২১ নভেম্বর ২০১৮

কক্সবাজার পৌর নির্বাচন : বিএনপির এজেন্টদের বের করে দেয়ার অভিযোগ

নির্বাচন
ভোটারদের লাইন - ছবি : নয়া দিগন্ত

পর্যটন শহর খ্যাত কক্সবাজার পৌর নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে। কঠোর নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। তবে মুষলধারে বৃষ্টির কারণে ভোগান্তিতে পড়েছে ভোটাররা। বৃষ্টি উপেক্ষা করে সকাল থেকে পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিচ্ছেন ভোটাররা। ভোর থেকে টানা বৃষ্টি শুরু হলেও ভোটকেন্দ্রে উপস্থিত হয়েছে ভোটাররা। তবে বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে যে, তাদের এজেন্টদের ভোট কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া হয়েছে।

এ নির্বাচনে ৩টি ভোটকেন্দ্রে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ করা হচ্ছে। কেন্দ্র তিনটি হলো- প্রাইমারি ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (পিটিআই) সংলগ্ন পরীক্ষণ বিদ্যালয়, প্রাইমারি ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (পিটিআই) প্রশিক্ষণ শাখা ও কক্সবাজার কেজি এন্ড মডেল হাইস্কুল।

এ তিনটি কেন্দ্রের মোট বুথ রয়েছে ১৫টি। ভোটার সংখ্যা ৫ হাজার ৫৯০ জন। নারী ভোটার ২ হাজার ৫২১ জন। পুরুষ ভোটার ৩ হাজার ৬৯ জন। পৌরসভার ১২টি ওয়ার্ডের ৩৯টি ভোট কেন্দ্রের বাকি ৩৬টিতে স্বচ্ছ ব্যালট পেপারে ভোট নেয়া হচ্ছে।

এদিকে কক্সবাজার পৌরসভা নির্বাচনে বিভিন্ন ভোটকেন্দ্র থেকে বিএনপির এজেন্টদের বের করে দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন জেলা বিএনপির দফতর সম্পাদক ইউসুফ বদরী। তিনি জানান, কক্সবাজার কেজি অ্যান্ড মডেল হাই স্কুল কেন্দ্র থেকে মো: ফয়েজ উদ্দিন, আনছার হোসেন, ভোকেশনাল স্কুল কেন্দ্র থেকে নাসির উদ্দিন, তসলিমা বেগম, খোরশিদা বেগমকে বের করে দিয়েছে সরকার দলীয় প্রার্থী ও তার সমর্থকেরা। তারা নিজেরাও সিবিএনকে অভিযোগ করেছেন। সংশ্লিষ্ট প্রশাসন একেবারেই নির্বিকার বলে অভিযোগ করেন ইউসুফ বদরী।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও পৌরসভা নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক জানান, পৌর নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে সব ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। নির্বাচনে ১২টি ওয়ার্ডে ১২ জন ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ১ হাজার পুলিশ, ২ প্লাটুন বিজিবি, ৬ টিমে ৯০ জন র‌্যাব সদস্য ও প্রতিটি কেন্দ্রে ১০ জন করে আনসার সদস্য মোতায়েন রয়েছে। পৌরসভার ১২টি ওয়ার্ডের ৩৯টি কেন্দ্রে ২২৪টি বুথ রয়েছে। এর মধ্যে ৩টি কেন্দ্রের ১৫টি বুথে ইভিএম পদ্ধতিতে পরীক্ষামূলকভাবে ভোট গ্রহণ করা হচ্ছে।

পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে ৫ জন, ৪টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ১৭ জন ও ১২টি সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৬৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এতে ভোটার রয়েছে ৮৩ হাজার ৭২৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৪৪ হাজার ৩৭৩ জন ও নারী ভোটার ৩৯৩৫৫ জন।


আরো সংবাদ