২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বরিশালে কাউন্সিলর প্রার্থীর এজেন্টসহ ৪ জনের উপর হামলা

সেনা মোতায়েনের দাবি ২০ দলীয় জোট প্রার্থী সরোয়ারের
সংবাদ সম্মেলনে কাউন্সিলর প্রার্থী অ্যাডভোকেট সালাউদ্দিন মাসুম। - নয়া দিগন্ত।

বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জামায়াতে ইসলামীর সমর্থিত স্বতন্ত্র কাউন্সিলর প্রার্থী ও বর্তমান নির্বাচিত কাউন্সিলর অ্যাডভোকেট সালাউদ্দিন মাসুমের প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট সহ ৪ সমর্থকের উপর হামলা চালিয়েছে প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগের ক্যাডাররা। ২২ জুলাই সকালে সংঘটিত এই ঘটনার পর থানা ও নির্বাচন কমিশনে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন অ্যাডভোকেট সালাউদ্দিন মাসুম। এঘটনার বিচার চেয়ে অপরাধীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলন ও লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, রোববার সকাল সাড়ে সাতটায় ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী (ঘুড়ি প্রতীক) অ্যাডভোকেট সালাউদ্দিন মাসুমের প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট মোঃ আবদুর রউফ ও দৈনিক সংগ্রামের বরিশাল প্রতিনিধি অ্যাডভোকেট শাহে আলম নগরীর কালুশাহ সড়ক এলাকায় গেলে প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগ সমর্থিত ঠেলাগাড়ি প্রতিকের প্রার্থী তৌহিদুর রহমান ছাবিদের নেতৃত্বে একদল ক্যাডার তাদের উপর হামলা চালায়। খবর পেয়ে কাউন্সিলর প্রার্থী সালাউদ্দিন মাসুমসহ অপর এজেন্ট ও সমর্থক মিরাজুল ইসলাম, আবদুল মান্নান মিয়া, রুহুল আমিন, সাকলাইন মোস্তাক, এমরান সুমনসহ অন্যরা ঘটস্থলে গেলে তাদের উপরও চড়াও হয় তৌহিদুর রহমান ছাবিদ ও তার ক্যাডাররা। একপর্যায়ে তাদের ৪জনকে আটক করে মারধর করে পুলিশের কাছে তুলে দেয় ছাবিদ। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে চিকিৎসা করান।

এঘটনার তীব্র ন্দিা ও প্রতিবাদ জানিয়ে কাউন্সিলর প্রার্থী অ্যাডভোকেট সালাউদ্দিন মাসুম বলেন, আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল ও শান্তিপূর্ন নির্বাচনে বিশ্বাসী। তাই আমরা আইনের আশ্রয় নিয়েছি। আশা করি নির্বাচন কমিশন ও পুলিশ প্রশাসন আমাদের অভিযোগ তদন্ত করে আইনগত পদক্ষেপ নেবেন।

এদিকে তৌহিদুর রহমান ছাবিদ অভিযোগ করেন, অ্যাডভোকেট সালাউদ্দিন মাসুম তার নির্বাচনী এলাকায় বহিরাগতদের সমাগম ঘটিয়েছে, এজন্য তাদের মেরে পুলিশে দেয়া হয়েছে। এই অভিযোগ ভিত্তিহীন দাবী করে অ্যাডভোকেট সালাউদ্দিন মাসুম বলেন, আমার প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট আবদুর রউফ, মিরাজ সহ অন্য সবাই আমার নির্বাচনী এলাকা ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের ভোটার। তার স্বপক্ষে তাদের ভোটার তালিকা নির্বাচন কমিশনের কাছে জমা এবং সাংবাদিকদের প্রদর্শন করেন তিনি। একই সাথে নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরীর জন্য নির্বাচন কমিশন ও পুলিশ বিভাগের প্রতি অনুরোধ জানান।

এদিকে অ্যাডভোকেট সালাউদ্দিন মাসুমের নির্বাচনী এজেন্ট ও সমর্থকদের উপর হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ২০ দলীয় জোটের মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট মোঃ মজিবর রহমান সরোয়ার, বরিশাল মহানগর জামায়াতের আমির ও কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য অ্যাডভোকেট মুয়ায্যম হোসাইন হেলাল সহ বরিশাল ২০ দলের শীর্ষ নেতৃবন্দ। বিবৃতিতে তারা বলেন, নির্বাচন কমিশন বরিশালে নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে ব্যর্থ হচ্ছে, গ্রেফতারি পরোয়ানা ছাড়া কাউকে গ্রেফতার না করতে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা থাকলেও তার কোন বাস্তবায়ন হচ্ছেনা। ধানের শীষের পথসভা থেকে ফেরার পথে মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারি জহির উদ্দিন মুহাম্মদ বাবরকে গ্রেফতার করা হয়েছে, অথচ তার বিরুদ্ধে কোন ওয়ারেন্ট নেই। তিনি সবকটি রাজনৈতিক মামলায় জামিনে রয়েছেন। তারা বলেন, বরিশালে সরকারি দলের ক্যাডাররা পুলিশের উপর হামলা করলেও তার কোন বিচার হচ্ছে না। এমন কঠিন অবস্থায় সিটি নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি জানান ২০ দলীয় জোটের নেতারা।


আরো সংবাদ