদের কাজ হচ্ছে, এই উন্নয়নকে ধরে রাখা, টেকসই করা, যাতে দেশ আর পেছনে না যায়। আর তা করতে হলে যারা পেছন থেকে টানে তাদেরকে সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস ও নির্মূল করতে হবে।’

জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার এমপি, নবীনগর আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও জাসদ নেতা এডভোকেট শাহ জিকরুল আহমেদ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপচার্য ড. আনোয়ার হোসেন, জাসদ নেতা সাখাওয়াৎ হোসেন রাঙা, ওবায়দুর রহমান চুন্নু, শওকত রায়হান, বীরমুক্তিযোদ্ধা শফিউদ্দিন মোল্লা, নূরুল আমিনসহ দলীয় নেতৃবৃন্দ সভায় বক্তৃতা করেন।


আরো সংবাদ